Mir cement
logo
  • ঢাকা শুক্রবার, ২৮ জানুয়ারি ২০২২, ১৪ মাঘ ১৪২৮
discover

চিকিৎসা বর্জ্যের অব্যবস্থাপনায় ঝুঁকিতে রাজধানীবাসী (ভিডিও)

রোগ সারানোর কেন্দ্র হাসপাতাল থেকেই ছড়াচ্ছে হেপাটাইটিস, এইডস্ এর মতো প্রাণঘাতী নানা রোগের জীবাণু। চিকিৎসা বর্জ্য পরিশোধনের আধুনিক ও সমন্বিত ব্যবস্থা না থাকায় ঝুঁকিতে নগরবাসী। রাজধানীতেই প্রতিদিন ১৩ হাজার কেজি চিকিৎসা বর্জ্য উৎপন্ন হয়, যার বেশিরভাগই যত্রতত্র ফেলা হচ্ছে।

সরেজমিনে রাজধানীর বিভিন্ন হাসপাতাল ঘুরে দেখা যাচ্ছে, হাসপাতালের আশপাশের ডাস্টবিনে খোলা পরে থাকে ব্যবহার করা সিরিঞ্জ, তুলা, সূচ, রক্ত, ব্যান্ডেজসহ চিকিৎসা আর অস্ত্রোপচারের যত উপকরণ। খালি হাতে আবর্জনা সংগ্রহ করার ফলে নানা জটিল রোগে আক্রান্ত হচ্ছেন পরিচ্ছন্নকর্মীরা।

রাজধানীর ২০টি সরকারি হাসপাতাল ও ৭ শতাধিক বেসরকারি হাসপাতাল থেকে প্রতিদিন কমবেশী ১৩ হাজার কেজি চিকিৎসা বর্জ্য উৎপন্ন হয়। যার বেশিরভাগই যথাযথ পরিশোধন ছাড়া খোলা ডাস্টবিনে ফেলা হয়।

খোলা জায়গায় চিকিৎসা বর্জ্য ফেলায় যক্ষ্মা, চর্মরোগসহ নানা সংক্রামক রোগ সহজেই ছড়িয়ে পরে। স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা জানান, এর ফলে ডিপথেরিয়া, হেপাটাইটিস বি ও সি এমনকি এইডসের মতো প্রাণঘাতী রোগ ছড়ানোর ঝুঁকি বাড়ে।

এ ব্যাপারে জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ ডা. লেনিন চৌধুরী আরটিভি নিউজকে বলেন, ‘মেডিকেল বর্জ্য এমন একটি বর্জ্য যা থেকে মানুষের রোগ শুধু নয়, নানা ধরনের রোগ হতে পারে। যেমন সংক্রামক ব্যাধি ছড়াতে পারে। এর মধ্যে হেপাটাইসিস, ডিপথেরিয়া, টিউবারক্লোসিস, ডিসেন্ট্রিসহ আরও অনেক অসুখ ছড়াতে পারে। সিরিঞ্জগুলো বাইরে নিয়ে ফেললে এই সিরিজ ব্যবহারে এইডস, হেপাটাইসিস বা ইউনিট্রাসপির ডিজিজ হতে পারে।’

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, রাজধানীর বেশিরভাগ হাসপাতাল চিকিৎসা বর্জ্য ব্যবস্থাপনার শর্ত মানে না। এ ব্যাপারে ২০০৮ সালে একটি আইন করা হলেও তা মানাতে তেমন উদ্যোগ নেই। বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় সিটি করপোরেশন ও বেসরকারি সংস্থা প্রিজমের মধ্যে চুক্তি থাকলেও তার শতভাগ বাস্তবায়ন হয় না।

বেশিরভাগ সরকারি-বেসরকারি হাসপাতাল পরিবেশ অধিদপ্তরের বিধি অনুয়ায়ী চিকিৎসা বর্জ্য ধ্বংস করে না। ফলে কঠিন, তরল ও বায়বীয় চিকিৎসা বর্জ্য সাধারণ বর্জ্যের সঙ্গে মিশে যাচ্ছে। যা মারাত্মক স্বাস্থ্য ঝুঁকি তৈরী করছে।

ডব্লিউএস/পি

মন্তব্য করুন

RTV Drama
RTVPLUS