• ঢাকা বুধবার, ২৪ জুলাই ২০২৪, ৯ শ্রাবণ ১৪৩১
logo
রোহিত-কোহলিদের পাকিস্তানে আনতে আইসিসির দিকে তাকিয়ে পিসিবি
ফার্নান্দেজের বর্ণবাদী কাণ্ডে ফ্রান্সের কাছে ক্ষমা চাইল আর্জেন্টিনা
কোপা আমেরিকার ৪৮তম আসরের ফাইনালে কলম্বিয়াকে হারিয়ে ১৬তম শিরোপা ঘরে তুলেছে আর্জেন্টিনা। এই জয়ের পর ফ্রান্সের ফুটবলারদের নিয়ে অত্যন্ত অপমানজনক ও বর্ণবাদী ভাষা ব্যবহার করে গান গেয়েছিলেন আর্জেন্টিনার মিডফিল্ডার এনজো ফার্নান্দেজ ও তার দুই সতীর্থ।  এরপরই ফ্রান্সকে ‘ঔপনিবেশিক’ ও ‘দ্বিচারী’ রাষ্ট্র বলেছিলেন আর্জেন্টিনার ভাইস প্রেসিডেন্ট ভিক্তোরিয়া ভিয়ারুয়েল। এ ঘটনায় ফ্রান্স সরকারের কাছে ক্ষমা চেয়েছে আর্জেন্টিনা সরকার। আর্জেন্টিনার প্রেসিডেন্ট হাভিয়ের মিলেইয়ের দপ্তর জানিয়েছে, সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইস প্রেসিডেন্ট ভিয়ারুয়েলের বিতর্কিত মন্তব্যের ব্যাপারে ব্যাখ্যা করতে একজন জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তাকে ফরাসি দূতাবাসে পাঠানো হয়েছিল। সেই কর্মকর্তা দূতাবাসকে জানান, ভিয়ারুয়েলের মন্তব্য ছিল একান্ত ব্যক্তিগত। গত ১৫ জুলাই কোপার ফাইনাল ম্যাচ শেষে টিম বাসে করে হোটেলে ফেরার সময় ফরাসি ফুটবলারদের উদ্দেশে বর্ণবাদী মন্তব্য করেন আর্জেন্টাইন ফুটবলাররা। এ সময় আবার ভিডিও লাইভ করেন এনজো ফার্নান্দেজ। ভিডিওটি দ্রুত ছড়িয়ে পড়লে তিনি তীব্র সমালোচনার মুখে পড়েন। অবস্থা বেগতিক দেখে পোস্টটি মুছে ফেলে ক্ষমাও চেয়ে নেন ২৩ বছর বয়সী মিডফিল্ডার। কিন্তু ফার্নান্দেজের বিরুদ্ধে ফিফা ও আর্জেন্টিনা ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনের (এএফএ) কাছে আনুষ্ঠানিক অভিযোগ দিয়ে আইনি ব্যবস্থা নেওয়ার কথাও জানায় ফ্রান্স ফুটবল ফেডারেশন (এফএফএফ)।  এমন পরিস্থিতির মধ্যেই আর্জেন্টিনার ভাইস প্রেসিডেন্ট ভিক্তোরিয়া ভিয়ারুয়েল এনজো ফার্নান্দেজকে সমর্থন জানিয়ে গত বুধবার এক্সে লেখেন, ‘স্টেডিয়ামে সমর্থকদের স্লোগান দেওয়া ও সত্যি বলার জন্য কোনো ঔপনিবেশিক দেশ আমাদের ভয় দেখাতে পারে না। দ্বিচারী দেশের মেকি বিক্ষোভ অনেক সহ্য করেছি।’ ভিয়ারুয়েল এমন এক সময় ফরাসিদের নিয়ে এ ধরনের মন্তব্য করেছেন, যখন আর্জেন্টিনার প্রেসিডেন্ট হাভিয়ের মিলেই প্যারিস অলিম্পিকের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে যোগ দেওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন।  তবে ভিয়ারুয়েলের মন্তব্যে দুই দেশের মধ্যে ভুল-বোঝাবুঝি হবে না বলেই মনে করে আর্জেন্টিনার প্রেসিডেন্টের দপ্তর। এ ব্যাপারে প্রেসিডেন্টের মুখপাত্র মানুয়েল আদোরনি বলেছেন, ‘ফ্রান্সের সঙ্গে আমাদের কূটনৈতিক সম্পর্ক অটুট থাকবে।’ এদিকে এই ঘটনায় জড়িত ছিলেন না আর্জেন্টাইন অধিনায়ক মেসি। তবুও তাকে দলের হয়ে ক্ষমা চাইতে বলেন আর্জেন্টাইন ক্রীড়া কর্মকর্তা জুলিও গারো। সঙ্গে আর্জেন্টিনা ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনের (এএফএ) সভাপতি ক্লদিও তাপিয়াকেও ক্ষমা চাওয়া উচিত বলে মন্তব্য করেন তিনি। গারো বলেছিলেন, জাতীয় দলের অধিনায়কের এর জন্য ক্ষমা চাওয়া উচিত। এএফএ সভাপতিরও ক্ষমা চাওয়া উচিত। আমার মনে হয় এটা ঠিক না। এটা আমাদের দেশকে বাজে পরিস্থিতিতে ফেলেছে। গারোর এই বক্তব্যের পর ফুঁসে ওঠে আর্জেন্টিনার প্রেসিডেন্ট। এরপরই আর্জেন্টিনা সরকারের অফিশিয়াল এক্স অ্যাকাউন্টে পোস্টের মাধ্যমে তাকে বরখাস্তের খবর জানানো হয়।  
সেমিফাইনালের সমীকরণ মেলাতে মালয়েশিয়ার মুখোমুখি বাংলাদেশ
রাত পোহালেই নারী এশিয়া কাপের দামামা শুরু
বোর্ড সভায় বসছে আইসিসি, চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি নিয়ে আসতে পারে যেসব সিদ্ধান্ত 
তরুণদের ঐক্যবদ্ধ হওয়াতে মুগ্ধ সোহান
রিয়াল মাদ্রিদের সঙ্গে চুক্তি নবায়ন মদ্রিচ ও ভাসকেসের
চ্যাম্পিয়ন্স লিগের শিরোপা জয়ের পর গুঞ্জন উঠেছিল লুকা মদ্রিচকে ছেড়ে দিতে যাচ্ছে রিয়াল মাদ্রিদ। তবে ক্রুসের বিদায়ের পর একই সঙ্গে মাঝ মাঠের দুই তারকাকে হারাতে চায় নি স্প্যানিশ জায়ান্টরা। যার ফলে মদ্রিচের সঙ্গে চুক্তি নবায়ন করেছে রিয়াল মাদ্রিদ। সেই তালিকায় রয়েছেন লুকাস ভাসকেসও। নিজেদের অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে দেওয়া এক বিবৃতিতে ভাসকেস ও মদ্রিচের সঙ্গে চুক্তির বিষয়টি নিশ্চিত করেছে রিয়াল মাদ্রিদ।  আরও এক বছর সান্তিয়াগো বার্নাব্যুর দলটিতে থাকবেন মদ্রিচ ও ভাসকেস। চুক্তির মেয়াদ আগামী ২০২৫ সালের ৩০ জুন পর্যন্ত। রিয়ালের সভাপতি ফ্লোরেন্তিনো পেরেজের উপস্থিতিতে আনুষ্ঠানিকভাবে চুক্তি স্বাক্ষর সম্পন্ন হয়। গত মৌসুমে রিয়ালের হয়ে মোট ৪৬ ম্যাচে মাঠে নামেন মদ্রিচ। কোচ কার্লো আনচেলত্তি তরুণদের প্রাধান্য দেওয়ায় শুরুর একাদশে খুব একটা সুযোগ মেলেনি। এরপরও লা লিগা ও চ্যাম্পিয়ন্স লিগের শিরোপা জয়ে তার ছিল দারুণ ভূমিকা। যখনই সুযোগ পেয়েছেন, নিজেকে প্রমাণের চেষ্টা করেছেন। এর আগে ২০১২ সালে রিয়াল মাদ্রিদে যোগ দেন মদ্রিচ। টটেনহাম থেকে লস ব্লাঙ্কোস শিবিরে এসে ক্লাব ফুটবলের সম্ভাব্য সব ট্রফিই জিতেছেন তিনি। গত ১২ মৌসুমে ৬টি চ্যাম্পিয়নস লিগ, ৪টি লা লিগাসহ মোট ২৬ ট্রফি জিতেছেন।  ব্যক্তিগত সেরা পুরস্কারটিও রিয়ালের হয়েই জিতেছেন। রিয়ালের হয়ে সব প্রতিযোগিতা মিলিয়ে মাঠে নেমেছেন ৫৩৪ ম্যাচে। তিনি গোল করেছেন ৩৯টি। স্বপ্নের ক্লাব রিয়াল থেকেই ফুটবলকে চিরতরে বিদায় জানাতে চান তিনি। অন্যদিকে আরেক তারকা ফুটবলারের সঙ্গেও চুক্তি বাঁড়িয়েছে লুকাস ভাসকেস। মদ্রিচের মতো লুকাসেরও চুক্তির মেয়াদ আগামী ২০২৫ সালের ৩০ জুন পর্যন্ত। ২০০৭ সালে রিয়াল মাদ্রিদের যোগ দেন এই স্প্যানিশ ফুটবলার। ২০১৪ সালে মূল দলে সুযোগ পান তিনি। এই নয় বছরে রিয়াল মাদ্রিদের হয়ে মোট ২১টি শিরোপা জিতেছেন লুকাস ভাসকেস। যার মধ্যে ৫টি চ্যাম্পিয়ন্স লিগ, ৪টি ক্লাব বিশ্বকাপ, ৩টি ইউরোপিয়ান সুপার কাপ, ৪টি লা লিগা শিরোপা, ১টি কোপা দেল রে এবং ৪টি স্প্যানিশ সুপার কাপ। ৩৪৯টি ম্যাচ খেলে ৩৬টি গোল করেছেন তিনি। 
আর্জেন্টাইন ফুটবলারদের বিরুদ্ধে ফিফার তদন্ত শুরু 
কোপা আমেরিকার ৪৮তম আসরের ফাইনালে কলম্বিয়াকে হারিয়ে ১৬তম শিরোপা ঘরে তুলেছে আর্জেন্টিনা। টানা দুটি শিরোপা ঘরে তুলে নিয়েও স্বস্তি নেই আর্জেন্টাইন শিবিরে। এনজো ফার্নান্দেজের বর্ণবাদী আচরণের ভিডিও প্রকাশের পর বেশ অস্বস্তিতে দেশটির ফুটবল ফেডারেশন। বিষয়টি নিয়ে এবার তদন্ত শুরু করেছে ফুটবলের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থা (ফিফা)। বৃহস্পতিবার (১৮ জুলাই) ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্সের প্রতিবেদন অনুযায়ী, এরই মধ্যে বিষয়টি খতিয়ে দেখছে ফিফা। আর অভিযোগ প্রমাণিত হলে কঠিন শাস্তির মুখে পড়তে হতে পারে ফার্নান্দেজকে। এই বিষয়ে ফিফার এক মুখপাত্র জানিয়েছেন, সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে ভিডিও সম্পর্কে ফিফা অবগত এবং ঘটনাটি খতিয়ে দেখা হচ্ছে। খেলোয়াড়, ভক্ত কিংবা অফিশিয়াল দ্বারা যে কোনও ধরনের বৈষম্যে ফিফা তীব্র নিন্দা জানায়। গত রোববার কোপার ফাইনাল ম্যাচ শেষে টিম বাসে করে হোটেলে ফেরার সময় ফরাসি ফুটবলারদের উদ্দেশে বর্ণবাদী মন্তব্য করেন আর্জেন্টাইন ফুটবলাররা। এ সময় আবার ভিডিও লাইভ করেন এনজো ফার্নান্দেজ। যদিও এক সতীর্থের কথায় মাঝপথেই সেই ভিডিও বন্ধ করে দেন তিনি। ফার্নান্দেজের সঙ্গে সেখানে গান করছিলেন ওতামেন্ডিও। এই বিষয়টি নিয়ে পরে অনুতপ্ত হয়ে ক্ষমা চেয়েছেন ফার্নান্দেজ। তবে আর্জেন্টিনা ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনের পক্ষ থেকে কোনো মন্তব্য করার খবর পাওয়া যায়নি। এই ঘটনায় জড়িত ছিলেন না আর্জেন্টাইন অধিনায়ক মেসি। তবুও তাকে দলের হয়ে ক্ষমা চাইতে বলেন আর্জেন্টাইন ক্রীড়া কর্মকর্তা জুলিও গারো। সঙ্গে আর্জেন্টিনা ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনের (এএফএ) সভাপতি ক্লদিও তাপিয়াকেও ক্ষমা চাওয়া উচিত বলে মন্তব্য করেন তিনি। গারোর এই বক্তব্যের পর ফুঁসে ওঠে আর্জেন্টিনার প্রেসিডেন্ট। এরপরই আর্জেন্টিনা সরকারের অফিশিয়াল এক্স অ্যাকাউন্টে পোস্টের মাধ্যমে তাকে বরখাস্তের খবর জানানো হয়।
এবার শিক্ষার্থীদের পাশে দাঁড়ালেন ক্রিকেটারদের স্ত্রীরা
দেশজুড়ে চলমান কোটা সংস্কার আন্দোলন এবং অস্থিরতা নিয়ে প্রতিক্রিয়া জানিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে বার্তা দিয়েছিলেন ক্রিকেটাররা। এবার সেই তালিকায় যুক্ত হয়েছেন ক্রিকেটারদের স্ত্রীরাও। বৃহস্পতিবার (১৮ জুলাই) নিজেদের ভেরিফায়েড ফেসবুক অ্যাকাউন্টে মুশফিকুর রহিম, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, মেহেদী হাসান মিরাজ এবং নাজমুল হোসেন শান্তর স্ত্রী আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে বার্তা দিয়েছেন। দুটি প্রার্থনার ইমোজি দিয়ে মুশফিকের স্ত্রী জান্নাতুল কেফায়েত মিষ্টি লিখেছেন, পাখির মতো মানুষ মারা হচ্ছে, এ কেমন দেশ! আল্লাহ আপনি একমাত্র উত্তম পরিকল্পনাকারী, সাহায্যকারী। সব সন্তানদের তাদের বাবা-মায়ের কাছে ফিরিয়ে দিন। মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের স্ত্রী জান্নাতুল কাওসার মিষ্টি কোটা আন্দোলনের সমর্থনে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে বহুল ব্যবহৃত হ্যাশট্যাগগুলো পোস্ট করেছেন। এ ছাড়াও মিরাজের স্ত্রী রাবেয়া প্রীতি একটি ছবি শেয়ার করেছেন। যেখানে চলমান কোটা আন্দোলনে নিহত বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র আবু সাঈদের বাবার একটি মন্তব্য লেখা। যেখানে তিনি আর্তনাদ করে বলেছিলেন, ‘আর কে চাল কিনে দেবে? টিউশনের টাকা না পাঠালে তো বাসায় না খেয়ে থাকতে হতো।’ অন্যদিকে বাংলাদেশ জাতীয় দলের তিন ফরম্যাটের অধিনায়ক শান্ত’র স্ত্রী সাবরিনা সুলতানা রত্না একটি ছবি শেয়ার দিয়েছেন। যেখানে লেখা ‘সেভ আওয়ার স্টুডেন্টস।’ উল্লেখ্য, কোটা সংস্কার আন্দোলন নিয়ে গত কয়েকদিন ধরে দেশজুড়ে উত্তাল পরিস্থিতি বিরাজ করছে। পাবলিক-প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয় থেকে শুরু করে প্রায় প্রতিটি জেলায় আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের সঙ্গে সংঘর্ষ হয়েছে পুলিশ ও সরকারী অঙ্গ সংগঠনগুলোর।  যদিও এসব সংঘাতে নিহত ও আহতের সুস্পষ্ট সংখ্যা জানা যাচ্ছে না। এখন পর্যন্ত কমপক্ষে ৬ জন নিহতের খবর পাওয়া গেছে। 
ইংল্যান্ড দলের নতুন দায়িত্বে অ্যান্ডারসন
কয়েক দিন আগেই দীর্ঘ দুই দশকেরও বেশি সময়ের টেস্ট ক্যারিয়ারের ইতি টেনেছেন ইংলিশ পেসার জেমস অ্যান্ডারসন। অবসর নিলেও তার অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগাতে চায় ইংল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ড। তাই দলের বোলিং মেন্টর হিসেবে অ্যান্ডারসনকে নিয়োগ দিয়েছে তারা। অ্যান্ডারসনের নতুন এই ভূমিকা নিয়ে উচ্ছ্বসিত ইংল্যান্ডের টেস্ট অধিনায়ক বেন স্টোকস। তার মতে দলের নতুনরা অ্যান্ডারসনের থেকে শিখতে মরিয়া হয়ে আছে। স্টোকস বলেছেন, শেষ কিছু দিন খুব ভালো ছিল। আপনার দেখতে পেয়েছেন, ছেলেরা তার কাছ থেকে শিখতে মরিয়া ছিল। অবশ্যই আগে এটা কিছুটা আলাদা ছিল। জিমি তার খেলার প্রস্তুতি নিতে ব্যস্ত থাকতো, তাকে তার কাজটা করতে দিয়ে যতটুকু সম্ভব তার কাছ থেকে নেওয়া যেত।   ‘কিন্তু এখন সে দাঁড়িয়ে থাকে, ছেলেরা তার কাছে দৌড়ে গিয়ে ভাবনাটুকু নিতে চায়, কীভাবে সে কিছু বল করতো সেটা বুঝতে চায়। অবশ্যই পালাবদলটা খুব ভালো হয়েছে। তবে এটা তবে বটেই, জিমির বিদায় কিছুটা আবেগের বিষয় ছিল। ’ ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে প্রথম টেস্টের একাদশে ছিলেন অ্যান্ডারসন। সেখান থেকেই অবসরে যান তিনি। তবে বাকি দুই ম্যাচে মাঠে না থাকলেও পিছন থেকে ইংল্যান্ডের বোলিং আক্রমণ সাজাবেন এই তারকা পেসার। বৃহস্পতিবার থেকে শুরু হবে ইংল্যান্ড-ওয়েস্ট ইন্ডিজের দ্বিতীয় টেস্ট ম্যাচ। এই ম্যাচের দলে ইতোমধ্যেই জায়গা করে নিয়েছেন মার্ক উড। অ্যান্ডারসনের জায়গায় তাকে নেওয়া হয়েছে।
মেসিকে ক্ষমা চাইতে বলায় চাকরি হারালেন ক্রীড়া কর্মকর্তা 
টানা দ্বিতীয় কোপা জয়ের পর আর্জেন্টাইন মিডফিল্ডার ফার্নান্দেজের সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে পোস্ট করা এক লাইভ ভিডিওতে ফ্রান্সকে নিয়ে একটি বর্ণবাদী গানে অভিনয় করেন তিনিসহ কয়েকজন ফুটবলার। সতীর্থদের এমন আচরণের জন্য মেসিকে ক্ষমা চাইতে বলায় এক আর্জেন্টাইন ক্রীড়া কর্মকর্তা বরখাস্ত হয়েছেন। গত রোববার কোপার ফাইনাল ম্যাচ শেষে টিম বাসে করে হোটেলে ফেরার সময় ফরাসি ফুটবলারদের উদ্দেশে বর্ণবাদী মন্তব্য করেন আর্জেন্টাইন ফুটবলাররা। এ সময় আবার ভিডিও লাইভ করেন এনজো ফার্নান্দেজ।  যদিও এক সতীর্থের কথায় মাঝপথেই সেই ভিডিও বন্ধ করে দেন তিনি। ফার্নান্দেজের সঙ্গে সেখানে গান করছিলেন ওতামেন্ডিও। এই বিষয়টি নিয়ে পরে অনুতপ্ত হয়ে ক্ষমা চেয়েছেন ফার্নান্দেজ। তবে আর্জেন্টিনা ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনের পক্ষ থেকে কোনো মন্তব্য করার খবর পাওয়া যায়নি। এই ঘটনায় জড়িত ছিলেন না আর্জেন্টাইন অধিনায়ক মেসি। তবুও তাকে দলের হয়ে ক্ষমা চাইতে বলেন আর্জেন্টাইন ক্রীড়া কর্মকর্তা জুলিও গারো। সঙ্গে আর্জেন্টিনা ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনের (এএফএ) সভাপতি ক্লদিও তাপিয়াকেও ক্ষমা চাওয়া উচিত বলে মন্তব্য করেন তিনি।  গারো বলেছিলেন, জাতীয় দলের অধিনায়কের এর জন্য ক্ষমা চাওয়া উচিত। এএফএ সভাপতিরও ক্ষমা চাওয়া উচিত। আমার মনে হয় এটা ঠিক না। এটা আমাদের দেশকে বাজে পরিস্থিতিতে ফেলেছে। গারোর এই বক্তব্যের পর ফুঁসে ওঠে আর্জেন্টিনার প্রেসিডেন্ট। এরপরই আর্জেন্টিনা সরকারের অফিশিয়াল এক্স অ্যাকাউন্টে পোস্টের মাধ্যমে তাকে বরখাস্তের খবর জানানো হয়। পোস্টে লেখা হয়, প্রেসিডেন্ট অফিস জানাচ্ছে যে বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন, টানা দুইবার কোপা আমেরিকা চ্যাম্পিয়ন আর্জেন্টিনা জাতীয় দল কিংবা কোনো নাগরিক কী ভাববে, কী করবে, সেটা কোনো সরকার বলতে পারে না। এ কারণে জুলিও গারো আর্জেন্টিনার আন্ডার সেক্রেটারি অব স্পোর্টসের দায়িত্বে আর থাকছেন না। এর আগে, ২০২২ বিশ্বকাপের ফাইনালে ফ্রান্সকে হারানোর পর ফরাসি স্ট্রাইকার কিলিয়ান এমবাপ্পেকে লক্ষ্য করে বর্ণবাদী গান বানিয়েছিলেন আর্জেন্টাইন সমর্থকেরা। কোপা জয়ের পর সেই গানেই ফার্নান্দেজসহ অন্যদের সুর মিলাতে দেখা যায়। এতে অসন্তুষ্ট হয়ে আর্জেন্টিনার কোপা আমেরিকাজয়ী দলের সদস্যদের বর্ণবাদী আচরণের জন্য আর্জেন্টাইন ফুটবল ফেডারেশনকে চিঠি দেবে, ফ্রান্সের ফুটবল ফেডারেশন। সেইসঙ্গে ফিফার কাছে অভিযোগ জানাতে যাচ্ছে, ফ্রান্সের ফুটবল নিয়ন্ত্রক সংস্থা।
হৃদয়-মোস্তাফিজরা বাদ, প্লে-অফে শরিফুল ও তাসকিনের দল
লঙ্কা প্রিমিয়ার লিগে (এলপিএল) ৫ ম্যাচ পর খেলতে নেমে রানের খাতা খোলার আগেই প্যাভিলিয়নে ফেরেন বাংলাদেশের ব্যাটার তাওহীদ হৃদয়। লিগ পর্বে শেষ ম্যাচে কলম্বো স্ট্রাইকার্সের বিপক্ষে খেলতে নেমে শূন্য রানেই ফেরেন হৃদয়। তবে এই ম্যাচে ২৮ রানে জয় পায় ডাম্বুলা। মঙ্গলবার (১৬ জুলাই) রাতে কলম্বোতে টস হেরে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে সবকটি হারিয়ে ১২৩ রানে অলআউট হয় ডাম্বুলা সিক্সার্স। দলের হয়ে ৩৩ বলে সর্বোচ্চ ৪০ রান করেন অধিনায়ক মোহাম্মদ নবি। পাঁচ নম্বরে নেমে ৩ বল খেলে শূন্যতে ফেরেন হৃদয়। টুর্নামেন্টে প্রথম দুই ম্যাচের একটিতে ব্যাট করে মাত্র ১ রান করেছিলেন হৃদয়। তবে সহজ টার্গেট স্পর্শ করতে পারেনি কলম্বো স্ট্রাইকার্স। ১৮ দশমিক ১ ওভারে ৯৫ রানে অলআউট হয় কলম্বো। সর্বোচ্চ ৩০ রান করেন অধিনায়ক থিসারা পেরেরা। এতে ৮ ম্যাচে ৩ জয় ও ৫ হারে ৬ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের তলানিতে থাকায় প্লে-অফে খেলার আশা শেষ হয়ে গেছে ডাম্বুলার। এদিকে সমান ম্যাচে ডাম্বুলার সমান ৩ জয়ে নেট রানরেটে এগিয়ে থেকে প্লে-অফ নিশ্চিত করেছে শরিফুল ইসলামের ক্যান্ডি ফ্যালকনস। আরেক বাংলাদেশি ক্রিকেটার তাসকিন আহমেদের দলও শেষ চারে উঠেছে। ৮ ম্যাচে ৪ জয়ে ০ দশমিক ৫৮৩ নেট রানরেট নিয়ে তিনে কলম্বো স্ট্রাইকার্স।
না ফেরার দেশে স্বর্ণজয়ী শুটার আতিকুর
দীর্ঘদিন ক্যানসারের সঙ্গে লড়াই করে অবশেষে হেরে গেলেন কমনওয়েলথে স্বর্ণজয়ী প্রথম বাংলাদেশি শুটার আতিকুর রহমান (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৫৯ বছর।  বুধবার (১৭ জুলাই) অসুস্থ বোধ করলে তাকে রাজধানীর একটি হাসপাতালে যাওয়া হয়। সেখানে ডাক্তাররা তাকে মৃত ঘোষণা করেন।  ২০১৪ সাল থেকে ক্যানসারের সঙ্গে লড়াই করে যাচ্ছিলেন আতিকুর। ১৯৯০ কমনওয়েলথ গেমসে স্বর্ণজয়ী এই শুটার পরবর্তী সাফ গেমসের একাধিক স্বর্ণ জিতেছিলেন। খেলা চালিয়ে যাওয়ার পাশাপাশি কোচিং পেশায়ও নিজেকে নিয়োজিত রেখেছিলেন আতিকুর। তার মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছে বিভিন্ন ক্রীড়া ফেডারেশন ও অলিম্পিক অ্যাসোসিয়েশন।