• ঢাকা বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪, ৪ বৈশাখ ১৪৩১
logo
বাবা হচ্ছেন ‘সুপারম্যান’
আম্বানির মেয়ের বাড়ি কিনে নিলেন গায়িকা জেনিফার লোপেজ!
এশিয়ার সবচেয়ে ধনী ব্যক্তি মুকেশ আম্বানির মেয়ে ঈশা আম্বানির প্রিয় বাড়িটি বেশ চড়ামূল্যে বিক্রি করে দিয়েছেন মুকেশ আম্বানি। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের লস এঞ্জেলসে অবস্থিত এই বিলাশবহুল বাড়িটি। এটি কিনে নিয়েছেন মার্কিন গায়িকা জেনিফার লোপেজ। এশিয়ার সবচেয়ে ধনী ব্যক্তির মেয়ের এই বাড়িটি প্রায় ৩৮ হাজার স্কয়ার ফিটের উপর নির্মিত। এই বাড়িতে রয়েছে ১২টি বেডরুম, রয়েছে ২৪টি বাথরুম। অন্দরসজ্জা দেখলে চোখে–ঝিলমিল লেগে যাবে।  এখানেই শেষ নয়, জিম থেকে শুরু করে, স্পা, স্যালন–কী নেই সেখানে? রয়েছে ব্যাডমিন্টন খেলার কোর্টও। এত সভ কিছু কিনতে গায়িকাকে খরচ করতে হয়েছে ৫০৮ কোটি ৫৭ লাখ ৮৬ হাজার ৫৫০ টাকা। বেন অ্যাফ্লেককে নিয়ে লোপেজ এখন এই বাড়িতে বসবাস করবেন। যদিও আম্বানি পরিবারের পক্ষ থেকে এখনও এ নিয়ে কোনো মন্তব্য করা হয়নি। জেনিফার লোপেজ, তার ভক্তরা স্নেহের সাথে জেএলও নামে ডাকেন, একজন আমেরিকান গায়ক, অভিনেত্রী এবং নৃত্যশিল্পী। গায়িকাকে প্রায়শই 'নৃত্যের রাণী' হিসাবে চিহ্নিত করা হয় এবং তার শৈল্পিক ক্ষমতা এবং ফ্যাশন পছন্দের জন্য একটি বিশাল ফ্যান বেস রয়েছে। ডিভা দুইবারের একাডেমি পুরস্কার বিজয়ী এবং প্রশংসিত চলচ্চিত্র নির্মাতা বেন অ্যাফ্লেককে বিয়ে করেছেন। ফ্যান পেজটি জানিয়েছে যে, ইশা আম্বানি তার গর্ভাবস্থার বেশিরভাগ সময় তার মা নীতা আম্বানির সাথে সেই বাড়িতে কাটিয়েছেন।
টাইটানিকের সেই দরজা নিলামে যত টাকায় বিক্রি হলো
সাতজন পুরুষকে আটবার বিয়ে করেন যে অভিনেত্রী
কোরআন পড়ে মুগ্ধ হয়ে যা জানালেন উইল স্মিথ
ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করলেন জনপ্রিয় মার্কিন র‍্যাপার লিল জন
যৌন নির্যাতনের অভিযোগে দোষী সাব্যস্ত 'স্কুইড গেম' অভিনেতা
যৌন নিপীড়নের অভিযোগে দোষী সাব্যস্ত হলেন ৭৯ বছর বয়সী ‘স্কুইড গেম’ অভিনেতা ও ইয়াং সু। দক্ষিণ কোরিয়ার একটি জনপ্রিয় সিরিজ হলো ‘স্কুইড গেম’। এই সিরিজেই একটি গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে দেখা যায় ইয়াং সু-কে। ২০১৭ সালে তার বিরুদ্ধে যৌন হেনস্থার অভিযোগ ওঠে। হিন্দুস্তান টাইমসের খবরে বলা হয়েছে, শুক্রবার (১৫ মার্চ) সিউলের সেওংনাম আদালত ও ইয়াং সু-কে দোষী সাব্যস্ত করে রায় দিয়েছেন। অভিনেতাকে ৮ মাসের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। সঙ্গে যৌন হয়রানির বিষয়ে ৪০ ঘণ্টার বিশেষ ক্লাসে অংশ নেয়ার নির্দেশ দেয়া হয়েছে প্রবীণ এ অভিনেতাকে। তবে আদালতের রায়ে দোষী প্রমাণিত হলেও অভিযোগ অস্বীকার করেছেন ও ইয়াং-সু। উচ্চ আদালতে আপিলের সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছেন তিনি। ২০১৭ সালে ও ইয়াং সু’র বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ আনেন এক অভিনেত্রী। তার অভিযোগ ছিল, ও ইয়াং-সু তাকে জোর করে জড়িয়ে ধরেন, তার হাত ধরেন ও গালে চুমু খান। প্রসঙ্গত, ২০২১ সালে নেটফ্লিক্সে প্রচারিত ‘স্কুইড গেম’ সিরিজে ও ইল-নাম চরিত্রে অভিনয় করে বিশ্বজুড়ে পরিচিতি পান ও ইয়াং-সু। এই সিরিজের জন্য ২০২২ সালে সেরা পার্শ্ব অভিনেতা হিসাবে গোল্ডেন গ্লোব পুরস্কার জিতে নিয়েছিলেন ৭৯ বছর বয়সী এই অভিনেতা। প্রায় তিন বছর পর ‘স্কুইড গেম’ সিরিজের দ্বিতীয় সিজন আসতে চলেছে।
সোমালিয়ান জলদস্যুদের নিয়ে যত চলচ্চিত্র
ইতালির উপনিবেশ থেকে বেরিয়ে সোমালিয়ার জন্ম ১৯৬০ সালে। আফ্রিকার সুইজারল্যান্ড নামে পরিচিত ছিল সোমালিয়া। কিন্তু আজ সোমালিয়া এক বিভীষিকার নাম। দেশটির নাম শুনলেই সবার চোখে ভাসে যুদ্ধবিগ্রহ আর জলদস্যুদের কথা। বিদেশি মাছ ধরা নৌযানের উপস্থিতি ক্রমশ বাড়তে থাকলে স্থানীয় জেলেরা ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে দস্যুবৃত্তির দিকে ঝুঁকে পড়ে। ২০০৫ সালের পর থেকে সোমালিয়ান জলদস্যুরা সংঘবদ্ধ হয়ে বৃহৎ পরিসরে আক্রমণ শুরু করে। সমুদ্র বিষয়ে পর্যাপ্ত জ্ঞান ও দক্ষতার কারণে তারা কেবল ক্ষিপ্রগতিতেই নয় বরং আধুনিক অস্ত্রশস্ত্রে সজ্জিত হয়ে হানা দেয়। যা তাদের দস্যুবৃত্তিতে অনেকটাই এগিয়ে নিয়েছে। আক্রমণের সময় হিসেবে তারা মূলত রাত কিংবা ভোরের দিকটাকেই বেছে নেয়। জলদস্যুরা বড় জাহাজগুলোর কাছে পৌঁছাতে ছোট ছোট মোটর চালিত নৌকা ব্যবহার করত। যা দ্রুত গতির পাশাপাশি বড় জাহাজের রাডারে সহজে ধরা পড়ে না। ভারত মহাসাগরে দুবাই যাওয়ার পথে মঙ্গলবার (১২ মার্চ) সোমালিয়ান জলদস্যুদের কবলে পড়েছে বাংলাদেশের পতাকাবাহী জাহাজ এমভি আবদুল্লাহ। জাহাজে থাকা ২৩ নাবিক ও ক্রুকে জিম্মি করেছে জলদস্যুরা। সোমালিয়ার জলদস্যুদের জানতে তৈরি করা হয়েছে পাঁচ সিনেমা। বেশির ভাগ সিনেমা সত্য ঘটনা অবলম্বনে নির্মিত হয়েছে। আ হাইজ্যাকিং ডেনমার্কের একটি কার্গো জাহাজ ছিনতাইয়ের ঘটনা অবলম্বনে নির্মিত ড্যানিশ সিনেমাটি মুক্তি পায় ২০১২ সালের ২০ সেপ্টেম্বর। এতে কার্গো জাহাজের মালিক ও জলদস্যুদের সঙ্গে আলোচনাকে নাটকীয়ভাবে তুলে ধরা হয়েছে। স্টোলেন সিস  ২০০৮ সালের ৭ নভেম্বর ড্যানিশ জাহাজ এমভি সিইসি ফিউচার ছিনতাইয়ে ঘটনা বিশ্বজুড়ে আলোচিত হয়েছিল। এই সত্য ঘটনা অবলম্বনে নির্মিত প্রামাণ্যচিত্রটি ২০১২ সালে মুক্তি পেয়েছে। ফিশিং উইদাউট নেটস এ সিনেমায় জলদস্যুদের জীবনকে পর্দায় তুলে এনেছেন যুক্তরাষ্ট্রের নির্মাতা কাটলার হডিয়র্ন। সোমালিয়ার জেলেদের কীভাবে জলদস্যুতায় বাধ্য করা হয়, সেই গল্প তুলে আনা হয়েছে। ক্যাপ্টেন ফিলিপস  ড্যানিশ ও যুক্তরাষ্ট্রের কার্গো জাহাজ মারস্ক অ্যালবামা ২০০৯ সালের ৭ এপ্রিলে ছিনতাই করেছিল সোমালিয়ার জলদস্যুরা। জাহাজটির ক্যাপ্টেন ছিলেন রিচার্ড ফিলিপস। জিম্মি অবস্থায় দুর্বিষহ অভিজ্ঞতার মুখোমুখি হয়েছিলেন ফিলিপস; সেই ঘটনা অবলম্বনেই নির্মিত সিনেমাটি মুক্তি পেয়েছে ২০১৩ সালের অক্টোবরে। দ্য প্রজেক্ট যুক্তরাষ্ট্রের সাংবাদিক অ্যাডাম চারলস্কি প্রামাণ্যচিত্রটি নির্মাণ করেছেন। সোমালিয়ার জলদস্যুতা শিপিং বিশ্বকে কতটা হুমকিতে ফেলছে; এটিকে মোকাবিলা করতে কী করা যায়—এসব নিয়ে নির্মিত হয়েছে।
ক্যানসারে আক্রান্ত ‘এক্স-মেন’ অভিনেত্রী অলিভিয়া
ক্যানসারে আক্রান্ত ‘এক্স-মেন’ খ্যাত অভিনেত্রী অলিভিয়া মুন। গেল ১০ মাসে তার ৪টি অস্ত্রোপচার হয়েছে। তবে বিষয়টি এতদিন গোপন রেখেছেন তিনি। ১১ মার্চ লস অ্যাঞ্জেলেসের ডলবি থিয়েটার হলে ৯৬তম অ্যাকাডেমি অ্যাওয়ার্ডসের আসর হাজির হয়েছিলেন অলিভিয়া। সেখানেও বিষয়টি নিয়ে কোনো কথা বলেননি এই অভিনেত্রী। অবশেষে গতকাল বুধবার অলিভিয়া তার ইনস্টাগ্রাম পোস্টে ক্যানসার আক্রান্ত হওয়ার খবর জানান। হাসপাতালে তোলা ছবি শেয়ার করে ‘আয়রন ম্যান টু’খ্যাত অভিনেত্রী লিখেছেন, ‘২০২৩ সালের ফেব্রুয়ারিতে একটি জেনেটিক পরীক্ষা করিয়েছিলাম, যাতে ৯০টি ভিন্ন ভিন্ন ক্যানসারের পরীক্ষা করানো হয়। এর দুই মাস পর আমার ব্রেস্ট ক্যানসার শনাক্ত হয়।’ অলিভিয়া এখন ক্যানসারমুক্ত। কিন্তু কঠিন সেই সময়ের স্মৃতি হাতড়ে ৪৩ বছর বয়সী এই অভিনেত্রী লিখেছেন, ‘আমার উভয় স্তনে লুমিনাল বি ক্যানসার ছিল। লুমিনাল বি আক্রমণাত্মক এবং দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে। গত ১০ মাসে আমার ৪টি অস্ত্রোপচার হয়েছে। আমি বহুদিন বিছানায় কাটিয়েছি। এ সময়ে আমি ক্যানসার ও তার চিকিৎসা বিষয়ে অনেক কিছু শিখেছি।’ প্রসঙ্গত, ২০১০ সালে মুক্তি পায় ‘আয়রন ম্যান টু’ সিনেমা। এতে চেজ রবার্টস চরিত্রে অভিনয় করেন অলিভিয়া। ২০১৬ সালে মুক্তি পায় ‘এক্স-মেন: অ্যাপোক্যালিপস’। এতে সাইলক চরিত্রে অভিনয় করেন তিনি। অলিভিয়া অভিনীত সর্বশেষ মুক্তিপ্রাপ্ত সিনেমা ‘দ্য গেটওয়ে’। ২০২১ সালের ৩ সেপ্টেম্বর মুক্তি পায় এটি।
সিলিকন ভ্যালি উৎসবে বাংলাদেশের তরুণ নির্মাতা সিজু
বাংলাদেশী নির্মাতা শাহনেওয়াজ খান সিজু, গেল ৮ মার্চ স্থানীয় সময় বিকেল ৪:৪৫ এ আমেরিকার ক্যালিফোর্নিয়া রাজ্যের স্যান হোসে শহরের হ্যামার থিয়েটার সেন্টারে ইউএস প্রিমিয়ার হলো তার নির্মিত ওয়ান শট মুভি 'নট আ ফিকশন'-এর। অস্কার কোয়ালিফাইং উৎসব সিনেকুয়েস্ট ফিল্ম এন্ড ভিআর ফেস্টিভ্যালে নিজের প্রথম স্বল্পদৈর্ঘ্য সিনেমার প্রদর্শনী শেষে সঞ্চালকের আমন্ত্রণে মঞ্চে ওঠেন নির্মাতা সিজু। এর পর সঞ্চালকের প্রশ্নের জবাবে সিনেমা নিয়ে কথা বলা শেষে পুরো হল ভর্তি দর্শকদের সামনে বাংলাদেশের লাল সবুজ পতাকা মেলে ধরেন তিনি। এই ঘটনার পরে কানাডা, মেক্সিকো, চীন, কলম্বিয়া, ইতালি, সাউথ কোরিয়া-সহ নানান দেশ থেকে আসা নির্মাতা, কলাকুশলী এবং মার্কিন দর্শকদের করতালিতে মুখর হয়ে ওঠে পুরো থিয়েটার। এরপর দেশের প্রখ্যাত নির্মাতা মোস্তফা সরয়ার ফারুকীর সাথে সহকারী পরিচালক হিসেবে কাজের সুযোগ পাবার পরে ছবিটির কাজ আবারও শুরু করেন তিনি। ছবিয়ালে যুক্ত হবার পরে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরষ্কার বিজয়ী সাউন্ড ডিজাইনার রিপন নাথ এবং রনি সাজ্জাদ যুক্ত হন এই ছবির সঙ্গে এবং বিনামূল্যেই করেন পুরো ছবির কাজটি। এ ছাড়া এডিট এর কাজ করেন লিওন রোজারিও এবং কালার করেন রাশেদুজ্জামান সোহাগ। সিলিকন ভ্যালির প্রাণকেন্দ্রে চলমান এই উৎসবের বেস্ট ড্রামাটিক শর্টস বিভাগে নট আ ফিকশন এর প্রিমিয়ারের শো এর পরে সবাই বেশ আগ্রহী হয়ে উঠেছেন ছবিটি নিয়ে। আগামী ১৭ মার্চ রাত ৯ টায় শহরের প্রাণকেন্দ্রে অবস্থিত ক্যালিফোর্নিয়া থিয়েটার সেন্টারর উৎসবের পুরষ্কার বিতরণী অনুষ্ঠানটি আয়োজিত হতে যাচ্ছে। এই উৎসবে বেস্ট ড্রামাটিক শর্টস বিভাগে পুরষ্কার পেলে ছবিটি সরাসরি কোয়ালিফাই করবে পৃথিবীর সবচাইতে বড় উৎসব অস্কারে। প্রসঙ্গত, সিজুর সঙ্গে এই ছবির সহ-প্রযোজক হিসেবে কাজ করছেন প্রখ্যাত চিত্রনাট্যকার, সাংবাদিক এবং গোল্ডেন গ্লোবসের সম্মানিত ভোটার সাদিয়া খালিদ রীতি।
অস্কার আসরে তালি দিয়ে ভাইরাল অভিনেতা কুকুর
যুক্তরাষ্ট্রের লস অ্যাঞ্জেলসের ডলবি থিয়েটারে জমকালো আয়োজনে অস্কারের ৯৬তম আসরে বিজয়ীদের নাম ঘোষণা করা হয়েছে। বাংলাদেশের স্থানীয় সময় সোমবার (১১ মার্চ) ভোরে এবারের অস্কার আসরের সেরা সিনেমা হিসেবে পুরস্কার জিতেছে ‘ওপেনহাইমার’। এদিকে দর্শক সারিতে বসা অতিথিরা। তাদের পাশের চেয়ারে বসা একটি কুকুর। ‘বার্বি’ তারকা রায়ান গসলিংসহ অতিথিরা যখন হাততালি দিচ্ছেন, তখন কুকুরটিও সামনের দু-পা দিয়ে সমভাবে তালি দিচ্ছে। নেট দুনিয়ায় ছড়িয়ে পড়া একটি ভিডিওতে এমন দৃশ্য দেখা যায়। যা রীতিমতো নজর কেড়েছে নেটিজেনদের।  ডেইলি মেইলের তথ্য অনুসারে, ৯৬তম অ্যাকাডেমি অ্যাওয়ার্ডসে সেরা মৌলিক চিত্রনাট্য বিভাগে পুরস্কার লাভ করেছে ‘অ্যানাটমি অব আ ফল’ সিনেমা। এতে স্নুপ চরিত্রে অভিনয় করে কুকুরটি। প্রতিভাবান এ কুকুরের নাম মেসি। মেসি নামে কুকুরটির প্রশিক্ষণ দিয়েছেন লারা নামে এক নারী। কুকুরটি নিয়ে গত বছর মুখ খুলেছিলেন তিনি। ওই সময়ে লারা জানিয়েছিলেন, কান চলচ্চিত্র উৎসব থেকে নজর কাড়তে শুরু করে মেসি।   রহস্যজনকভাবে একজন মারা যান। ঘটনা নিয়ে শুরু হয় তদন্ত। প্রশ্ন উঠে, এটা কি হত্যাকাণ্ড? ঘটনার বেশ কিছু সূত্র পাওয়া যায়। সেই সূত্রগুলো নিহত ব্যক্তির লেখিকা স্ত্রীর দিকে সন্দেহ বাড়িয়ে দেয়। এমন গল্প নিয়ে তৈরি হয়েছে ‘অ্যানাটমি অব আ ফল’ সিনেমা। এটি নির্মাণ করেছেন জাস্টিন ট্রিট। সিনেমাটি মুক্তির পর সমালোচকদের অনেকে দাবি করেছিলেন, কুকুরটি অস্কার পুরস্কার পাওয়ার যোগ্য। যদিও তা হয়নি।
যাদের হাতে উঠল ৯৬তম অস্কার পুরস্কার
যুক্তরাষ্ট্রের লস অ্যাঞ্জেলসের ডলবি থিয়েটারে জমকালো আয়োজনে অস্কারের ৯৬তম আসরে বিজয়ীদের নাম ঘোষণা করা হয়েছে। বাংলাদেশের স্থানীয় সময় সোমবার (১১ মার্চ) ভোরে এবারের অস্কার আসরের সেরা সিনেমা হিসেবে পুরস্কার জিতেছে ‘ওপেনহাইমার’। ‘পারমাণবিক বোমার জনক’ জে রবার্ট ‘ওপেনহাইমারকে নিয়ে তৈরি হয়েছে এই ছবি। তবে এটি বায়োপিক নয়, দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পটভূমিতে তৈরি। ‘ওপেনহাইমার’ নির্মাণের জন্য সেরা চলচ্চিত্র নির্মাতার পুরস্কার পেয়েছেন ক্রিস্টোফার নোলান। ৯৬তম অস্কার আসরে সেরা অভিনেতার পুরস্কার জিতেছেন কিলিয়ান মারফি। ‘ওপেনহাইমার’ ছবির জন্য এই পুরস্কার জিতেছেন তিনি। এটি তার প্রথম অস্কার এবং তিনিই প্রথম আইরিশ অভিনেতা যিনি এই পুরস্কার জিতেছেন। ২০২৩ সালের ২১ জুলায় বিশ্বব্যাপী মুক্তি পেয়েছিল ছবিটি। বক্স-অফিসে দর্শক ও সমালোচকদের প্রশংসার পাশাপাশি মারফির অভিনয় নজর কাড়ে সবার। অস্কারের এবারের আসরে সেরা অভিনেত্রীর পুরস্কার উঠেছে এমা স্টোনের হাতে। ‘পুওর থিংস’ ছবির জন্য এই পুরস্কার জিতেছেন তিনি। এটি তার দ্বিতীয় অস্কার। ‘পুওর থিংস’ সিনেমাতে একজন ব্রিটিশ মহিলার চরিত্রে অভিনয় করেছেন এমা যিনি একটি শিশুর মস্তিষ্ক প্রতিস্থাপনের পরে পুনর্জীবিত হয়েছেন। বিজয়ীদের হাতে তুলে দেওয়া হয় অস্কারের সোনালী ট্রফি। সেরা পার্শ্ব অভিনেতা হয়েছেন রবার্ট ডাউনি জুনিয়র (ওপেনহাইমার), সেরা পার্শ্ব অভিনেত্রী ডে’ভাইন জয় র‌্যান্ডলফ (দ্য হোল্ডওভারস), সেরা মৌলিক চিত্রনাট্য অ্যানাটমি অব অ্যা ফল (জাস্টিন ত্রিয়েত, আর্থার হারারি), সেরা রূপান্তরিত চিত্রনাট্য আমেরিকান ফিকশন (কর্ড জেফারসন), সেরা অ্যানিমেটেড চলচ্চিত্র দ্য বয় অ্যান্ড দ্য হেরন (হায়াও মিয়াজাকি ও তোশিও সুজুকি)। সেরা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্রের পুরস্কার জিতেছে দ্য জোন অব ইন্টারেস্ট (যুক্তরাজ্য)। সেরা চিত্রগ্রহণ ওপেনহাইমার (হয়তে ফন হয়তেমা), সেরা পোশাক পরিকল্পনা পুয়োর থিংস (হলি ওয়াডিংটন), সেরা প্রামাণ্যচিত্র টোয়েন্টি ডেজ ইন মারিউপোল (মিস্তিস্লাভ চেরনোভ, ইউক্রেন), সেরা স্বল্পদৈর্ঘ্য প্রামাণ্যচিত্র দ্য লাস্ট রিপেয়ার শপ (বেন প্রাউডফুট ও ক্রিস বাওয়ার্স), সেরা চলচ্চিত্র সম্পাদনা ওপেনহাইমার (জেনিফার লেম), সেরা রূপসজ্জা ও চুলসজ্জা পুয়োর থিংস (নাদিয়া স্টেসি, জশ ওয়েস্টন ও মার্ক কুলিয়ার), সেরা মৌলিক আবহসংগীতের পুরস্কার জিতেছে লুদবিগ গোরানসন (ওপেনহাইমার)। সেরা মৌলিক গান হোয়াট ওয়াজ আই মেড ফর? (গীতিকবি ও সুরকার বিলি আইলিশ, ফিনিয়াস ও’কনেল, চলচ্চিত্র: বার্বি), সেরা শিল্প নির্দেশনা পুয়োর থিংস (জেমস প্রাইস, শনা হিথ ও জুজা মিহালেক), সেরা শব্দ দ্য জোন অব ইন্টারেস্ট (জনি বার্ন, টার্ন উইলার্স), সেরা ভিজ্যুয়াল ইফেক্টস গডজিলা মাইনাস ওয়ান  (তাকাশি ইয়ামাজাকি, কিয়োকো শিবুয়া, মাসাকি তাকাহাশি, তাতসুজি নোজিমা), সেরা স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র দ্য ওয়ান্ডারফুল স্টোরি অব হেনরি সুগার (ওয়েস অ্যান্ডারসন, স্টিভেন রালস), সেরা স্বল্পদৈর্ঘ্য অ্যানিমেটেড চলচ্চিত্রের পুরস্কার পেয়েছে ওয়ার ইজ ওভার! ইন্সপায়ার্ড বাই দ্য মিউজিক অব জন অ্যান্ড ইয়োকো (ডেভ মালিন্স, ব্র্যড বুকার)। আমেরিকান অভিনেত্রী অ্যাঞ্জেলা ব্যাসেট, আমেরিকান কমেডিয়ান, চিত্রনাট্যকার ও পরিচালক মেল ব্রুকস, চলচ্চিত্র সম্পাদক ক্যারল লিটেলটন সম্মানসূচক অস্কার পেয়েছেন। জিন হার্শোল্ট মানবিক অ্যাওয়ার্ড পেয়েছেন সানড্যান্স চলচ্চিত্র উৎসবের নির্বাহী মিশেল স্যাটার।
পর্দায় ফিরছে ‘কুংফু পান্ডা’, দেখা যাবে দেশের প্রেক্ষাগৃহেও
হলিউডের জনপ্রিয় অ্যানিমেশন সিনেমা ‘কুংফু পান্ডা’ সিরিজ। বড়সড় নাদুসনুদুস পান্ডা পো। যার হাঁটাচলা, কথাবার্তায় কৌতুকমেশানো হলেও মোটেও অকাজের নয় সে। বুদ্ধি ভালোই আছে তার। যুদ্ধবিদ্যা শিখে যেকোনো লড়াইয়ে নেতৃত্ব দিয়ে সবাইকে রীতিমতো তাক লাগিয়ে দেয় পো। দর্শক মহলে ব্যাপক প্রশংসা কুড়িয়েছে  ‘কুংফু পান্ডা’ ফ্র্যাঞ্চাইজির আগের তিনটি সিনেমা। প্রায় আট বছর পর পর্দায় ফিরছে এই সিরিজের চতুর্থ কিস্তি।  শুক্রবার (৮ মার্চ) আন্তর্জাতিকভাবে মুক্তি পেতে যাচ্ছে ‘কুংফু পান্ডা ৪’। বিশ্বের অন্যান্য দেশের সঙ্গে একই দিনে বাংলাদেশের স্টার সিনেপ্লেক্সে মুক্তি পাবে ছবিটি। এখন পর্যন্ত ‘কুংফু পান্ডা’ সিরিজের প্রত্যেকটি সিনেমাই বড় সাফল্যের মধ্য দিয়ে সব বয়সী মানুষের কাছে জনপ্রিয় হয়েছে অ্যানিমেশন চরিত্রটি।    সর্বশেষ ২০১৬ সালে মুক্তি পেয়েছিল ‘কুংফু পান্ডা ৩’। এরপর লম্বা একটা বিরতির পর পর্দায় আসছে সিনেমাটির নতুন কিস্তি। বলা যায়, পান্ডার লড়াই দেখতে উন্মুখ হয়ে আছেন সারা বিশ্বের সব বয়সী সিনেমাপ্রেমীরা। ‘কুংফু পান্ডা ৪’ নিয়ে ভক্ত-দর্শকদের প্রত্যাশা আগের চেয়ে অনেক বেশি।  আর চ্যালেঞ্জটা ঠিকই মাথায় রেখেছেন ‘কুংফু পান্ডা’র নির্মাতা মাইক মিশেল। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, নতুন সিনেমাটি আরও সমৃদ্ধ, আরও মহাকাব্যিক, আরও মজার করে তৈরির যাবতীয় চেষ্টা করেছেন তিনি।    আগের সিনেমায় পোকে দেখা যায় এমন এক যোদ্ধার ভূমিকায়, যে সবসময়ই নিজেকে আগের চেয়ে আরও উন্নত করার চেষ্টায় ব্যস্ত। এবারের গল্পে আত্মিক শান্তির খোঁজে নতুন অভিযানে বেরিয়ে পড়তে দেখা যাবে পোকে। আর তাকে সঙ্গ দেবে অকোয়াফিনা নামের নতুন একটি চরিত্র। তারা একসঙ্গে মোকাবিলা করবে নতুন শত্রু দ্য ক্যামেলিয়নের।     সিনেমাটির চরিত্রগুলোতে কণ্ঠ দিয়েছেন একঝাঁক তারকা। তাদের মধ্যে পো চরিত্রে কণ্ঠ দিয়েছেন হলিউড অভিনেতা জ্যাক ব্ল্যাক। এ ছাড়া জেহেন চরিত্রে কণ্ঠ দিয়েছেন হলিউড অভিনেত্রী অ্যাকওয়াফিনা, ক্যামলন চরিত্রে কণ্ঠ দিয়েছেন অভিনেত্রী ভিওলা ডেভিস, সিফু চরিত্রে কণ্ঠ দিয়েছেন অভিনেতা ডাস্টিন হলফম্যান, মিস্টার পিং চরিত্রে কণ্ঠ দিয়েছেন অভিনেতা জেমস হং, লি চরিত্রে অভিনেতা ব্রায়ান ক্রান্সটন, টাই লুং চরিত্রে অভিনেতা ইয়ান ম্যাকসেন ও হ্যান চরিত্রে কণ্ঠ দিয়েছেন কে হু কুয়ান। প্রসঙ্গত, ‘কুংফু পান্ডা ৪’ সিনেমাটি নির্মাণে খরচ হয়েছে ১৪০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার। ‘কুংফু পান্ডা’ সিরিজের প্রথম ছবিটি মুক্তি পায় ২০০৮ সালে, দ্বিতীয়টি ২০১১ সালে আর তৃতীয়টি ২০১৬ সালে। সবগুলো সিনেমাই দর্শকদের মধ্যে দারুণ সাড়া ফেলেছে। দীর্ঘ অপেক্ষার পর আসছে সিরিজটির চতুর্থ সিনেমা।