• ঢাকা বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪, ৪ বৈশাখ ১৪৩১
logo
বিরল পূর্ণগ্রাস সূর্যগ্রহণ চলছে, দেখুন সরাসরি
মেক্সিকোতে সমুদ্র সৈকতে ৮ চীনা নাগরিকের মরদেহ উদ্ধার
মেক্সিকোর ওক্সাকা রাজ্যের সমুদ্র সৈকত থেকে ৮ জন চীনা নাগরিকের মরদেহ উদ্ধার হয়েছে।  স্থানীয় সময় শুক্রবার তাদের মরদেহগুলো উদ্ধার করা হয়।  নিহতদের মধ্যে সাতজন নারী এবং একজন পুরুষ ছিলেন। খবর বিবিসির এ বিষয়ে স্থানীয়রা বলছেন, চীনা নাগরিকদের মরদেহ এমন একটি স্থানে পাওয়া গেছে যেখান দিয়ে সাধারণত অবৈধ অভিবাসীরা যুক্তরাষ্ট্রে পৌঁছানোর চেষ্টা করে। ওই চীনা নাগরিকদের সঙ্গে ছিলেন বেঁচে যাওয়া এমন একজন জানান, গত বৃহস্পতিবার দুর্ঘটনাকবলিত ওই নৌকাটি গুয়াতেমালার সীমান্তবর্তী মেক্সিকোর চিয়াপাস রাজ্য থেকে যাত্রা শুরু করেছিল। আর নৌকাটি পরিচালনা করছিলেন মেক্সিকোর একজন নাগরিক। দুর্ঘটনায় ৮ চীনা নাগরিকের মৃত্যু হলেও বেঁচে যান তিনি। তবে ওই নৌকার চালকের ভাগ্যে কী ঘটেছে তা কেউ জানে না। ওক্সাকার প্রসিকিউটর অফিস বলছে, প্লায়া ভিসেন্টে শহরের একটি সমুদ্র সৈকতের কাছে মরদেহগুলো পাওয়া যায়। বর্তমানে দুর্ঘটনার কারণ অনুসন্ধান করা হচ্ছে। মেক্সিকোর চীনা দূতাবাসের সঙ্গে যৌথভাবে নিহতদের পরিচয় শনাক্ত করার চেষ্টা চলছে। উল্লেখ্য, সাম্প্রতিক বছরগুলোতে মেক্সিকো থেকে যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশের চেষ্টা করা অভিবাসন প্রত্যাশীর সংখ্যা বেড়েই চলেছে। ২০২১ সাল থেকে এখন পর্যন্ত অন্তত ৬৩ লাখ অভিবাসী অবৈধভাবে যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশ করেছে। গত বছর মার্কিন-মেক্সিকো সীমান্তে ৩৭ হাজারের বেশি চীনা নাগরিককে আটক করা হয়েছিল। দুবছর আগের তুলনায় যা প্রায় ৫০ গুণ বেশি।
ইসরায়েলকে আর অস্ত্র দেবে না কানাডা
মেক্সিকোতে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ১৯
কানাডায় বিমান বিধ্বস্ত হয়ে ৬ জনের প্রাণহানি
বিদেশি শিক্ষার্থী কমানোর সিদ্ধান্ত কানাডার
কানাডার ইউনিভার্সিটিতে বিদেশি শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ
আইটি বিষয়ে ১৩০ জন শিক্ষার্থীর ইচ্ছাকৃত ব্যর্থতার অভিযোগে আলগোমা বিশ্ববিদ্যালয়ে অনির্দিষ্টকালের জন্য বিক্ষোভ শুরু করায় উত্তেজনা বেড়েছে। বিতর্কটি মূল্যায়নের ন্যায্যতা নিয়ে উদ্বেগ সৃষ্টি করেছে এবং বিশ্ববিদ্যালয়কে এই সমস্যাটি সমাধান করতে হবে বলে চাপ দিচ্ছে শিক্ষার্থীরা। বিতর্কটি ছড়িয়ে পড়ে যখন উল্লেখযোগ্য সংখ্যক আন্তর্জাতিক শিক্ষার্থী দাবি করে যে, তারা ইচ্ছাকৃত ভাবে একটি আইটি বিষয়ে ফেল করেছে, যার প্রতিবাদে তারা রাস্তায় নেমে আসে। শিক্ষার্থীদের অভিযোগ, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকরা ইচ্ছাকৃত ভাবে তাদের অন্যায়ভাবে চিহ্নিত করেছেন, যা মূল্যায়ন প্রক্রিয়ার বিশ্বাসযোগ্যতার উপর প্রভাব ফেলছে। অভিযোগের জবাবে আলগোমা বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে এক বিবৃতিতে বলা হয়, সুষ্ঠু মূল্যায়ন নিশ্চিত করতে অনুষদগুলো হস্তক্ষেপ করছে। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন মনে করে যে, এই হস্তক্ষেপের উদ্বেগগুলি মোকাবেলা করা এবং একাডেমিক মূল্যায়ন প্রক্রিয়ার অখণ্ডতা ও স্বচ্ছতা বজায় রাখা। তবে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা তাদের বিশ্বাসে অবিচল রয়েছে যে, তাদের ইচ্ছাকৃত ভাবে লক্ষ্যবস্তু করা হয়েছিল। তাদের একাডেমিক অগ্রগতি এবং ভবিষ্যতের সম্ভাবনার উপর এর প্রভাব পরবে। অনেকে যুক্তি দেখান যে, আইটি বিষয়ে তাদের পারফরম্যান্স ব্যাপক ব্যর্থতা ছিল না। যার ফলে তারা গ্রেডিং সিস্টেমের স্বচ্ছতা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিল। বিতর্কটি বিশ্বজুড়ে বিভিন্ন ধরণের শিক্ষার্থীদের গ্রহণকারী প্রতিষ্ঠানগুলিতে মূল্যায়ন অনুশীলন সম্পর্কে বিস্তৃত প্রশ্ন উত্থাপন করেছে। যেহেতু উন্নত দেশগুলিতে আন্তর্জাতিক শিক্ষার্থী তালিকাভুক্তি বৃদ্ধি পাচ্ছে। বিশ্ববিদ্যালয়গুলিকে অবশ্যই তাদের বৈচিত্র্যময় ছাত্র সংগঠনের একাডেমিক সাফল্য এবং সন্তুষ্টি নিশ্চিত করার জন্য স্বচ্ছ এবং নিরপেক্ষ মূল্যায়ন পদ্ধতি বজায় রাখার চেষ্টা করতে হবে।
কানাডায় ফোনে ভারতীয়দের কাছে ‘চাঁদা দাবি’
কানাডায় অবস্থানরত ভারতীয় কমিউনিটির লোকজনের কাছ থেকে চাঁদা দাবি করে ফোনে বিভিন্ন রকমের ‘হুমকি’ দেওয়ার অভিযোগ করছে ভারত সরকার।  বিষয়টি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র রণধীর জাইসওয়াল। এক ব্রিফিংয়ে বলেন, ‘লোকজন মোবাইল ফোনকলে হুমকি পাচ্ছেন, বিশেষ করে ভারতীয়রা। এটি গুরুতর উদ্বেগের বিষয়। আমাদের (ভারত-কানাডা) কিছু বিষয় নিয়ে আলোচনার আছে। একটি মন্দিরে আক্রমণ চালানো হয়েছে। কানাডার পুলিশ তদন্তে একজনকে শনাক্ত করলেও পরে তাকে ছেড়ে দিয়েছে। এক বিবৃতিতে ওই ব্যক্তিকে তারা ‘নির্দোষ’ বলে জানিয়েছে। ফলে এই ইস্যুগুলো আছে...। ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র হিসেবে এটাই জাইসওয়ালের প্রথম সংবাদ সম্মেলন। গত দুই মাস ধরে কানাডার ব্রিটিশ-কলাম্বিয়ায় ভারতীয় কমিউনিটির সদস্যদের কাছে চাঁদা চেয়ে বিভিন্ন হুমকি দেওয়া নিয়ে এ উদ্বেগ প্রকাশ করলেন তিনি। ইন্দো-কানাডিয়ান লোকজনের কাছ থেকে চাঁদা দাবির বিষয়টি তদন্ত করতে একটি টাস্ক ফোর্স গঠন করেছে কানাডা। ওই বিষয়ে এক সঙ্গে নয়টি অভিযোগের তদন্ত করছে তারা।