• ঢাকা বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪, ৪ বৈশাখ ১৪৩১
logo
ছাত্রলীগ নেতার অন্তরঙ্গ ভিডিও ভাইরাল, কমিটি বিলুপ্ত
ঝালকাঠিতে ট্রাক-প্রাইভেটকার-অটোরিকশার সংঘর্ষ, নিহত ১২
ঝালকাঠির গাবখান সেতু টোলপ্লাজায় ভয়াবহ সড়ক দুর্ঘটনায় ১২ জন নিহত হয়েছেন। বুধবার (১৭ এপ্রিল) বেলা দেড়টার দিকে এই দুর্ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় আরও প্রায় ১৫ যাত্রী আহত হয়েছেন বলে জানা গেছে। নিহতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।  ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন ঝালকাঠির পুলিশ সুপার (এসপি) মোহাম্মদ আফরুজুল হক টুটুল। প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ জানায়, টোল প্লাজায় টাকা দেওয়ার অপেক্ষায় ছিল ইজিবাইক, মাইক্রোবাসসহ একাধিক গাড়ি। সিমেন্টবাহী ট্রাকটি সামনে থাকা সব গাড়িকে ধাক্কা দিয়ে প্রতিবন্ধক ভেঙে রাস্তার পাশে খাদে পড়ে যায়।  সিমেন্টবাহী ওই ট্রাকের নিচে চাপা পড়ে মাইক্রোবাসে থাকা শিশু নারীসহ ৭ জনের মৃত্যু হয়। ট্রাক-মাইক্রোবাস উদ্ধার করেছে ফায়ার সার্ভিসের উদ্ধারকারী কর্মীরা।  এ বিষয়ে ঝালকাঠি সদর থানার ওসি শহিদুল ইসলাম বলেন, ‘এখন পর্যন্ত ১২ জন নিহত হয়েছে বলে নিশ্চিত হওয়া গেছে। ১৬ থেকে ২০ জন বিভিন্ন হাসপাতালে আহত অবস্থায় রয়েছে। তবে তাৎক্ষণিকভাবে তাদের নাম-পরিচয় জানা যায়নি। উদ্ধারকাজ প্রায় শেষ পর্যায়ে। পরবর্তীতে বিস্তারিত জানানো হবে।’ 
পাথরঘাটায় গৃহবধূর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার
বরিশাল মেডিকেলে প্রিজন সেলে আসামির হাতে আসামি খুন
দাদির সঙ্গে নদীতে নেমে স্রোতে ভেসে গেল স্কুলছাত্র
ঈদের দিন তরুণ-তরুণীর মারধর, মিম ফিরলেন শ্বশুরবাড়ি
বাথরুমে মিলল ছাত্রলীগ নেতার ঝুলন্ত মরদেহ 
পিরোজপুরের নাজিরপুরে বাথরুমের ভেতর থেকে রাজু শেখ (২৩) নামে এক ছাত্রলীগ নেতার ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। শুক্রবার (১২ এপ্রিল) উপজেলার সেখমাটিয়া গ্রামের নিজবাড়ি থেকে তার ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করা হয়। রাজু শেখ উপজেলার সেখমাটিয়া ইউনিয়ন ছাত্রলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক ও একই ইউনিয়নের সিদ্দিকুর রহমান শেখের ছেলে। এ বিষয়ে রাজু শেখের বাবা সিদ্দিকুর রহমান গণমাধ্যমকে বলেন, রাজু আত্মহত্যা করতে পারে না। রাজু পরিবারের সঙ্গে ঈদ পালন করেছে। কুপিয়ে জখমের মামলার আসামিরা রাজুকে মারার হুমকি দিয়ে আসছিল। রাজু শেখের চাচাতো ভাই আল আমিন জানান, প্রতিদিন ফজরের নামাজ পড়তে মসজিদে যেতেন রাজু। শুক্রবারও নামাজের জন্য বাড়ি থেকে বের হন তিনি। নামাজ শেষে আর ঘরে ফেরেনি আসেননি। পরে পরিবারের লোকজন রাজুকে খোঁজাখুঁজির একপর্যায়ে সকাল ১০টায় বাড়ির কাছের বাথরুমে গলায় ফাঁস লাগানো অবস্থায় তার ঝুলন্ত মরদেহ দেখতে পান। পরে পুলিশকে খবর দিলে মরদেহ উদ্ধার করে জেলা হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়। তবে রাজু শেখের মৃত্যুকে স্বাভাবিক নয় বলে দাবি করেছেন নাজিরপুর উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি তরিকুল ইসলাম তাপস। এই ছাত্রলীগ নেতা বলেন, গত ১৪ ফেব্রুয়ারি বিকেলে জাতীয় সংসদ নির্বাচনে পরাজিত স্বতন্ত্র প্রার্থী এ কে এম এ আউয়ালের সমর্থক হাফিজ শেখের নেতৃত্বে রাজু শেখের ওপর হামলা হয়। সে সময় তাকে কুপিয়ে গুরুতর জখম করা হয়। এ ঘটনায় ৫ জনের নামে মামলা করেছিল রাজু। সম্প্রতি ওই মামলার আসামি আব্দুর রব ও লুৎফর রহমান কারাগার থেকে বের হয়েছেন। তারা এলাকায় গিয়ে রাজু শেখকে হত্যার হুমকিও দিয়েছিলেন। এ দিকে নাজিরপুর থানার ওসি মো. শাহ আলম হাওলাদার বলেন, এ ঘটনায় রাজু শেখের বাবা সিদ্দিকুর রহমান শেখ বাদী হয়ে একটি অপমৃত্যুর মামলা করেছেন।  ময়নাতদন্তের পরে তদন্ত করে এ বিষয়ে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে জানান পুলিশের এ কর্মকর্তা।
কলাপাড়ায় সিএনজি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে খাদে, নিহত ২
কলাপাড়া-পটুয়াখালী মহাসড়কের বিশকানি এলাকায় যাত্রীবাহী চলন্ত সিএনজি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে মহাসড়কের পাশে  খাদে পড়ে আফজাল হোসেন (৬০) ও জাকারিয়া (২৩) নামের ২ আরোহী ঘটনাস্থলে নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন চালকসহ চারজন।  শনিবার (১৩ এপ্রিল) সকাল ৭টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত আফজাল হোসেন বরগুনা জেলার বড়ইতলা ও জাকারিয়া চরপাড়া এলাকার বাসিন্দা। কলাপাড়া থানার এস আই জহুরুল ইসলাম ও আহতরা জানান, আমতলী থেকে কুয়াকাটার উদ্দেশ্যে ছেড়ে আসা পাঁচ যাত্রী নিয়ে সিএনজিটি বিশকানি এলাকায় এলে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে রাস্তার খাদে পড়ে গাছের সঙ্গে ধাক্কা খায়। এতে ঘটনাস্থলে আফজাল হোসেন ও জাকারিয়া মারা যান। খবর পেয়ে কলাপাড়া ফায়ার সার্ভিস স্টেশনের কর্মীরা ঘটনাস্থলে এসে নিহত ও আহতদের উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করেন। অবস্থার অবনতি হলে সিএনজি চালক জামাল হোসেন ও মতিনকে উন্নত চিকিৎসার জন্য বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়।  আহত আবুসালেহ বলেন, আমরা বরগুনা থেকে আমতলী বাসস্ট্যান্ডে এসে কুয়াকাটার উদ্দেশ্যে সিএনজিতে উঠি। সিএনজিটি দ্রুতগামী থাকায় নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে  রাস্তার পাশে পরে খেজুর কাছে ধাক্কা লাগে। এতে গাড়ি উল্টে যায় আমি জ্ঞান হারিয়ে ফেলি। কলাপাড়া থানার ওসি আলী আহম্মেদ জানান, লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পটুয়াখালী মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। দুর্ঘটনার কারণ অনুসন্ধানে তদন্ত চলছে।
জানা গেল ভাইরাল তরুণ-তরুণীর মারধরের কারণ
ঈদের দিন কালো পোশাক পরা তরুণ-তরুণীর মারধরের ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়। অবশেষে জানা গেছে তাদের মারধরের কারণ। ভাইরাল হওয়া ভিডিওটি পটুয়াখালীর বাউফলের কালাইয়া শৌলা সড়কের। সম্পর্কে ওই তরুণ-তরুণী স্বামী-স্ত্রী। ৪৬ সেকেন্ডে ওই ভিডিওটিতে দেখা যায়, প্রকাশ্যে রাস্তায় এক তরুণীকে দফায় দফায় মারধর করছেন। সাদা পায়জামা ও কালো পাঞ্জাবি পরা এক তরুণ এক তরুণীর হাত ধরে পূর্ব দিক থেকে পশ্চিম দিকে হেঁটে যাচ্ছেন। ওই তরুণের পেছনের দিকে পাঞ্জাবি অর্ধেক ছেড়া। হেঁটে যাওয়ার একপর্যায়ে একটি নির্মাণাধীন ভবনের সামনে তরুণীকে কিলঘুষি মারছেন তরুণ। সেই সঙ্গে চুল ধরে টানাটানিসহ দফায় দফায় তরুণীকে বিভিন্নভাবে আঘাত করে ফেলে দিচ্ছেন। রাস্তায় বহু মানুষ চলাচল করলেও তরুণীকে সাহায্য করেতে এগিয়ে আসছে না কেউ। জানা গেছে, নির্যাতিত তরুণী বাউফলের কালাইয়ার মিলন মিয়ার মেয়ে মিম আক্তার। আর ওই তরুণ উপজেলার চন্দ্রদ্বীপ ইউনিয়নের কামরুল ইসলাম। গত এক বছর আগে তাদের বিয়ে হয়। ঈদের দিন কামরুল শ্বশুরবাড়ি আসেন। পরে স্ত্রীর সঙ্গে অভিমান করে বাসা থেকে বের হয়ে গেলে তার স্ত্রী মিম তার পিছু নিলে রাস্তায় তাদের মাঝে মারামারি, ধস্তাধস্তি ও টানাটানির ঘটনা ঘটে। এ বিষয়ে বাউফল থানা পুলিশের ওসি শোনিত কুমার গায়েন বলেন, ভিডিওটি এমনই ভাইরাল হয়েছে যে থানায়ও বিষয়টি নিয়ে আলোচনা হয়েছে। তবে নির্যাতিত তরুণীর পক্ষ থেকে থানায় কোনো অভিযোগ করা হয়নি। তবুও পুলিশ ঘটনাটি খতিয়ে দেখছে।
নির্বাচনী সহিংসতায় নিহত ১ : বরগুনায় চেয়ারম্যান প্রার্থীসহ কারাগারে ৫
বরগুনার আমতলীতে চাঞ্চল্যকর হিরন গাজী হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় ৬৫ জনকে আসামি করে হত্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলায় ১৬ জনের নাম উল্লেখ করে ৪০ থেকে ৫০ জনকে অজ্ঞাত আসামি করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার দুপুরে বাদী হয়ে মামলাটি দায়ের করেন নিহত হিরন গাজীর স্ত্রী তাছলিমা বেগম।  মামলার এজাহারভুক্ত প্রধান আসামি চেয়ারম্যান প্রার্থী আবুল বাশার নয়ন মৃধাসহ পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করে শুক্রবার (১২ এপ্রিল) সকালে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। মামলা সূত্রে জানা গেছে, হত্যাকাণ্ডের আগে হিরন জানতে পারেন নয়ন মৃধা তার সমর্থকদের নিয়ে পূর্ব মহিষডাঙ্গা গ্রামে ভোটারদের বাড়িতে বাড়িতে গিয়ে ভোট কেনার জন্য টাকা বিতরণ করছেন। এই তথ্য জানার পরে তাদের বাধা দিতে বুধবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে হিরন বের হন। তার সঙ্গে আরও ১০ থেকে ১২ জন গিয়েছিলেন। প্রতিপক্ষের লোকজন হিরনকে ধারাল অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে গুরুতর জখম করে এবং ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়।   শুক্রবার (১২ এপ্রিল) দুপুরে এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় নিহতের স্ত্রী তাছলিমা বেগম বাদী হয়ে অটোরিকশা প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী আবুল বাশার নয়ন মৃধাসহ আরও ১৫ জনের নাম উল্লেখ করে ৫০-৬০ জনকে অজ্ঞাত আসামি দেখিয়ে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। মামলার পর বৃহস্পতিবার রাতে মামলার প্রধান আসামি আবুল বাশার নয়ন মৃধা, সন্দেহভাজন সোহাগ প্যাদা, মাহবুব, গোলাম কিবরিয়া ও মেহেদি নামে পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করে শুক্রবার সকালে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে প্রেরণ করে পুলিশ। নিহত হিরন গাজীর স্ত্রী তাসলিমা বেগম বলেন, ‘মোর স্বামীরে আবুল বাশার নয়ন মৃধা তার ভাই এ জেড এম ছালেহ পান্নু মৃধা ও আবুল কালাম আজাদের নেতৃত্বে খুন করা হয়েছে। আমি এই খুনের কঠিন বিচার চাই।’ আমতলী থানার ওসি কাজী সাখাওয়াত হোসেন তপু বলেন, হিরন গাজী হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় ১৬ জনের নাম উল্লেখ এবং ৫০ থেকে ৬০ জনকে অজ্ঞাত আসামি করে তার স্ত্রী বৃহস্পতিবার দুপুরে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন। এ মামলায় প্রধান আসামি আবুল বাশার নয়ন মৃধাসহ পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করে শুক্রবার সকালে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। অন্য আসামিদের গ্রেপ্তারের জোর চেষ্টা চলছে। উল্লেখ্য, আগামী ২৮ এপ্রিল আমতলী সদর ইউনিয়ন পরিষদের সাধারণ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। 
পর্যটকের পদচারণায় মুখর কুয়াকাটা সৈকত 
ঈদের দ্বিতীয় দিনে হাজার হাজার পর্যটকদের পদচারণায় মুখরিত হয়ে উঠেছে কুয়াকাটার দীর্ঘ ১৮ কিলোমিটার সমুদ্র সৈকত। আগত পর্যটকরা সৈকতের বুকে আছড়ে পড়া ছোট-বড় ঢেউয়ে সাঁতার কেটে আনন্দে মেতেছেন। অনেকে বন্ধুদের সঙ্গে হইহুল্লোড়ে মেতেছেন। অনেকে আবার ঘোড়া চড়ে, ওটারবাইক কিংবা মোটরবাইকে চড়ে সৈকতের বিভিন্ন পর্যটনস্পট ঘুরে দেখছেন। অনেকে আবার সৈকতের বেঞ্চিতে বসে প্রাকৃতিক সৌন্দর্য উপভোগ করছেন।  আগত পর্যটকদের ভিড়ে বিক্রি বেড়েছে সকল পর্যটন স্পটগুলোতে। বুকিং রয়েছে কুয়াকাটার অধিকাংশ হোটেল। পর্যটকদের নিরাপত্তায় ট্যুরিস্ট পুলিশ, থানা পুলিশ, নৌ-পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের সদস্যদের তৎপরতা লক্ষ্য করা গেছে। সরেজমিনে ঘুরে দেখা গেছে, সৈকতের জিরো পয়েন্ট, শুঁটকি পল্লী, গঙ্গামতির সৈকত, রাখাইন মহিলা মার্কেট, রাখাইন পল্লী, জাতীয় উদ্যান, ইলিশ পার্ক, লেম্বুর বন, সৈকতের ঝাউবাগানসহ পর্যটন স্পটগুলো দর্শনার্থীদের পদচারণায় মুখরিত হয়ে ওঠে। ঘুরতে আসা পর্যটক রফিকুল ইসলাম বলেন, আমি পরিবার নিয়ে ঈদের ছুটিতে কুয়াকাটায় ঘুরতে আসলাম। সকাল থেকে পুরো সৈকত মুখর। অনেক লোক এসেছে, বেশ ভালো লাগছে। তবে প্রচন্ড গরমে স্বাভাবিক জীবনযাত্রা ব্যাহত হচ্ছে। আবাসিক হোটেল সি ভিউ এর ম্যানেজার সোলায়মান ফরাজী বলেন, আজকে পর্যটকের সংখ্যা অনেক। শনিবার থেকে এ সংখ্যা আরও বাড়তে পারে। এবারের ঈদের ছুটিতে আমাদের শতভাগ রুম বুকিং হয়েছে। আশা করছি, সামনের পুরো সপ্তাহজুড়ে ভালো পর্যটক পাবো। কুয়াকাটা ট্যুরিজম ম্যানেজমেন্ট অ্যাসোসিয়েশনের (কুটুম) সাধারণ সম্পাদক হোসাইন আমির বলেন, ঈদের ছুটি উপলক্ষে আজকে কুয়াকাটায় অনেক পর্যটক এসেছেন। প্রচন্ড গরমেও পর্যটকদের আনাগোনায় মুখর গোটা সৈকত। ছাতাবেঞ্চ ব্যবসায়ী নাসির খলিফা বলেন, আজকে কুয়াকাটায় পর্যটকদের ঢল নেমেছে। শনিবার পর্যটকের সংখ্যা বৃদ্ধি পাবার সম্ভাবনা রয়েছে। ঢাকা থেকে আসা পর্যটক হাসান মারুফ বলেন, আজকে পর্যটক আসতে শুরু করেছে। আমরা বুকিং করে না এসে বিপদে পরে গেছি। হোটেলে রুম পেতে অনেক কষ্ট হয়েছে। কুয়াকাটা হোটেল মোটেল ওনার্স অ্যাসোসিয়েশন সাধারণত সম্পাদক মো. মোতালেব শরীফ বলেন, প্রায় হোটেলের ৮০ শতাংশ রুম বুকিং হয়ে গেছে। এখনও পর্যটকরা ফোনে রুম বুকিং দিচ্ছেন।  কুয়াকাটা টুরিস্ট পুলিশ জোনের সহকারী পুলিশ সুপার আবুল কালাম আজাদ বলেন, আগত পর্যটকদের নিরাপত্তার জন্য আমাদের পোশাক পরিহিত পুলিশের পাশাপাশি প্রত্যেকটি পর্যটন স্পটে সাদাপোশাকে পুলিশ সার্বক্ষণিক ডিউটিতে আছে। এখানে ঈদের আনন্দ উপভোগ করতে আসা পর্যটকরা যাতে কোনো ধরনের সমস্যার সম্মুখীন না হয় সে ব্যাপারে আমরা সর্বদা সতর্ক রয়েছি। কুয়াকাটা পৌর মেয়র আনোয়ার হাওলাদার বলেন, পর্যটকদের সেবায় পৌরসভা প্রস্তুত আছে। পদ্মাসেতু উদ্বোধনের পর থেকে কুয়াকাটায় পর্যটক বেড়েছে। ভাঙ্গা থেকে কুয়াকাটা মহাসড়ক ফোর লেন বাস্তবায়িত হলে আরও পর্যটক বাড়বে।  কলাপাড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. রবিউল ইসলাম বলেন, আজকে কুয়াকাটা পর্যটকে মুখর। কাল-পরশু কুয়াকাটায় পর্যটকের ঢল নামবে। পর্যটকদের নিরাপত্তায় উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে কলাপাড়া থানা, মহিপুর থানা, কুয়াকাটা টুরিস্ট পুলিশ, নৌপুলিশ, ফায়ারসার্ভিস, মেডিকেল টিম প্রস্তুত আছে। 
ধাওয়া খেয়ে পায়রা নদীতে হরিণের ঝাঁপ, অতঃপর...
বরগুনা সদর উপজেলার বালিয়াতলীতে স্থানীয় মানুষের ধাওয়া খেয়ে প্রাণ বাঁচাতে পায়রা নদীতে একটি হরিণ ঝাঁপ দিয়েছে বলে জানা গেছে। পরে হরিণটি তীরে যাওয়ার চেষ্টা করলে জেলেদের জালে আটক পড়ে। সেসময় জেলেরা হরিণটিকে তীরে নিয়ে আসলে স্থানীয় বন বিভাগের বিট অফিসের লোকজন গিয়ে হরিণটিকে উদ্ধার করেন। শুক্রবার (১২ এপ্রিল) সকালে বাবুগঞ্জ তদন্তকেন্দ্রের পুলিশ পরিদর্শক মো. সাইফুজ্জামানের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন।  মো. সাইফুজ্জামান জানান, বৃহস্পতিবার (১১ এপ্রিল) সন্ধ্যায় এ ঘটনা ঘটে। পায়রা নদে ওই হরিণ জেলেদের জালে আটক পড়েছিল। পরে বন বিভাগের সদস্যরা হরিণটিকে উদ্ধার করেন। এ বিষয়ে বন বিভাগের কর্মকর্তারা জানান, বাবুগঞ্জ বিট এলাকার বনে কোনো হরিণ নেই। চোরাকাবারিদের ধাওয়া খেয়ে পাথরঘাটার হরিণঘাটা বন থেকে হরিণটি বিষখালী নদীতে আসতে পারে। অথবা শিকারিদের কাছ থেকে ছুটে আসতে পারে হরিণটি। হরিণের বর্তমান অবস্থার কথা জানতে চাইলে বাবুগঞ্জ বিট কর্মকর্তা মনিরুজ্জামান বলেন, উদ্ধার করা হরিণটি তালতলী উপজেলার টেংরাগিরি ইকোপার্কে অবমুক্ত করা হবে। হরিণটি সুস্থ আছে। তিনি আরও বলেন, গতকাল সন্ধ্যায় জেলেরা হরিণটিকে উদ্ধার করে তীরে এনে স্থানীয় বাবুগঞ্জ পুলিশ ফাঁড়িতে জানান। তাদের কাছ থেকে খবর পেয়ে বাবুগঞ্জ বিট কার্যালয়ের কর্মীরা হরিণটিকে নিয়ে যান। সেখানে হরিণটিকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়।