• ঢাকা বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪, ৪ বৈশাখ ১৪৩১
logo
যে কারণে নিজেকে ‘অযোগ্য’ বললেন প্রসেনজিৎ
‘ধর্ম মানেই পূজা করতে হবে বা নামাজ পড়তে হবে, এমনটা আমি মানি না’
রেডিও, টেলিভিশনে সিনেমায় যার উপস্থিতি প্রাণ দেয় দর্শককে। যেমন উপাস্থাপনায় তেমন অভিনয়েও। বলছি টলিউডের জনপ্রিয় মুখ মীর আফসার আলির কথা। এই মানুষটির অনুরাগীর সংখ্যাও কম নয়। নেটিজেনদের কাছেও আলোচিত ব্যক্তিত্ব। তবে তাদের অনেকের মতে মীরকে মুসলমান বলে মনে হয় না। ভারতীয় সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে কথাগুলো বলেছেন মীর। ধর্ম মানেন কি না এমন প্রশ্নের উত্তরে মীর বলেন, ধর্ম মানেই মন্দিরে গিয়েই পূজা করতে হবে বা মসজিদে গিয়েই নমাজ পড়তে হবে, এমনটা আমি মানি না। আমি প্রকৃতির মাঝে গিয়েও মানসিকভাবে অন্য জায়গায় পৌঁছে যেতে পারি। মসজিদে গিয়ে ইমাম সাহেবের পেছনে বসে যখন নমাজ পড়ি, সেই সময় মুখে কোরআন থেকে কী বলছি, তার চেয়ে বেশি জরুরি মনে হয় এত ভাইয়েরা কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে, সময় বার করে ‘সেজদা’ করছেন— এই দৃশ্য দেখতে পাওয়া। এটা দেখতে আমার খুব ভালো লাগে। এটাই আমার অধ্যাত্মবাদ। অনেকে আমায় বলেন যে, আমাকে নাকি ‘মুসলমান-মুসলমান’ মনে হয় না। কারণ জানতে চাইলে তিনি বলেন, সে রকম ভাবে আমি নমাজ পড়ি না। নিয়মিত মসজিদে যাই না। আমার মনে আছে একটা ঘটনা। আমাদের বাড়িতে ডোকরার দুর্গাপ্রতিমা আছে, সেটা কোনও কারণে ভিডিওর মাধ্যমে অনুরাগীদের নজরে আসে। ব্যস! ট্রলিং শুরু। মুসলমানের বাড়িতে দুর্গাপ্রতিমা কেন থাকবে? মানুষ সব ক্ষেত্রেই কথা বলবে। এড়িয়ে যাওয়ার মধ্যেই শান্তি। এ সব দেখা এখন ছেড়ে দিয়েছি।
মেকআপ আর্টিস্টকে ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেফতার প্রোডাকশন ম্যানেজার
নতুন প্রেমে মজেছেন কাঞ্চনের প্রাক্তন স্ত্রী
অন্তর্বাস প্রদর্শন লজ্জার কিছু নয়: পরমা
ভয়ে আছেন মিথিলা!
৪২ বছরেও অবিবাহিত থাকার কারণ জানালেন নায়িকা পায়েল
ওপার বাংলার জনপ্রিয় অভিনেত্রীদের একজন পায়েল সরকার। দেব থেকে শুরু করে সোহম-আবির একাধিক তারকার সঙ্গে জুটি বেঁধে ব্লকবাস্টার সিনেমা উপহার দিয়েছেন তিনি।  সদ্য মুক্তি পেয়েছে অভিনেত্রীর ‘আবার অরণ্যের দিনরাত্রি’ ছবিটি। সিনেমা মুক্তির আগেই দাদাগিরির মঞ্চে হাজির হলেন এই তারকা। যেখানে নিজের ‘সিঙ্গেল’ জীবন নিয়ে খোলামেলা কথা বলেছেন তিনি।  পায়েলের বর্তমান বয়স ৪২ বছর। তার সমসাময়িক অধিকাংশ অভিনেত্রী বিয়ে করে সংসার করছেন। তবে পায়েল এখনও অবিবাহিত থেকে গেছেন।  ব্যক্তিজীবনে এই নায়িকার প্রেমের সম্পর্ক ছিল রাজ চক্রবর্তীর সঙ্গে। কিন্তু সেই সম্পর্ক বিয়ে পর্যন্ত গড়ায়নি। এ বিষয়ে ‘দাদাগিরি’র মঞ্চে পায়েল জানান, অনেকেই আমাকে জিজ্ঞেস করেন আমি এখনও কেন সিঙ্গল। আসলে বাঙালি পরিবারে মেয়ের বাবারা এত পজেসিভ।  পায়েলকে মাঝখানে থামিয়ে সৌরভ জানতে চান, তাহলে বলছো তুমি সিঙ্গল বাবা-মায়ের জন্য। সম্মতি জানিয়ে অভিনেত্রী যোগ করেন, যেমন মনের মতো ছেলে খুঁজে পাওয়া কঠিন, তার চেয়েও বেশি কঠিন বাবা-মায়ের মনের মতো ছেলে খুঁজে পাওয়া। আমার কথা তো ছেড়ে দাও, বাবা-মায়ের মনের মতো ছেলেও খুঁজে পাচ্ছি না। রাজের সঙ্গে প্রেমের কথা খোলাখুলি পায়েল স্বীকার করেননি কোনোদিন। তবে এই সম্পর্ক ছিল ইন্ডাস্ট্রির ওপেন সিক্রেট। সম্পর্ক ভাঙার পর পায়েল বলেছেন, জীবন নিয়ে দুজনের দৃষ্টিভঙ্গি আলাদা, এই প্রেম নাকি পূর্ণতা পাওয়ার ছিল না। এরপরই সানার প্রসঙ্গ টানেন পায়েল। সৌরভের কোর্টে বল ঠেলে বলেন, ধরো, সানা বড় হচ্ছে। ও যদি তোমার সামনে এসে বলে ও কাউকে ভালোবাসে, এটা ওর বয়ফ্রেন্ড। দেখবে তোমার পৃথিবীটা কেমন উল্টোপাল্টা হয়ে যাবে। জবাবে সৌরভ বলেন, সানা তাকে পাত্তা দেয় না। এরপরই জানিয়ে দেন, সানার বয়ফ্রেন্ডকে ১০টা প্রশ্ন করবেন তিনি, তবে তাকে নিয়ে কোনও আপত্তি থাকবে না। কারণ সানার প্রেমিক কোনোভাবেই দাদার জগতটা বদলাতে পারবে না।  নিজের প্রেম নিয়ে তেমন লুকোচুরি করেন না পায়েল। কিন্তু তিনি সবসময়েই বলেন, প্রেমিক বলে কাউকেই নাকি মনে ধরে না তার!  পায়েলকে আগামীতে দেখা যাবে শাকিব খানের ‘দরদ’ সিনেমায়। যেখানে তার সঙ্গে স্ক্রিনশেয়ার করেছেন বলিউড অভিনেত্রী সোনাল চৌহান। 
ধাক্কা সামলে বাড়ি ফিরলেন নির্মাতা শিবপ্রসাদ
পশ্চিমবঙ্গের জনপ্রিয় নির্মাতা ও অভিনেতা শিবপ্রসাদ মুখার্জি। বৃহস্পতিবার (৪ এপ্রিল) ‘বহুরূপী’ সিনেমার শুটিং সেটে কোমরে গুরুতর আঘাত পান তিনি। এরপর ভর্তি হন হাসপাতালে। চিকিৎসা শেষে রোববার (৭ এপ্রিল) হাসপাতাল থেকে বাড়ি ফিরেছেন শিবপ্রসাদ।  এ নিয়ে নিজের ভেরিফায়েড ফেসবুকে একটি ছবি পোস্ট করেছেন শিবপ্রসাদ। সেই ছবির ক্যাপশনে তিনি লিখেছেন, ‘শুভ সকাল। বহুরূপীর সেটে অ্যাক্সিডেন্টের ধাক্কা সামলে বাড়ি ফিরলাম। অসংখ্য ধন্যবাদ মেডিকা সুপারস্পেশালিটি হসপিটাল-এর অ্যাডমিনিস্ট্রেশন, মেডিকেল স্টাফ এবং ডাক্তারদের। এ কদিনে আমার প্রিয় ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির বহু মানুষ দেখা করতে এসেছেন। নিয়মিত খোঁজ নিয়েছেন। এবং পেয়েছি অসংখ্য শুভেচ্ছা বার্তা। আশা করি আপনাদের ভালবাসায় ও মঙ্গল কামনায় দ্রুত সুস্থ হয়ে উঠব। আপাতত শুটিং কিছুদিনের জন্য বন্ধ কিন্তু কবে কাজে ফিরব সেই আশায় দিন গুনছি।’   ‘বহুরূপী’ সিনেমার অন্যতম চরিত্রে অভিনয় করছেন আবীর আবির চট্টোপাধ্যায় ও ঋতাভরী চক্রবর্তী। যৌথভাবে নির্মাণ করছেন নন্দিতা রায় ও শিবপ্রসাদ মুখার্জি।
যৌন জীবন নিয়ে শ্রীলেখার বিস্ফোরক মন্তব্য
টালিগঞ্জে ঠোঁটকাটা রমণী হিসেবে পরিচিতি আছে অভিনেত্রী শ্রীলেখা মিত্রের। তার স্পষ্ট প্রমাণ পাওয়া যায় সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে। মাঝে মাঝেই যাকে তাকে আক্রমণ করে বসেন কথা দিয়ে। এবার আর সে পথে হাঁটলেন না অভিনেত্রী। উল্টো খোলাখুলি কথা বললেন নিজের যৌন জীবন নিয়ে। সম্প্রতি টলিউড অভিনেত্রী মমতা শঙ্করের ‘শাড়ির আঁচল’ মন্তব্যে তোলপাড় টলিপাড়া। নারীবাদীদের একটা বড় অংশের দাবি ওই বক্তব্যে ‘দেহ পসারিনী’ বা ‘যৌনকর্মী’দের অপমান করেছেন। এ প্রসঙ্গে কথা বলতে গিয়ে ভারতীয় সংবাদমাধ্যমের সামনে খুলে দিলেন নিজের যৌন জীবন। পুরুষ যৌন কর্মীর প্রয়োজনীয়তা নিয়ে বলেন, হতেই পারে। যে মহিলার বর তার সঙ্গে কিছু করছে না, কিংবা যে মহিলার ইচ্ছে হয়েছে। আমার জিগালোর দরকার নেই, আশা করছি তোমারও দরকার নেই। অভিনেত্রী বলেন, আমি এখন স্পিরিচুয়াল হয়ে গেছি। জীবনের এই ধাপটায় এসে আমি যার তার সাথে আমি পারব না। আমার প্রায় দেড়-দুই-বছর হলো জীবনযাপন নেই। অভিনেত্রীর জীবনে এসেছিল বিদেশি পুরুষ। মিষ্টি প্রেমের গল্পও রয়েছে।  সে গল্প ফাঁস করে অভিনেত্রী বলেন, কথাবার্তা হয়। ডেভিড বলে স্প্যানিশ-আমেরিকান। খুব মিষ্ট একটা ব্যাপার হয়েছিল, ছোট্ট লাভস্টোরি গোছের। আমার জীবনে ভালো লাগাটা জরুরি।
অন্যের ভালো লাগবে বলে জামা পরি : অপরাজিতা
কলকাতার জনপ্রিয় অভিনেত্রী অপরাজিতা আঢ্য। অভিনয়ের পাশাপাশি ব্যক্তিজীবন নিয়েও বেশ সাহসী এই অভিনেত্রী। সম্প্রতি মুখোমুখি হয়েছিলেন আনন্দবাজার পত্রিকার। সেখানে কথা বলেন নানান বিষয়ে। এক প্রশ্নের জবাবে অপরাজিতা বলেন, আমার মনে হয়, কে কী ভাবে শাড়ি পরবেন, সেটা তার ব্যক্তিত্বের ওপর নির্ভর করে। আমার খুব ভাল চেহারা, আমি চাই মানুষের প্রশংসার তীব্রতা আমাকে আকর্ষণ করুক। তার চোখে দারুণ দেখতে লাগছে। কেউ যদি লো কাট ব্লাউজের সঙ্গে শিফন শাড়ি পরেন, তিনি যদি আত্মবিশ্বাসী হন, তাহলে পরবেন। তিনি আরও বলেন, আমরা তো নিজের জন্য জামাকাপড় পরি না, অন্যের আমাকে ভালো লাগবে বলে পরি। মানুষ যদি শুধু নিজের জন্য জামাকাপড় পরত, তাহলে তো ম্যাক্সি পরেই কেটে যেত। কিন্তু আমার ব্যক্তিগত মত, আমি নিজে এমন পোশাক পরব যা সর্বজনগ্রাহ্য। পোশাকের মাধ্যমে কোনো ব্যক্তি কী ধরনের বার্তা দিতে চাইছেন, সেটা তার মানসিকতার ওপর নির্ভর করে। অভিনেত্রীর এমন মন্তব্যে নেটিজেনরা মেতেছেন নানা কথায়, নানা সমালোচনায়।
বাবা-মেয়ের অভিনয় করলেও প্রেম করছেন তারা!
‘পুণ্যিপুকুর’ নামের ধারাবাহিকে অম্বরীশ ভট্টাচার্যের মেয়ের চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন আয়েশা ভট্টাচার্য। তবে গুঞ্জন উঠেছে বাস্তবে নাকি তাদের সম্পর্কটা উল্টো। বয়সে ফারাক হলেও মনে মনে মিলে গেছেন তারা। চুটিয়ে প্রেম করছেন এই দুই অভিনয়শিল্পী। ভারতীয় সংবাদমাধ্যমের এক প্রতিবেদনে উঠে এসেছে  তারা। এদিকে এ রটনা রটতেই শুরু হয়ে গেছে কানকথা। কাঞ্চন মল্লিক-শ্রীময়ী চট্টোরাজ, দোলন রায়-দীপঙ্কর দাসের পর কি তাহলে আরও এক ‘বিতর্কিত বিয়ে’ আসতে চলেছে সামনে? তবে এমন জল্পনা হেসে উড়িয়ে দিয়েছেন আয়েশা। সংবাদমাধ্যমকে বলেন, ‘প্রেম করছি না, অম্বরীশদার প্রেমিকার চরিত্রে অভিনয় করছি।’ তিনি আরও বলেন, মাঝে মাঝে এমন খবর রটে’! বিস্তারে বুঝিয়ে বলেন, অম্বরীশের সঙ্গে তিনি প্রেম করছেন না। বরং একসঙ্গে একটি সিনেমা করছেন। যেখানে তাকে অম্বরীশের প্রেমিকার চরিত্রেই দেখা যাবে। সেটায় নিঃসন্দেহে অসমবয়সী প্রেম দেখতে পাবে দর্শকরা, বাস্তবে নয়। শিগগিরই মুক্তি পাচ্ছে অম্বরীশ-আয়েশার ছবি ‘ব্যুমেরাং’। এতে আরও অভিনয় করেছেন জিৎ-রুক্মিণী। ছবিটি নির্মাণ করেছেন সৌভিক কুণ্ডু। 
আমার পিঠেও ছুরি মারা হয়েছিল : দেব
পশ্চিমবঙ্গের জনপ্রিয় অভিনেতা দেব। ক্যারিয়ারে অসংখ্য হিট সিনেমা উপহার দিয়েছেন তিনি। অভিনয়ের পাশাপাশি রাজনীতির মাঠেও বেশ সক্রিয় এই অভিনেতা। বর্তমানে ঘাটালে নির্বাচনী প্রচারণায় ব্যস্ত সময় করছেন দেব। সম্প্রতি কলকাতায় ফিরে ভারতীয় গণমাধ্যমে বাংলা সিনেমাসহ নিজের কাজের নানান বিষয় নিয়ে কথা বলেন দেব। এ সময় অভিনেতা জানান, প্রযোজনায় নাম লেখানোর পর নাকি তার পিঠেও ছুরি মারা হয়েছিল।  দেব বলেন, ‘প্রধান’ সিনেমাও হিন্দি সিনেমার সঙ্গে লড়াই করে বক্স অফিসে নিজের জায়গা করে নিয়েছিল। এই লড়াইটা চলতেই থাকবে। আগে কলকাতা এবং গঙ্গার ওপারের দর্শককে একজোট করার লড়াই ছিল। এখন সেটা বাংলা সিনেমা এবং দর্শককে এক করার লড়াই। তবে শুধু নিজের সিনেমা নয়, একসঙ্গে অন্যদের সিনেমাগুলোও সফল হতে হবে। আর সেটা হলেই উদ্দেশ্য পূরণ হবে। নতুনদের বরাবরই সাহায্য করতে পছন্দ করেন দেব। অঙ্কুশের ‘মির্জা’ সিনেয়ার জন্য তাকে অনেক সাহায্য করেছিলেন দেব। এমনকি দেবের ইউটিউব চ্যানেলেও ছবিটির ট্রেলার প্রকাশ করা হয়।  এই প্রসঙ্গটি উঠতেই দেব বলেন, আমি প্রযোজনায় আসার পর অনেকেই আমার পিঠে ছুরি মেরেছিল! তাই নতুন কারও যন্ত্রণাটা আমি বুঝি। আমি চাই না জুনিয়ররা সেই একই অভিজ্ঞতার সম্মুখীন হোক। শুধু যে অঙ্কুশকে সাহায্য করেছেন তা নয়, যশ ও নুসরতের প্রযোজিত সিনেমা ‘সেন্টিমেন্টাল’র জন্যও শুরু থেকে পাশে ছিলেন দেব। বিক্রম চট্টোপাধ্যায় অভিনীত ‘পারিয়া’র ক্ষেত্রেও তার পাশে দেখা গেছে এই অভিনেতাকে।    সিনেমা ছাড়া নিজের নির্বাচনের প্রচারণার নানান দিক নিয়েও কথা বলেন দেব। তিনি বলেন, রাস্তায় অগণিত মানুষ ঘণ্টার পর ঘণ্টা অপেক্ষা করছেন। অভিযোগও করছেন অনেকে। কোথাও আমি দেরিতে পৌঁছালে ওদের দেখে নিজেরই খারাপ লাগছে। কিন্তু শেষ পর্যন্ত আমাকে দেখার পর মানুষের মুখে হাসি দেখে সামনে এগিয়ে চলার শক্তি পাচ্ছি।   প্রসঙ্গত, আগামী দুইমাস ভোট নিয়ে ব্যস্ত থাকবেন দেব। তবে এর মাঝেই সময় বের করে ‘টেক্কা’ সিনেমার এক দিনের শুটিংও শেষ করবেন তিনি। এ ছাড়া ভোটের পর অভিনেতার পরবর্তী ‘খাদান’র শুটিং শুরু করবেন।   সূত্র : আনন্দবাজার
গুরুতর আহত কোয়েল মল্লিক
ওপার বাংলার জনপ্রিয় অভিনেত্রী কোয়েল মল্লিক গুরুতর আহত হয়েছেন। ‘মিতিন মাসি’ সিরিজের শুটিং করতে গিয়ে আহত হন এই অভিনেত্রী। হাতে বড় ধরনের আঘাত পেয়েছেন। দুর্ঘটনার পর তাকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। হিন্দুস্তান টাইমসের তথ্য অনুসারে,  রোবাবার (৩১ মার্চ) নেপালগঞ্জে ‘মিতিন মাসি’ সিরিজের নতুন সিনেমার শুটিং চলাকালে গুরুতর আহত হন কোয়েল মল্লিক। হাতে বড় ধরনের আঘাত পেয়েছেন। দুর্ঘটনার পর তাকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। চিকিৎসকরা তার হাতে প্লাস্টার করে দেন। অন্য একটি ভারতীয় গণমাধ্যমে পরিচালক অরিন্দম শীল জানান, ঘটনা ঘটার পর এতটাই ব্যথা ছিল যে, কোয়েল হাত নাড়াতে পারছিল না। তখনই সন্দেহ হয়েছিল কোয়েলের হাত ভেঙেছে। এক্সরে রিপোর্ট আসার পর দেখা গেলো, প্রাথমিক সন্দেহ সঠিক। হাতের হাড় ভেঙে গেছে কোয়েল মল্লিকের। আপাতত একটি বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন কোয়েল মল্লিক। অভিনেত্রী জানিয়েছেন, বিকাশ কাপুরের চিকিৎসায় দ্রুত সুস্থ হয়ে উঠবেন তিনি। ২০১৯ সালে মুক্তি পায় ‘মিতিন মাসি’। গত বছর মুক্তি পায় এ সিরিজের দ্বিতীয় পার্ট ‘জঙ্গলে মিতিন মাসি’। এবার নির্মিত হচ্ছে ‘একটি খুনির সন্ধানে’। সুচিত্রা ভট্টাচার্যের লেখা ‘মিতিন মাসি’ সিরিজের ‘মেঘের পরে মেঘ’ গল্প অবলম্বনে নির্মিত হচ্ছে নতুন এই সিরিজ। মিতিন মাসি চরিত্রে অভিনয় করছেন কোয়েল মল্লিক। অন্যান্য চরিত্রে অভিনয় করছেন মধুরিমা বসাক, কনীনিকা ব্যানার্জি, শুভ্রজিৎ দত্ত, গৌরব চক্রবর্তী, সাহেব চ্যাটার্জি, অনসূয়া মজুমদার প্রমুখ। এটি পরিচালনা করছেন অরিন্দম শীল। প্রযোজনা করছে সুরিন্দর ফিল্মস। কলকাতাসহ নেপালগঞ্জের বিভিন্ন জায়গায় দৃশ্যধারণের কাজ হবে।