• ঢাকা বুধবার, ২৪ জুলাই ২০২৪, ৯ শ্রাবণ ১৪৩১
logo
মা হলেন অভিনেত্রী রিচা চাড্ডা
শর্মিলা ঠাকুরকে যে কারণে থাপ্পড় মেরেছিলেন প্রসেনজিৎ
বলিউডের বরেণ্য অভিনেত্রী শর্মিলা ঠাকুর। ক্যারিয়ারে অসংখ্য সিনেমা করেছেন তিনি। তবে এই গুণী অভিনেত্রীকে থাপ্পড় মেরেছিলেন পশ্চিমবঙ্গের জনপ্রিয় অভিনেতা  প্রসেনজিৎ চ্যাটার্জি। সম্প্রতি একটি সিনেমার প্রচারণায় স্মৃতিচারণ করতে গিয়ে এসব কথা বলেন তিনি। ভারতীয় গণমাধ্যম হিন্দুস্তান টাইমসের প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, প্রসেনজিতের বাবা অভিনেতা বিশ্বজিৎ চ্যাটার্জি। ছোটবেলায় বাবার সঙ্গে শুটিং সেটে যেতেন তিনি। মূলত শুটিং সেটেই এ কাণ্ড ঘটিয়েছিলেন প্রসেনজিৎ।  এ প্রসঙ্গে অভিনেতা বলেন, তখন আমার বয়স কত হবে, ৪ কিংবা ৫ বছর। রোমান্টিক একটি দৃশ্যের শুটিংয়ের সময় নায়িকা নায়ককে থাপ্পড় মারেন। মানে শর্মিলা আন্টি বাবাকে থাপ্পড় মারেন। এরপরই এ ঘটনা ঘটাই আমি। থাপ্পড় মারার ঘটনা ব্যাখ্যা করে তিনি বলেন, লাঞ্চ ব্রেকের সময়ে উনি (শর্মিলা ঠাকুর) আমাকে ডেকে কোলে নিয়েছিলেন। আর আমি উনাকে থাপ্পড় মারি। এখনও যখন তার সঙ্গে আমার দেখা হয়, তখন তিনি আমাকে থাপ্পড় মারার ঘটনা মনে করিয়ে দেন। আর আমাকে বলেন, ‘তুমি আমাকে থাপ্পড় মেরেছিলে, কারণ আমি তোমার বাবাকে থাপ্পড় মেরেছিলাম।’ হিন্দির পাশাপাশি ভারতীয় বাংলা সিনেমায়ও অভিনয় করেছেন শর্মিলা ঠাকুর। ‘প্রভাতের রং’ এবং ‘ইয়ে রাত ফির না আয়েগি’ সিনেমায় বিশ্বজিৎ চ্যাটার্জির সঙ্গে কাজ করেছেন তিনি। ব্যক্তিগত জীবনে ১৯৬০ সালে রত্না চ্যাটার্জিকে বিয়ে করেন বিশ্বজিৎ চ্যাটার্জি। এ সংসারে জন্ম নেয় প্রসেনজিৎ ও অর্পিতা। বাবার পথ অনুসরণ করে রুপালি জগতে পা রেখে নিজেকে প্রতিষ্ঠা করেছেন প্রসেনজিৎ।  
অনন্ত আম্বানির বিয়েতে বোমাতঙ্ক ছড়িয়ে গ্রেপ্তার যুবক
নতুন প্রেমে মজলেন মালাইকা অরোরা
ক্ষতচিহ্ন লুকিয়ে ফের শুটিংয়ে ক্যানসার আক্রান্ত হিনা খান
আম্বানির ছেলের বিয়েতে শেরওয়ানি গায়ে কুকুর ‘হ্যাপি’
ভিডিও ভাইরাল, ঐশ্বরিয়া-অভিষেককে নিয়ে নতুন গুঞ্জন
সম্প্রতি শেষ হয়েছে ভারতের শীর্ষ ধনকুবের মুকেশ আম্বানিপুত্র অনন্ত আম্বানির রাজকীয় বিয়ের অনুষ্ঠান। আয়োজন ঘিরে শুক্রবার (১২ জুলাই) সন্ধ্যা থেকেই মুম্বাইয়ের জিও ওয়ার্ল্ড কনভেনশন সেন্টারে বসে তারকাদের চাঁদের হাঁট। জমকালো এ বিয়ের আসরে উপস্থিত ছিলেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি, বলিউড থেকে হলিউড, ভারতীয় ক্রিকেট দলের তারকা থেকে শুরু করে বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বরা হাজির হয়েছেন বিয়েতে।  এদিকে অনন্ত আম্বানি-রাধিকা মার্চেন্টের বিয়েতে একসঙ্গে পা রাখেননি অভিষেক-ঐশ্বরিয়া। তা দেখে তুমুল শোরগোল সোশ্যাল মিডিয়ায়। বিয়ে ভাঙছে অভিষেক বচ্চন-ঐশ্বরিয়া রাইয়ের, এমনটাই মনে করে নিয়েছেন অনেকে। কিন্তু ভিন্ন চিত্রও আছে। বিয়ের অনুষ্ঠানের আরেকটি ভিডিওতে অভিষেকের সাথেই দেখা গেছে ঐশ্বরিয়াকে।  বিয়ের দিন বচ্চন পরিবারের সাথে ছবি না তুললেও অভিষেকের সঙ্গে বসতে দেখা গেছে ঐশ্বরিয়াকে। শুধু তাই নয়, হৃতিকের সঙ্গে হাসি-ঠাট্টায় মেতে উঠতেও দেখা গেছে দুজনকে। তাদের সাথে আরাধ্যও ছিল। সামাজিক মাধ্যমে এখন ভাইরাল সেই ভিডিও। এর আগে অনুষ্ঠানে হাতে হাত রেখে উপস্থিত হন অমিতাভ বচ্চন ও জয়া বচ্চন। তাদের সঙ্গে ছিলেন শ্বেতা নন্দা, নিখিল নন্দা, নব্যা নভেলি নন্দা, অগ্যস্ত নন্দা, অভিষেক বচ্চন। ছিলেন না শুধু ঐশ্বরিয়া আর আরাধ্য বচ্চন! পরে মা-মেয়ে আলাদা ক্যামেরার সামনে পোজ দেন। তা দেখে অনেকেই অভিষেক-ঐশ্বরিয়ার সম্পর্ক নিয়ে শঙ্কায় ছিলেন। দুজনের একসঙ্গে হাসি-গল্প মেতে ওঠার ভিডিও দেখে স্বস্তি প্রকাশ করেছেন অনেকেই। এদিকে অভিষেক-ঐশ্বরিয়াকে নিয়ে চলছে  নানা চর্চা। অনেকের মতে, অভিষেক আলাদা বাড়ি কিনেছেন। দুজনের সম্পর্কটা ঠিক থাকলে হয়তো বাবা-মাকে ছেড়ে সেখানেই ঐশ্বরিয়াকে নিয়ে থাকবেন অভিষেক।  এদিকে, একসঙ্গে বসে বিয়ের অনুষ্ঠান দেখলেও মঙ্গল উৎসবে তাদের এক ফ্রেমে দেখা যায়নি। তাই পুরাপুরি দুশ্চিন্তা মুক্ত হওয়ার সুযোগ নেই ভক্তদের।
আম্বানিপুত্রের বিয়েতে রাস্তায় শুয়ে রণবীর সিংয়ের নাগিন ড্যান্স!
নানান আয়জনের পর অবশেষে শুরু হয়েছে ভারতের শীর্ষ ধনকুবের মুকেশ আম্বানিপুত্র অনন্ত আম্বানির রাজকীয় বিয়ের অনুষ্ঠান। আয়োজন ঘিরে শুক্রবার (১২ জুলাই) সন্ধ্যা থেকেই মুম্বাইয়ের জিও ওয়ার্ল্ড কনভেনশন সেন্টারে বসে তারকাদের চাঁদের হাঁট। এদিন রাতেই চার হাত এক হয়েছে অনন্ত-রাধিকার। জমকালো এ বিয়ের আসরে উপস্থিত ছিলেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি, বলিউড থেকে হলিউড, ভারতীয় ক্রিকেট দলের তারকা থেকে শুরু করে বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বরা হাজির হয়েছেন বিয়েতে। এই মহা আয়োজনে দেখা মিলেছে রেসলিংয়ের সাবেক চ্যাম্পিয়ন ও হলিউড অভিনেতা জন সিনার। একেবারে দেশি লুকেই চমকে দিয়েছেন তিনি।  এদিকে বিয়ের পর্ব মিটলেও যেন তার রেশ এখনও কাটেনি। সোশ্যাল মিডিয়ায় ঢু মারলেই দেখা যাচ্ছে বিয়েতে আগত নায়ক-নায়িকাদের নানা মুহুর্তের ভিডিও। এরমধ্যে ভাইরাল হলো রণবীর সিংয়ের নাগিন ড্যান্সের নাচের ভিডিও! রীতিমতো রাস্তায় শুয়ে নাগিন ড্যান্স করেছিলেন।  ভিডিওতে দেখা গেছে, রণবীর সিং এবং বীর পাহারিয়া দুজনেই ঢোলের আওয়াজের সঙ্গে জমিয়ে নাচ করছেন। তখন তাদের সঙ্গে যোগ দেন অর্জুন কাপুর। এরপরই বীর পাহাড়িয়াকে সাপুড়ে হয়ে নাচতে দেখা যায়। আর রাস্তায় শুয়ে নাগিন ড্যান্স শুরু করে দেন রণবীর। পরে আবার বীর রাস্তায় শুয়ে গড়াগড়ি খান আর রণবীর তার সামনে হাঁটু গেড়ে বসে বীণ বাজানোর অঙ্গভঙ্গি করতে থাকেন।
জন সিনার জীবন বদলে দিয়েছেন শাহরুখ খান!
নানান আয়জনের পর অবশেষে শুরু হয়েছে ভারতের শীর্ষ ধনকুবের মুকেশ আম্বানিপুত্র অনন্ত আম্বানির রাজকীয় বিয়ের অনুষ্ঠান। আয়োজন ঘিরে শুক্রবার (১২ জুলাই) সন্ধ্যা থেকেই মুম্বাইয়ের জিও ওয়ার্ল্ড কনভেনশন সেন্টারে বসে তারকাদের চাঁদের হাঁট। এদিন রাতেই চার হাত এক হয়েছে অনন্ত-রাধিকার। জমকালো এ বিয়ের আসরে উপস্থিত ছিলেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি, বলিউড থেকে হলিউড, ভারতীয় ক্রিকেট দলের তারকা থেকে শুরু করে বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বরা হাজির হয়েছেন বিয়েতে। আর এই মহা আয়োজনে দেখা মিলেছে রেসলিংয়ের সাবেক চ্যাম্পিয়ন ও হলিউড অভিনেতা জন সিনার। একেবারে দেশি লুকেই চমকে দিয়েছেন তিনি। বিয়ের অনুষ্ঠানে জন সিনার দেখা হয়েছে দেশ-বিদেশের একঝাঁক অতিথিদের পাশাপাশি এমন একজন মানুষের সঙ্গে, যে তার জীবন বদলে দিয়েছিল একটা সময়। তিনি সবসময়ের জন্য সেই ব্যক্তির কাছে কৃতজ্ঞ থাকবেন বলেও জানান জন সিনা। সামাজিক মাধ্যমে সেই ব্যক্তির ছবি শেয়ার করে জন সিনা জানালেন নিজের অনুভূতি। কিন্তু কে সেই ব্যক্তি? তিনি আর কেউ নন, বলিউড বাদশা শাহরুখ খান! বিয়ে থেকে দেশে ফেরার পর জন সিনা সামাজিক মাধ্যমে একটি পোস্ট করেছেন। যেখানে তিনি অনন্ত আম্বানি এবং রাধিকার বিয়েতে যোগ দেওয়ার অভিজ্ঞতা শেয়ার করেছেন। সেই পোস্টে শাহরুখের কথা উল্লেখ করে জন সিনা লিখেছেন, তার জীবনে ইতিবাচক প্রভাব ফেলেছেন শাহরুখ খান। জন সিনা এক্সে (টুইটার) রাধিকা এবং অনন্তের বিয়ে থেকে শাহরুখের সঙ্গে তার ছবি শেয়ার করেছেন। তিনি লিখেছেন, এটি একটি অনন্য এবং আশ্চর্যজনক মুহূর্ত। ২৪ ঘণ্টা অসাধারণ কেটেছে। এই সময়টাকে এখনও বিশ্বাস করতে পারছি না। আমি আম্বানি পরিবারের প্রতি অত্যন্ত কৃতজ্ঞ এবং আথিতেয়তায় আমি মুগ্ধ। অনেক অবিস্মরণীয় মুহূর্ত দিয়ে ভরা একটি অভিজ্ঞতা। যা আমাকে অগণিত নতুন বন্ধুদের সঙ্গে দেখা করার সুযোগ করে দিয়েছে। এর মধ্যে শাহরুখ খানও রয়েছেন। তাকে ব্যক্তিগতভাবে বলতে পেরেছি যে তিনি আমার জীবনে কতটা পজিটিভ প্রভাব রেখেছেন। জন সিনার এই পোস্ট দেখে বেশ উচ্ছ্বসিত শাহরুখ ভক্তরাও। রীতিমতো জন সিনার ভক্ত হয়ে উঠেছেন অনেকে এবং প্রশংসাও করেছেন। প্রসঙ্গত, জন সিনাকে সামনে দেখা যাবে প্রিয়াঙ্কা চোপড়ার সঙ্গে দেখা যাবে ‘হেডস অফ স্টেট’ চলচ্চিত্র। সিনেমাটির শ্যুটিং চলছে। ইতোমধ্যেই রেসলিং ছেড়ে হলিউডে নিজের অবস্থান শক্ত করছেন এই অভিনেতা।
আম্বানির ৫ হাজার কোটি টাকার বিয়েতে রান্না করেছে বিশ্ব বিখ্যাত রাঁধুনি
২০২৩ সালে বিশ্বের সেরা রেস্তোরাঁর তালিকায় উপরের দিকেই ছিল পেরুর রাজধানী লিমায় অবস্থিত ভার্জিলিও মার্টিনেজের ফাইন ডাইনিং রেস্টুরেন্টের নাম। এই রেস্টুরেন্টের টেবিল বুক করতে পারা নাকি শুধুমাত্র সৌভাগ্যবানদের জন্যই বরাদ্দ।  যার হাত ধরে এই রেস্তোরাঁটি বিখ্যাত সেই ভার্জিলিও মার্টিনেজের উপরেই ছিল ভারতের শীর্ষ ধনী মুকেশ আম্বানির ছেলের বিয়ের রান্নার সকল দায়িত্ব। তবে অনন্ত আম্বানি ও রাধিকা মার্চেন্টের জাঁকজমকপূর্ণ বিয়েতে অংশ নেওয়া অতিথিদের মার্টিনেজের রান্না উপভোগ করতে পেরুতে উড়ে যেতে হয়নি।  কোটিপতি আম্বানি পরিবার বিশ্বের শীর্ষ শেফ এবং তার দলকে তাদের অতিথিদের মুগ্ধ করতে মুম্বাইয়ে উড়িয়ে এনেছিলেন। যেখানে ভার্জিলিও মার্টিনেজ গুজরাটি বিয়ের জন্য একটি সম্পূর্ণ নিরামিষ মেনু তৈরি করেছেন।  সম্প্রতি এক্স-এ ভাইরাল হওয়া একটি পোস্টে অনন্ত আম্বানির বিয়ের জন্য বিশ্বের সেরা রেস্তোরাঁর কর্ণধার শেফের তৈরি টেস্টিং মেনু দেখানো হয়েছে। যেই তালিকায়  আটটি খাবারের মধ্যে রয়েছে ‘কাজু রোল, মাউন্টেন চিমিচুরি, ফ্রেশ পনির’, ‘চরম অলটিচিউডের বীজ, স্মোকড টমেটো’ এবং ‘অ্যামাজোনিয়ান কাসাভা টেক্সচার, নারকেল দুধ’-এর মতো খাবার।  খাবারের মেনু দেখে নেটিজেনরাও বিভিন্ন মজার প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন। কেউ লিখেছেন, ‘৫০ শতাংশ খাবারের অর্থ কী তা আমি বুঝতে পারছি না,’ একজন মন্তব্য করেছেন, ‘আমি শুধু জানতে চাই পেস্তা বাঘের দুধ কী?’ মার্টিনেজ অবশ্য বেশ কয়েক জন বিশ্বমানের শেফের মধ্যে একজন। যারা এই হাই-প্রোফাইল বিয়ের খাবার পরিবেশন করেছেন। প্রায় ৫ হাজার কোটি টাকা খরচের এই বিয়েতে কোনো কিছুর কমতি রাখেনি আম্বানী পরিবার।  অতিথিদের তালিকায় ছিলেন প্রাক্তন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন, রিয়েলিটি টিভি তারকা কিম কার্দাশিয়ান, অভিনেতা এবং কুস্তিগীর জন সিনা, বলিউড বাদশাহ শাহরুখ খান, সালমান খান, অমিতাভ বচ্চন, প্রিয়াঙ্কা চোপড়াসহ আরও অনেক ভিআইপি। নিউজ ওয়েবসাইট পেরু টোয়েন্টিওয়ানের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মার্টিনেজের সঙ্গে মুম্বাইয়ে তার ১৩ জনের টিম ছিল। যারা অতিথিদের নিজের হাতের জাদুতে বিভিন্ন আইটেমের রান্নার পরিবেশনের দায়িত্ব পেয়েছিলেন। 
বিনা দাওয়াতে আম্বানির ছেলের বিয়েতে গিয়ে গ্রেপ্তার দুই ইউটিউবার
নানান আয়জনের পর অবশেষে শুরু হয়েছে ভারতের শীর্ষ ধনকুবের মুকেশ আম্বানিপুত্র অনন্ত আম্বানির রাজকীয় বিয়ের অনুষ্ঠান। আয়োজন ঘিরে শুক্রবার (১২ জুলাই) সন্ধ্যা থেকেই মুম্বাইয়ের জিও ওয়ার্ল্ড কনভেনশন সেন্টারে বসে তারকাদের চাঁদের হাঁট। এদিন রাতেই চার হাত এক হয়েছে অনন্ত-রাধিকার। জমকালো এ বিয়ের আসরে উপস্থিত ছিলেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি থেকে শোবিজ অঙ্গনের তারকাসহ বিশ্ব তারকারা। এবার জানা গেল, বিয়ের অনুষ্ঠানে আমন্ত্রিত তারকাদের বিলাসবহুল ঘড়ি উপহার দিয়েছেন অনন্ত আম্বানি। এদিকে রাজকীয় এই  বিয়েতে নিরাপত্তা ব্যবস্থাও ছিল চোখে পড়ার মতো। তবুও জমকালো এই আয়োজনে বিনা দাওয়াতে অবৈধভাবে ভেন্যুতে প্রবেশের অভিযোগের পৃথক ঘটনায় দুই ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। নিরাপত্তা কর্মীরা তাদের সন্দেহজনক গতিবিধি লক্ষ্য করে অভিযুক্তদের ধরে ফেলেন। পরে পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয়। এফআইআরে বলা হয়েছে, শনিবার (১৩ জুলাই)  ভোরে জিও ওয়ার্ল্ড সেন্টারের দোতলায় এক ব্যক্তিকে সন্দেহজনক আচরণ করতে দেখা যায়। লাল ওই ব্যক্তিকে তার সিকিউরিটি ইনচার্জ মণীশ শ্যামলেটির কাছে নিয়ে আসেন, যিনি তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করেন এবং পরে তাকে বান্দ্রা-কুরলা কমপ্লেক্স পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয়। পুলিশ জানিয়েছে, ভিরারের ব্যবসায়ী লুকমান মোহাম্মদ শফি শেখ (২৮) নামে ওই ব্যক্তি ১০ নম্বর গেট দিয়ে অবৈধভাবে অনুষ্ঠানস্থলে প্রবেশ করেন। শনিবার (১৩ জুলাই) ছিল অনন্ত-রাধিকার শুভ আশীর্বাদের অনুষ্ঠান। ভেন্যুতে প্রবেশের জন্য বিশেষ পাস দেওয়া হয়েছিল সবাইকে। শেখ পরে স্বীকার করেন, কৌতূহলবশত আম্বানির ছেলের বিয়েতে হাজির হয়েছেন তিনি। দ্বিতীয় ঘটনায়, শুক্রবার (১২ জুলাই) সকালে জিও ওয়ার্ল্ড সেন্টারের ১ নম্বর প্যাভিলিয়নের নিরাপত্তা কর্মীরা এক ব্যক্তিকে সন্দেহজনক আচরণ করতে দেখেন। সঙ্গে সঙ্গে তাকে আটক করা হয়। আটকের পর তিনি জানান, ইউটিউব চ্যানেলের জন্য ভিডিও ফুটেজ সংগ্রহ করতে এমন কীর্তি ঘটিয়েছেন।  মুম্বাই পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, দুই অভিযুক্তর বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধি, ২০২৩-এর ৩২৯ ধারা (অপরাধমূলক অনধিকার প্রবেশ এবং গৃহ-অনধিকারপ্রবেশ)-র অধীনে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।
অভিষেককে রেখে সালমানের সঙ্গে ঐশ্বরিয়া, আলোচনার ঝড়
নানান আয়োজনের পর অবশেষে শুরু হয়েছে ভারতের শীর্ষ ধনকুবের মুকেশ আম্বানিপুত্র অনন্ত আম্বানির রাজকীয় বিয়ের অনুষ্ঠান। আয়োজন ঘিরে শুক্রবার (১২ জুলাই) সন্ধ্যা থেকেই মুম্বাইয়ের জিও ওয়ার্ল্ড কনভেনশন সেন্টারে বসে তারকাদের চাঁদের হাট। এদিন রাতেই চার হাত এক হয়েছে অনন্ত-রাধিকার। জমকালো এ বিয়ের আসরে উপস্থিত ছিলেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি থেকে শোবিজ অঙ্গনের তারকাসহ বিশ্ব তারকারা। আর এই মহা আয়োজনে দেখা মিলেছে বলিউড মেগাস্টার সালমান খান ও সাবেক বিশ্বসুন্দরী এশ্বরিয়া রাই বচ্চনেরও। তবে বিয়েবাড়ির একটি ছবি ইন্টারনেটে বেশ তুলকালাম সৃষ্টি করেছে। যে ছবিতে দেখা যাচ্ছে, সালমান খানের হাত ধরে পোজ দিচ্ছেন এশ্বরিয়া রাই বচ্চন। ছবিটি রীতিমতো আলোড়ন ফেলেছে উভয়ের ভক্তদের মাঝে। বিগত কয়েক বছর ধরে সালমানের সঙ্গে কথা পর্যন্ত বলতে দেখা যায়নি ঐশ্বরিয়াকে। আর সে কিনা প্রকাশ্যে সালমান খানের হাত ধরে আছেন? তবে প্রথমে বিভ্রান্তি সৃষ্টি করলেও পরে জানা যায় ছবিটি আসলে ভূয়া। ছবিটি সম্পূর্ণ ‘এআই জেনারেটেড’ বলে জানা গেছে। এক ভক্ত ছবিটি তৈরি করেছেন। আসল ছবিটিতে শুধু সালমান ও তার বোন অর্পিতা পাশাপাশি দাঁড়িয়ে ছবি তুলেছেন। সেটিই এডিট করে ঐশ্বরিয়াকে পাশে বসিয়ে দিয়েছেন সেই ভক্ত। ব্যস, ভাইরাল হয়ে যায় সেই ছবি। নব্বইয়ের দশকের শেষের দিকে শুরু হয়েছিল সালমান খান এবং ঐশ্বরিয়া রাইয়ের প্রেমের গল্প, যা অবশেষে তিক্ত বিচ্ছেদের মধ্য দিয়ে শেষ হয়। তাদের অতীতের সম্পর্কটি আজও বহুল আলোচিত। এখনও ঐশ্বরিয়া-সালমানের নাম একসঙ্গে নিতেই পছন্দ করেন বহু অনুরাগী। যার ফলে দুজনের এডিট করা ছবিই রীতিমতো ঝড় তুলেছে ইন্টারনেটে।
সিনেমার শুটিংয়ের সময় গর্ভবতী অভিনেত্রী, অতঃপর...
বলিউডের বর্ষীয়ান অভিনেত্রী জিনাত আমান সম্প্রতি তার সোশাল মিডিয়ায় ১৯৮৭ সালের ‘ডাকু হাসিনা’ চলচ্চিত্রের চিত্রগ্রহণের সময়কার স্মৃতিচারণ করেছেন। তিনি জানিয়েছেন যে শুটিং চলাকালে গর্ভবতী হয়ে পড়ে ছবির ক্রু মেম্বারদের তার বেবি বাম্প লুকোনোর জন্য প্রচুর পরিশ্রম করতে হয়েছিল। ইনস্টাগ্রামে অশোক রাও-পরিচালিত ছবির ভিনটেজ শট এবং পোস্টার শেয়ার করে জিনাত লিখেছেন, বিরতির নেওয়ার আগে আগে এটি আমার করা শেষ চলচ্চিত্রগুলোর মধ্যে একটি ছিল। আমি শুটের প্রথম দিকে গর্ভবতী হয়ে পড়েছিলাম এবং চিত্রগ্রহণের শেষে আমি তৃতীয় ত্রৈমাসিকে ছিলাম! আমার দুরন্ত ফিগার স্বাভাবিকভাবেই নষ্ট হয়ে গিয়েছিল, আমার ফুলে যাওয়া পেট লুকোনোর জন্য ক্রুরা বিভিন্ন ক্রিয়েটিভ শট নিয়েছিলেন। অভিনেত্রী বলেছেন যে কিছু ক্রিয়েটিভ শট তাকে তষর সন্তানের নিরাপত্তা নিয়ে উদ্বিগ্ন করেছিল। এর মধ্যে একটি দৃশ্যে আমাকে ঘোড়ায় চড়তে হয়েছিল। এটি নিয়ে আমি খুবই উদ্বিগ্ন ছিলাম কারণ এর আগে ঘোড়ায় চড়ে শুট করার সময় ঘোড়াটি বিদ্রোহ করেছিল। আমি আমার নিজের নিরাপত্তা নিয়ে নার্ভাস ছিলাম না, কিন্তু আমার গর্ভে থাকা সন্তানের নিরাপত্তা ছিল অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এই ছবিতে জিনাতের প্রাক্তন স্বামী মাজহার খানও অভিনয় করেছিলেন। জিনাত তার সম্মন্ধে লিখেছেন, সিনেমার ক্লিপগুলো খুঁজতে গিয়ে, আমি দেখতে পেলাম যে আমার সন্তানদের বাবা মাজহারও এতে একটি বিশেষ চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন। তিনি সেখানে কাওয়ালি গানের দৃশ্যে ছিলেন, যেটা আমি ভুলে গিয়েছিলাম।  ডাকু হাসিনা রূপাকে ঘিরে আবর্তিত হয়। গ্রামের প্রধানদের হাতে তার বাবা-মাকে হত্যার পর অল্প বয়সে অনাথ একটি মেয়ে। সে তার বাবা-মায়ের মৃত্যুর জন্য দায়ীদের প্রতিশোধ নিতে রজনীকান্ত অভিনীত ডাকাত মঙ্গল সিং-এর সাহায্য চান। তার নির্দেশনায়, তিনি নির্মম ডাকু হাসিনাতে রূপান্তরিত হন এবং তার ত্রাসের রাজত্ব শুরু হয়। পুলিশ তাকে ধরতে চাইলেও ধরতে পারেনি। তারপর গল্পের মোর ঘোরে। গল্পে আসেন রাকেশ রোশান অভিনীত এসপি রঞ্জিত সাক্সেনা। তার আর ডাকু হাসিনার সম্পর্ক ঘিরেই এই ছবি। জিনাতকে এরপর বান টিকিতে অভিনয় করতে দেখা যাবে। তিনি লিখেছেন যে, ডাকু হাসিনা ১৯৮৭ সালে যখন মুক্তি পেয়েছিল তখন ভারতে নারীবাদী ঝড় বইছিল। আইনগত সংস্কার এবং লিঙ্গ বিষয়ে সামাজিক সচেতনতা ছিল এর জন্য ব্যতিক্রমী নারীদের ধন্যবাদ জানাই।   পোস্টে সবার শেষে জিনাত শিকার করেন যে ছবিতে তার নানা লুক থাকলেও ছবিটি সাফল্য পায়নি।