• ঢাকা বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪, ৪ বৈশাখ ১৪৩১
logo
নৌকা বাদ দিলেও ভোট চুরির প্রকল্প থেকে সরেনি সরকার: আমীর খসরু
সরকারকে বিচারের জন্য তৈরি হতে বললেন রিজভী
নিজেদের নেতাকর্মীদের গুমের পেছনে সরকারকে দায়ী করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। আর এজন্য সরকারকে বিচারের সম্মুখীন হতে হবে বলেও হুঁশিয়ার করেছেন তিনি।  রিজভী বলেন, বিএনপির পক্ষ থেকে সরকারের কাছে জোর দাবি জানাচ্ছি এম ইলিয়াস আলীসহ গুমের শিকার সব নেতাকর্মীকে অক্ষত অবস্থায় যার যার পরিবারের কাছে ফিরিয়ে দিন। অন্যথায় একদিন প্রতিটি গুম-খুনের দায়ে বিচারের জন্য তৈরি হোন। বুধবার (১৭ এপ্রিল) সকালে রাজধানীর নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন তিনি। প্রতিটি গুমের ঘটনায় আওয়ামী লীগ সরকারই জড়িত দাবি করে রিজভী বলেন, বিভিন্ন সময় তাদের মুখ থেকেই এ কথা বেরিয়ে আসছে। তাদের কেউ কেউ স্বীকারও করেছেন। গুম এবং বিচারবহির্ভূত হত্যা মানবতার সবচেয়ে ভয়াবহতম অপরাধ। বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব বলেন, এক সময়ের জনপ্রিয় ছাত্রনেতা এম ইলিয়াস আলীর গুমের আজ ১২ বছর পূর্ণ হলো। তাকে ফিরে পাওয়ার অধীর অপেক্ষায় আজও প্রহর গুনছেন তার স্ত্রী, সন্তান, পরিবারসহ দেশের অগণিত নেতাকর্মী। শেখ হাসিনা সরকারের নির্দেশে ২০১২ সালের ১৭ এপ্রিল মধ্যরাতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা গাড়িচালক আনসার আলীসহ তুলে নিয়ে যায় ইলিয়াস আলীকে। এরপর গাড়িটি পাওয়া গেলেও হদিস মেলেনি তাদের। একথা আজ জনগণের সামনে স্পষ্ট যে, এই ফ্যাসিবাদী সরকারই ইলিয়াস আলীকে গুম করেছে।  তিনি বলেন, সরকারের বিরুদ্ধে আপোষহীন সংগ্রাম আর টিপাইমুখ বাঁধ ও সীমান্ত আগ্রাসনের প্রতিবাদে সিলেট অঞ্চলে গড়ে উঠা গণ—আন্দোলনে নেতৃত্বের কারণে ইলিয়াস আলী রাষ্ট্রযন্ত্র ও দেশি, বিদেশি অপশক্তির গাত্রদাহের প্রধান কারণ ছিলেন। ইলিয়াস আলী আধিপত্যবাদের বিরুদ্ধে দাঁড়িয়ে ছিলেন। তার জনপ্রিয়তা ও সাংগঠনিক দক্ষতায় ঈর্ষান্বিত সরকার তাকে রাজনৈতিকভাবে মোকাবিলায় ব্যর্থ হয়ে গুম করে রেখেছে।  
সরকার জুলুমের মাত্রা বৃদ্ধি করেছে : মির্জা ফখরুল
উপজেলা নির্বাচনে অংশ না নেওয়ার সিদ্ধান্ত বিএনপির
ওবায়দুল কাদেরকে উদ্দেশ করে যা বললেন রিজভী
পিটার হাসকে নিয়ে বিএনপির বোধোদয় 
আ.লীগ এখন সম্পূর্ণ দেউলিয়া হয়ে গেছে : মির্জা ফখরুল
আওয়ামী লীগ এখন আওয়ামী লীগ নাই সম্পূর্ণ দেউলিয়া হয়ে গেছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।  রোববার (১৪ এপ্রিল) বিকেলে ঠাকুরগাঁওয়ে এক স্মরণ সভায় তিনি এ কথা বলেন। ফখরুল বলেন, আওয়ামী লীগের রাষ্ট্র পরিচালনা দেখেই বুঝা যায় তারা দেউলিয়া হয়ে গেছে। তারা রাষ্ট্রযন্ত্র ছাড়া কোনো কাজই করতে পারে না। পুলিশ দিয়ে তাদের দেশ পরিচালনা করতে হচ্ছে। তিনি বলেন, ২০১৪ সালে সাধারণ মানুষ নির্বাচন থেকে মুখ ফিরিয়ে নিলেও তারা জয়ী হয়, আবার ১৮ এর নির্বাচন তারা আগের রাতেই করে ফেলে। এবার ডামি প্রার্থী দিয়ে ডামি নির্বাচন করেছে। আওয়ামী লীগ আজ পুরো দেউলিয়া হয়ে গেছে।  বিএনপির এই নেতা বলেন, এই দেশ অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে, আমদানি রপ্তানি কমে গেছে, দেশের ব্যাংকগুলো সরকার শেষ করে দিয়েছে। মেগা প্রজেক্টের নামে মেগা দুর্নীতি বন্ধ না হলে একদিন বাংলাদেশ ধ্বংস হয়ে যাবে।  ফখরুল বলেন, আমার নামে ১১১টি মামলা রয়েছে। জেলে যেতে হয়েছে প্রায় ১১ বার। এ বৃদ্ধ বয়সেও আমাকে এমন হাস্যকর মামলা দিয়ে হেনস্থা করছে তারা। শুধু তাই নয়, খালেদা জিয়ার চিকিৎসা নিয়েও সরকার নানা টালবাহানা করছে।
‘চালের দাম কমানোর কথা বলে আরও বাড়িয়েছে সরকার’
সরকার চালের দাম কমানোর কথা বলে আরও বাড়িয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব অ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী। রোববার (১৪ এপ্রিল) রাজধানীর নয়া পল্টনে বিএনপি কার্যালয়ের সামনে এক অনুষ্ঠানে তিনি এ মন্তব্য করেন। রুহুল কবির রিজভী বলেন, ‘সব জায়গায় লুটপাটের ক্ষেত্র তৈরি হয়েছে। চালের দাম চড়া। চালের দাম কমানোর কথা বলে সরকার দাম আরও বাড়িয়েছে। সরকারের লোকজন সিন্ডিকেট করে বাজার নিয়ন্ত্রণ করছে। সিন্ডিকেন্ডের কারণে ব্যাংকগুলো মুখ থুবড়ে পড়ছে। ঋণখেলাপিরা সরকারের ঘনিষ্ঠ লোক। ঋণের পর ঋণ নেওয়ার ব্যবস্থা করে দেওয়া হচ্ছে তাদের।’   তিনি বলেন, ‘দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতির কারণে এবার ঈদে কেনাকাটা অনেক কম হয়েছে। সব মিলিয়ে ঈদ উপলক্ষে সাধারণ মানুষদের আনন্দ কান্নায় পরিণত হয়েছে। যারা গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনতে চায়, তারা কেউ ভালো নেই।’ ওবায়দুল কাদেরকে উদ্দেশ করে রিজভী বলেন, ‘আপনি কোন সংস্কৃতিতে বিশ্বাস করেন? বিএনপি এক হাজার ইফতার পার্টি করতেই পারে। গরিব- দুঃখীদের নিয়ে ইফতার করেছে বিএনপি। কিন্তু ভারত থেকে নায়ক-নায়িকা নিয়ে এসে পার্টি করেন, ওখানে টাকা খরচ হয় না? সরকার সংস্কৃতি পরিবর্তনের চেষ্টা করছে।’
দেশবাসীকে নববর্ষের শুভেচ্ছা ফখরুলের
দেশবাসীকে বাংলা নববর্ষের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। শনিবার (১৩ এপ্রিল) দলটির সহদপ্তর সম্পাদক মুহাম্মদ মুনির হোসেনের পাঠানো বাণীতে তিনি এ শুভেচ্ছা জানান। ফখরুল বলেন, ১৪ এপ্রিল পহেলা বৈশাখ ১৪৩১। বাংলা সনের প্রথম দিন। নববর্ষের ঊষালগ্নে আমাদের অগণিত সমর্থক, শুভানুধ্যায়ী ও দেশবাসীকে জানাই আন্তরিক শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন। তিনি বলেন, বাংলা নববর্ষ আমাদের জাতীয় জীবনের এক আলোকিত আনন্দময় উৎসব। এ উৎসব সুপ্রাচীন ঐতিহ্যের তরঙ্গায়িত রূপ। পহেলা বৈশাখ থেকেই শুরু হয় নতুন বছরকে বরণ করে নেওয়ার আকুলতা। নতুন বছর মানেই অতীতের সব ব্যর্থতা পেছনে ফেলে নতুন উদ্দীপনা ও উৎসাহে গতিশীল কর্মপ্রবাহে সুন্দর, সমৃদ্ধ আগামী নির্মাণ করা। বিএনপির এই নেতা বলেন, প্রতিটি উৎসবের অন্তস্থল থাকে ধনী-নির্ধন নির্বিশেষে সব মানুষের মিলন, পরোক্ষে একটি জাতির নানা সম্প্রদায়, ধর্ম-গোষ্ঠীকে সংযুক্ত করে নানাভাবে। ১৪৩১ বাংলা সনের প্রথমদিনের নতুন আলোতে মহান আল্লাহ রাব্বুল আলামীনের কাছে কায়মনোবাক্যে দেশের সব মানুষের সুখ ও শান্তির জন্য প্রার্থনা করছি। মির্জা ফখরুল বলেন, নববর্ষের এ নতুন সকালে মহান আল্লাহর কাছে সকলের ব্যক্তিগত, পারিবারিক তথা জাতীয় সব পর্যায়ে সুখ ও শান্তি কামনা করি। ১৪৩১ বাংলা সনের প্রত্যুষের প্রথম আলোয় আমি দেশবাসীকে আবারও জানাই শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন।
ইসরায়েল থেকে ঢাকায় ফ্লাইট নামা রহস্যজনক : রিজভী 
ইসরায়েল থেকে কার্গো বিমান বাংলাদেশের বিমানবন্দরে ওঠা-নামা নিয়ে রহস্যের গন্ধ পেলেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব অ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী। তিনি বলেন, ইসরায়েলের অর্থনীতিক নগরী তেল আবিব থেকে সম্প্রতি সরাসরি একটি ফ্লাইট ঢাকায় অবতরণ করেছে। ইসরায়েলের সঙ্গে কূটনীতিক কোনো সম্পর্ক না থাকলেও সেখান থেকে সরাসরি বাংলাদেশে ফ্লাইট অবতরণ করার বিষয়টি নিয়ে উদ্বেগের। শনিবার (১৩ এপ্রিল) নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে এসব কথা বলেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন, বিএনপির স্বাস্থ্যবিষয়ক সম্পাদক ডা. রফিকুল ইসলাম। রিজভী বলেন, ইসরায়েল থেকে ঢাকায় ফ্লাইট নামার বিষয়ে আমি এখনও বিস্তারিত কিছু জানি না। তবে যতটুকু শুনতে পাচ্ছি তাতে এ ঘটনা খুবই রহস্যজনক ও উদ্বেগজনক বলে মনে করছি। গত ১১ এপ্রিল ইসরায়েলের তেল আবিব থেকে স্থানীয় সময় সকাল সাড়ে ১০টায় রওনা হয়ে সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় ঢাকায় অবতরণ করে ফ্লাইটটি। যুক্তরাষ্ট্রের ন্যাশনাল এয়ারলাইন্সের এনসিআর-৮০৬ নম্বর ফ্লাইটটি বোয়িং ৭৪৭-৪০০ মডেলের এয়ারক্রাফট দিয়ে পরিচালিত হচ্ছিল।  রুহুল কবির রিজভী বলেন, বিশ্বের শীর্ষ দুর্নীতিগ্রস্ত তালিকায় এখন বাংলাদেশের নাম। বাংলাদেশ এখন ব্যাপকভাবে দুর্নীতি চাষের উর্বর ভূমি। বাংলাদেশ দুর্নীতির এমন একটি পাহাড় রচিত হয়েছে, সেই পাহাড়ের চূড়ায় এখন ক্ষমতাসীন শাসক গোষ্ঠীর লোকেরা অবস্থান করছে। রিজভী বলেন, আন্তর্জাতিক সংস্থার গবেষণা মতে বর্তমানে দুর্নীতির শীর্ষ দশের মধ্যে মাঝামাঝি অবস্থায় বাংলাদেশ অবস্থান করেছে। এমনকি দুর্নীতির মাধ্যমে লুটপাট করে টাকার পাচার করে বিশ্বের উন্নত দেশের শীর্ষ ধনীদের মাঝেও নাম লেখাতে সক্ষম হয়েছেন ক্ষমতাসীন গোষ্ঠী এবং তাদের আত্মীয় স্বজনরা। বাংলাদেশ এখন দুর্নীতিতে বিপর্যস্ত। দুর্নীতি আর রাষ্ট্রীয় অর্থ হরিলুট করেই চলছে ক্ষমতাসীনরা। পৃথিবীর ধনী দেশে দুর্নীতির টাকা দিয়ে স্বর্গরাজ্য গড়ে তুলতে পারছেন। তিনি বলেন, রাষ্ট্রীয়ভাবে দুর্নীতিকে আশকারা দিয়ে, দুর্নীতিতে নিমজ্জিত থাকতে সুযোগ দিয়ে, দুর্নীতির টাকা নিয়ে সমাজে আধিপত্য বিস্তারে মত্ত হয়ে উঠেছে। এখন দেখছেন ক্ষমতাসীন গোষ্ঠীর আধিপত্যের জেরে জনপথের পর জনপথ রক্তাক্ত হয়ে উঠছে। আজও মুন্সিগঞ্জে তাদের আধিপত্য বিস্তার নিয়ে একজন খুন হয়েছেন।
এ সরকারকে আমরা কখনও মেনে নেব না : ফখরুল
বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, আওয়ামী লীগ আর আওয়ামী লীগ নাই, তারা এখন পুলিশ লীগে পরিণত হয়েছে। তাদের এ সরকার বার বার ক্ষমতা দখল করে নিচ্ছে। দখলদারের সরকার আমরা কোনোদিন মেনে নেইনি, আমরা এখনও মেনে নেব না। শুক্রবার (১২ এপ্রিল) বিকেলে ঠাকুরগাঁও জেলার হরিপুর উপজেলার হাটপুকুর গ্রামের যুবদল নেতা আকরাম হোসেনের শোকসভায় এসব কথা বলেন তিনি। তিনি বলেন, পুলিশ বাহিনী অন্যায়ভাবে দলের ছেলেদের হত্যা করছে। অত্যাচার নির্যাতন করে আজ তারা দেশ শাসন করছে। আমরা স্বাধীনভাবে বাঁচতে চাই, আর স্বাধীনতার জন্যই লড়াই সংগ্রাম করে যাচ্ছি। সবাইকে এ লড়াই সংগ্রামে ঐক্যবদ্ধ থাকার আহ্বান জানিয়ে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, জনগণকে বোকা বানিয়ে, জনগণের পয়সা লুটে নিয়ে তারা ব্যাংক বীমা সব লুট করছে, শুধু তাই নয় তারা বিদেশে টাকা পাচার করছে।
আলালের বাসায় মির্জা আব্বাস
ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় করতে বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব অ্যাডভোকেট সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলালের বাসায় গিয়েছেন দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস। শুক্রবার (১২ এপ্রিল) বিকেলে আলালের বাসায় তিনি। বিএনপির মিডিয়া সেলের সদস্য শায়রুল কবির খান এ তথ্য জানান। তিনি বলেন, ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময়সহ সার্বিক খোঁজখবর নেওয়ার জন্যই আলালের বাসায় গিয়েছেন মির্জা আব্বাস। এর আগে বৃহস্পতিবার (১১ এপ্রিল) রাতে পবিত্র ঈদুল ফিতরের শুভেচ্ছা জানাতে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বাসভবনে যান দলটির জ্যেষ্ঠ নেতারা। নেতাদের মধ্যে ছিলেন দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য জমির উদ্দিন সরকার, মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, ড. আবদুল মঈন খান, নজরুল ইসলাম খান, সেলিমা রহমান, ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল নোমান, মেজর (অব.) হাফিজ উদ্দিন আহমদ এবং লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টি-এলডিপির সভাপতি অলি আহমেদ।