Mir cement
logo
  • ঢাকা সোমবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২ আশ্বিন ১৪২৮

এলজিইডির রাস্তা নির্মাণে ব্যাপক অনিয়ম, যেন দেখার কেউ নেই! 

এলজিইডির রাস্তা নির্মাণে ব্যাপক অনিয়ম, যেন দেখার কেউ নেই! 
এলজিইডির রাস্তা নির্মাণে ব্যাপক অনিয়ম, ছবি : প্রতিনিধি

প্রায় ৭ কোটি টাকা ব্যয়ে সরকারের আম্পান প্রকল্পের আওতায় এলজিইডি পাবনার তত্ত্বাবধানে জেলার সদর উপজেলার জালালপুর থেকে একদন্ত বাজার পর্যন্ত ৭ কিলোমিটার রাস্তা নির্মাণে ব্যাপক অনিয়ম ও ইট খোয়ার বদলে পোড়া মাটি দিয়ে কাজ করার অভিযোগ উঠেছে পাবনার ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান মেসার্স জিনাত আলী জিন্নাহ লিমিটেড নামে একটি কনস্ট্রাকশন ফার্মের বিরুদ্ধে। রাস্তার সিডিউল অনুযায়ী মালামাল না দিয়ে নিম্নমানের ইটের খোয়া ব্যবহার করা হচ্ছে। দেখাশোনার জন্য এলজিইডির কর্মকর্তা থাকার কথা থাকলেও মাঠে নেই তারা। ঠিকাদার ইচ্ছামতো নয়ছয়ভাবে কাজ করে যাচ্ছে। এলাকাবাসীর দাবি, তারা সিডিউল অনুযায়ী রাস্তা মেরামত চান।

পাবনা সদর উপজেলার বহুল ব্যবহৃত জালালপুর হতে একদন্ত বাজারের রাস্তা। রাস্তাটি মেরামত ও সাইড প্রশস্ততার জন্য সরকার আম্পান প্রকল্পের আওতায় ৬ কোটি ৪০ লাখ ২৬ হাজার ১৯৬ টাকা বরাদ্দ দিয়েছে। এলজিইডি পাবনার তত্ত্বাবধানে রাস্তাটি ১৮ ফুট চওড়া ও ৩ ইঞ্চি ঢালাই দিয়ে মেরামত করার কথা রয়েছে। রাস্তাটির কাজ পান পাবনার ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান জিনাত আলী জিন্নাহ লিমিটেড নামে কনস্ট্রাকশন ফার্ম। কাজের শুরুতেই ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানটি প্রশস্ত সাববেজ দুটি ভালোমতো রোলার না করেই তড়িঘড়ি করে নিম্নমানের খোয়া (পোড়া মাটি) ব্যবহার করেছেন। এতে এলাকাবাসী ক্ষিপ্ত হয়ে রাস্তার কাজে বাধা দেন।

উগ্রগড়, জোয়ারদহ, হামিদপুর ও গয়েশপুর গ্রামের মিজান হুজুর, আব্দুল কাদের মাস্টার, আজিজুল মল্লিকসহ অনেকেই অভিযোগ করে বলেন, তাদের আগের রাস্তাই ভালো ছিল। মেরামতের নামে নয়ছয় ইট ব্যবহার করে রাস্তা করলে তা ৬ মাসও টিকবে না। তাই তারা এলজিইডির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের দৃষ্টিগোচর করছেন, যেনো ঠিকাদারের কথামতো খারাপ ইট দিয়ে রাস্তার কাজ করা না হয়। এলাকাবাসী এলজিইডির কর্মকর্তাদের প্রতি অভিযোগ করে বলেন, তারা ঠিকাদারের কাছে মাথা বিক্রি করে দিয়েছে। এজন্য কেউই মাঠে নেই। ঝুলানো হয়নি কোন কার্যতালিকার (ওয়ার্ক অর্ডার) সাইনবোর্ড।

এলাকাবাসী অভিযোগ করে বলেন, ঠিকাদার রাতের আঁধারে পোড়ামাটি এনে দিনের বেলায় কয়েক ট্রাক পিবেট ভেঙে তার উপর ছিটিয়ে দিয়েছে। ইতোপূর্বে এই ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানই জেলার সাঁথিয়া উপজেলা ও ফরিদপুর উপজেলায় রাস্তার কাজে অনিয়ম-দুর্নীতি করতে গিয়ে এলাকাবাসির বিক্ষোভের মুখে পড়ে। এই জিন্নাহ ঠিকাদারের বিরুদ্ধে সাঁথিয়া এলাকার মানুষ মানববন্ধনসহ মিছিল-মিটিং করায় সেখান থেকে পোড়ামাটি সরিয়ে এনে পরে ভালো ইটখোয়া দিয়ে রাস্তার কাজ করতে বাধ্য হয়েছিল জিন্নাহ ঠিকাদার।

এ ব্যাপারে গয়েশপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, অধ্যক্ষ আবুল কালাম আজাদ বলেন, জননেত্রী জনগণের সুবিধার্তে কোটি কোটি টাকা দিচ্ছেন রাস্তাঘাটের মান উন্নয়ন করতে। সেখানে নিম্নমানের কাজ তারা কখনোই মেনে নেবেন না। দরকার হলে তারা কাজ বন্ধ করে দিয়ে আন্দোলন করবেন।

কাজের বিষয় জানতে মোবাইলে কল করা হলে ঠিকাদার জিনাত আলী জিন্নাহ আরটিভি নিউজকে বলেন, আমি কখনোই খারাপ কাজ করি না। সব সময় ভালো কাজ করি। ঠিকাদারী কাজে আমার যথেষ্ট সুনাম রয়েছে।

অনিয়মের বিষয়ে এলজিইডি পাবনার নির্বাহী প্রকৌশলী আনিসুর রহমান মন্ডল আরটিভি নিউজকে বলেন, আমি সবেমাত্র দুইদিন হলো এখানে যোগদান করেছি। রাস্তার বিষয়ে অভিযোগ পেয়েছি। অভিযোগ পাওয়ার পরপরই সংশ্লিষ্ট ইঞ্জিনিয়ারকে বিষয়টি দেখভালের নির্দেশ দিয়েছি।

পি

মন্তব্য করুন

RTV Drama
RTVPLUS