logo
  • ঢাকা শুক্রবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২০, ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৭

ইউটিউব ভিউ দিয়ে গান বাঁচে না: বেলাল খান(ভিডিও)

Belal Khan
বেলাল খান
জনপ্রিয় সঙ্গীতশিল্পী, সুরকার ও সঙ্গীত পরিচালক বেলাল খান। পাগল তোর জন্য রে, ভালোবাসি হয়নি বলা, এক মুঠো স্বপ্নসহ অনেকগুলো জনপ্রিয় গানের শিল্পী তিনি। করোনাকালেও গান নিয়ে ব্যস্ত সময় পার করছেন। নিজের গান স্বত্বাকে আরও ধারালো করার জন্যে অধিকাংশ সময় পার করেছেন স্টুডিওতে। নিজ সৃষ্টিকে ছাড়িয়ে যাওয়ার প্রচেষ্টায় তিনি। সার্বিক বিষয় নিয়ে আরটিভি নিউজের সঙ্গে কথা বলেছেন এই শিল্পী।

পাঠকদের জন্য তার সঙ্গের কথোপকথন তুলে ধরা হলো- 

কেমন আছেন?

চলছে। আলহামদুলিল্লাহ ভালো আছি। 

আপনার সঙ্গীত জীবন আনুমানিক কত বছর?

শুরু করেছিলাম ২০১০ সালে। এখন পর্যন্ত ভালোভাবে চলছে। 

আপনার কাছে গানের ক্ষেত্রে জনপ্রিয়তার অর্থ কী? 

জনপ্রিয়তার চেয়ে বেশি হলো নিজের আত্মতৃপ্তির গানের সংখ্যা কতো তা যদি কেউ জিজ্ঞেস করে তা ভালো লাগে। কারণ গান আসলে নিজের আনন্দের জন্য করি। জনপ্রিয়তার সংখ্যা যদি আমি বলি, অসুন্দর হয়ে যায়। একেক ধরনের শ্রোতাদের একেক ধরনের গান ভালো লাগে। আমি জানি না আমার কোণ কোন গান মানুষ গ্রহণ করেন। তবে ইউটিউব ভিউ, জনপ্রিয়তা এটা দর্শক জানেন।

এখন পর্যন্ত আনুমানিক কতগুলো গানে কাজ করেছেন?

হাজার বলা যাবে কিনা জানি না। তবে কতগুলো গানে কাজ করেছি, সেটা হিসেব করিনি। কতগুলো গেয়েছি, কত গান কম্পোজিশন করেছি হিসেব নাই। তবে আশা করি ৫০০ এর কম হবে না।

করোনাকালে কীভাবে কাটছে?

আমি স্টুডিও আর ঘরে করোনাকাল কাটিয়েছি। কিছু পছন্দের কাজ করেছি। এই গানগুলো কীভাবে সামনে আনা যায় সেই চেষ্টা চলছে

করোনাকালের উল্লেখযোগ্য সৃষ্টি নিয়ে বলেন

এক্সক্লুসিভ সৃষ্টি বলব না, কিছু ভালো গান নিজের আনন্দ থেকে তৈরি হয়েছে। কিছু গানে নিজে ভয়েস দেবো, কিছু গানে যে ভয়েসে দরকার তা নির্বাচন করব। এছাড়া আমার ইউটিউব চ্যানেলে ইতোমধ্যে আমার ও নদীর কণ্ঠে রিলিজ হয়েছে। কিছু ফোক গান করার চেষ্টা করেছিলাম যেগুলো সিএমভি থেকে লায়লার কণ্ঠে রিলিজ হয়েছে।

সঙ্গীত জীবনে কাউকে অনুস্মরণ করার চেষ্টা করেন?

অনুস্মরণ ঠিক বলব না। যখন যার গান ভালো লাগে সেটা শুনতে শুনতে আমার ওপর প্রভাব পড়ে। সেটা দেশ হোক কিংবা দেশের বাইরে অনেক বিখ্যাত গায়কের গান যখন শুনি সেটার কোনো কোনো প্রভাব পড়ে। 

ইউটিউব জগতে অনেক ধরনের গায়ক দেখছি, এটার কোনো ক্ষতিকর প্রভাব পড়ছে কী?

এটা সব সময় ছিল। যখন ইউটিউব ছিল না, তখনও এক ধরনের শিল্পী আমরা দেখেছি যারা হয়তোবা গানের মৌলিক বিষয় মিস করতো কিন্তু মনের সুখে গাইতেন। এগুলো যুগে যুগে থাকবে, এর মধ্যে মানুষ ভালোটা খুঁজে নেবেন এটা আমার বিশ্বাস।

এখন দেখা যাচ্ছে ভিউয়ের মাধ্যমে অনেকেই সামনে আসছেন, তাদের নিয়ে মাতামাতি হচ্ছে

ভিউ আসলে কোনো ব্যাপার না, আপেক্ষিক। ভিউয়ের কারণে যাদের নাম সামনে আসে এটা কতদিন থাকবে সেটা দেখার বিষয়। এগুলো যুগে যুগে ছিল। অনেক জনপ্রিয় গান আসছে কিন্তু মানুষ মনে রাখেনি। মৌলিক গান থেকে গেছে।

যারা নবীন, সঙ্গীত জগতে আসতে চাচ্ছেন, তাদের জন্য পরামর্শ কী?

আমি স্টিল নিজেকে নতুন হিসেবে বলব। গানের বেসিকগুলো অবশ্যই জেনে আসবেন। তাহলে ভালো গান তৈরিতে সুবিধা হবে। কাজেই গানের বেসিক বিষয়গুলো শিখে আসুন।

জিএ/এম 

RTVPLUS