logo
  • ঢাকা শনিবার, ২৮ নভেম্বর ২০২০, ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৭

দিনাজপুর প্রতিনিধি, আরটিভি অনলাইন

  ০৫ জানুয়ারি ২০২০, ২২:০৯
আপডেট : ০৫ জানুয়ারি ২০২০, ২২:১৪

কবর থেকে অর্ধশত কঙ্কাল উধাও! (ভিডিও)

দিনাজপুরে রাতের আঁধারে কবর থেকে মৃতদেহের কঙ্কাল চুরি হয়ে যাওয়ার ঘটনায় তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে।

ইতিমধ্যে সদর উপজেলার সুন্দরবন ইউনিয়নের উত্তর শিবপুর এবং সদরপুরে টেক্সটাইল বাজার সংলগ্ন কবরস্থান থেকে কমপক্ষে অর্ধ শতাধিক কঙ্কাল চুরি হয়ে গেছে। এ ঘটনায় এলাকাবাসী ও স্বজনদের মধ্যে শুরু হয়েছে উদ্বেগ আর উৎকণ্ঠা।

স্থানীয়দের ধারণা একটি চক্র এসব কংকাল চুরি করে বিক্রি করছে। ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে পুলিশ জানিয়েছে, কঙ্কাল চুরির সঙ্গে জড়িত চক্রকে ধরতে চেষ্টা চালানো হচ্ছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, দিনাজপুর সদর উপজেলার উত্তর শিবপুর গ্রামের একমাত্র কবরস্থানে আশপাশের বেশ কয়েকটি গ্রামের মৃত মানুষকে দাফন করা হয়। এ কবরস্থানেই গত ৬ মাস আগে দাফন করা হয় পার্শ্ববর্তী দরবারপুর গ্রামের সোহরাব আলীকে। কিন্তু মঙ্গলবার কবরস্থানে তার পরিবারের লোকজন গিয়ে দেখেন কবর খোঁড়া এবং কবরে কোনও লাশ নেই।

এরপর কঙ্কাল চুরির ঘটনা এলাকাবাসীর নজরে আসে। পরে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, গত চার মাস আগে মারা যাওয়া নাজমুল ইসলামের কবরেও লাশ নেই। উত্তর শিবপুর গ্রামের মো. হোসেন আলী জানান, গত এক মাসে এ কবরস্থান থেকে মোট ২২টি কবরের কংকাল উধাও হয়ে গেছে।

এদিকে ওই কবরস্থানে কোনও সীমানা প্রাচীর নেই। করবস্থানে আলোর জন্য সরকারিভাবে দুটি সোলার প্যানেল স্থাপন করা হয়েছে। তবে বৃহৎ এ কবরস্থানে দুটি সোলার প্যানেল যথেষ্ট নয় বলে মত স্থানীয়দের। তাই সোলার প্যানেলের সংখ্যা বৃদ্ধির পাশাপাশি সীমানা প্রাচীর নির্মাণের দাবি জানান স্থানীয়রা।

অন্যদিকে একই উপজেলার সদরপুর গ্রামে কবরস্থান থেকেও গত এক মাসে ২০ থেকে ২২টি  কঙ্কাল চুরি হয়েছে গেছে। সদরপুর গ্রামের সোলেমান আলী জানান, গত এক বছর ১০ মাস আগে মারা যান। তিন দিন আগে তার কবরস্থানে গিয়ে দেখেন কবরটি খোঁড়া এবং কোনও লাশ নেই। তিনি আরও জানান, শুধু তার স্ত্রীর কবরেরই এ অবস্থা নয় অন্য আরও ২০-২২টি কবরের একই অবস্থা।

এ বিষয়ে দিনাজপুর সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সুজন সরকার জানান, এলাকাবাসীর অভিযোগের প্রেক্ষিতে পুলিশ কবরস্থান পরিদর্শন করেছে এবং কবর থেকে কঙ্কাল চুরির সত্যতা মিলেছে। কঙ্কাল চোর চক্রকে শনাক্ত করার চেষ্টা চলছে এবং স্থানীয়ভাবে এর সঙ্গে কেউ জড়িত আছে কিনা তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

এজে

RTVPLUS