logo
  • ঢাকা শনিবার, ১৪ ডিসেম্বর ২০১৯, ২৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

অস্বাস্থ্যকর রাজধানীর অধিকাংশ গণশৌচাগার (ভিডিও)

মুক্তা মাহমুদ.
আরটিভি অনলইন
|  ১০ নভেম্বর ২০১৯, ১৩:০৯ | আপডেট : ১০ নভেম্বর ২০১৯, ১৯:২৫
অস্বাস্থ্যকর ও অপর্যাপ্ত শৌচাগারের কারণে প্রতিদিনই পথে নেমে বিপাকে পড়ছেন নগরবাসী। পর্যাপ্ত ব্যবস্থা নেই ভবঘুরেদের জন্যও। তাই তাদের বেশিরভাগকেই খোলা জায়গায় প্রয়োজনীয় কাজটি সারতে হচ্ছে। এতে, দূষিত হচ্ছে নগরী। ছড়াচ্ছে জীবাণুবাহী রোগ। সঙ্গে বাড়ছে কিডনি জটিলতা।

জীবিকার তাগিদে প্রতিদিন গড়ে ৫৫ লাখ মানুষ রাজধানীর পথে নামেন। যানজটে প্রায় স্থবির নগরীতে কাজে নেমে বিপাকে পড়তে হয় কম-বেশি সব শ্রেণীর মানুষকে। জনসংখ্যায় ভারাক্রান্ত ঢাকার দুই সিটি করপোরেশন মিলে গণশৌচাগার আছে কেবল ৪৭টি।

বেসরকারি সংস্থা, ‘ওয়াটার এইড’র ব্যবস্থাপনায় এর ২২টি উত্তরে এবং ২৫টি দক্ষিণ সিটি করপোরেশনে। পরিচ্ছন্নতার অজুহাতে অনেকগুলোকে আবার প্রায়ই বন্ধ রাখা হয়।

রাজধানীর বিভিন্ন বাজার, মার্কেট, হাসপাতাল, রেল বা বাসস্ট্যান্ডসহ জনসমাগমের স্থানের শৌচাগারের অবস্থাও বেহাল। খুব বিপদে না পড়লে এগুলো একরকম এড়িয়েই চলেন বেশিরভাগ মানুষ। সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালের টয়লেট এরকমই একটি। 

একই কারণে, দেশের সবচেয়ে বড় কমলাপুর রেলস্টেশনে ঘণ্টার পর ঘণ্টা অপেক্ষায় থাকতে হলেও টয়লেট ব্যবহারে অনীহা বেশিরভাগ যাত্রীর। নারী, শিশু ও প্রতিবন্ধীদের জন্যও বিশেষ কোনো ব্যবস্থা নেই গণশৌচাগারগুলোতে। আর ভবঘুরেদের কথা তো হিসেবেই নেই। ভ্রাম্যমাণ টয়লেটও খুব একটা চোখে পড়ে না। 

চিকিৎসকরা জানালেন, প্রয়োজনের সময় টয়লেট ব্যবহার না করা হলে স্বাস্থ্যের ক্ষতি হতে পারে। আবার অস্বাস্থ্যকর টয়লেটও নানা রোগের কারণ হতে পারে।

নগরবিদরা বলছেন, জনস্বাস্থ্য ও নগরীর পরিচ্ছন্নতা বিবেচনায় স্বাস্থ্যসম্মত পর্যাপ্ত টয়লেট নির্মাণ জরুরি। 

এ ব্যাপারে দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের কারো বক্তব্য না পাওয়া গেলেও উত্তরের এই কর্মকর্তা জানালেন তাদের পরিকল্পনার কথা।  

পি

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
  • বিশেষ প্রতিবেদন এর সর্বশেষ
  • বিশেষ প্রতিবেদন এর পাঠক প্রিয়