Mir cement
logo
  • ঢাকা বৃহস্পতিবার, ১৯ মে ২০২২, ৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯

৪০ টাকার ধাতব কয়েন কোটি টাকায় বিক্রি! (ভিডিও) 

চোরাই তামার তার গলিয়ে বানানো কয়েন হয়ে যায় ম্যাগনেটিক কয়েন। এসব কয়েন আবার মূল্যবান ধাতু দিয়ে তৈরি ও প্রত্নতত্ত্ব সামগ্রী দাবি করে প্রতারণার মাধ্যমে বিক্রি করে কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছে বেশ কয়েকটি অপরাধী চক্র। এসব কয়েনের কোনো ভিত্তি না থাকলেও না বুঝে লোভে পড়ে বেশি দামে বিদেশে বিক্রির আশায় কিনে প্রতারিত হচ্ছেন অনেকে।

পুরোনো কয়েন বিক্রি করলেই মিলবে পাঁচ থেকে ১০ লাখ টাকা, এমনকি তা ছাড়িয়ে যাবে কোটি টাকাও। এমন প্রলোভন দেখিয়ে দেশে বেশ কয়েকটি প্রতারক চক্র গড়ে উঠেছে। যারা মূল্যবান পুরোনো কয়েন বিক্রির নামে মানুষকে প্রতারিত করে কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে।

ভুক্তভোগী একজন বলেন, দুই কোটি টাকা মালিকের সঙ্গে চুক্তি হয়। পাঁচ কোটি টাকায় বিক্রি। এরা মালিক সাজে। স্ট্যাম্পে দুই কোটি টাকার চুক্তি করে আমার কাছ থেকে ৪১ লাখ ৩৫ হাজার টাকা নিয়ে গেছে।

বিভিন্ন ওয়েবসাইট ও ইউটিউব চ্যানেলগুলোতে পুরোনো কয়েনের বাজারমূল্যের ভিডিও দেখে বিশ্বাস জন্মাবে যে কারও মনে। আর কাজে প্রতারকরাই হয়ে যান কখনো বিদেশি ক্রেতা, আবার কেউ হয়ে যান বিজ্ঞানী।

অপর ভুক্তভোগী বলেন, দেশি হলেও তারা বিদেশি সেজে এমন একটি পরিবেশ সৃষ্টি করে মানুষের বিবেক বুদ্ধি থাকে না। ওরা মানুষকে প্রলুব্ধ করে ধোঁকা দিয়ে মানুষের সর্বস্ব লুটে নিয়ে যাচ্ছে।

রাজধানীর উত্তরা এবং মানিকগঞ্জ থেকে এ চক্রের চারজনকে গ্রেপ্তার করেছে গোয়েন্দা পুলিশ। উদ্ধার করা হয় বিভিন্ন আকৃতির ধাতব মুদ্রা।

ডিএমপির গুলশান বিভাগ (ডিবি) উপ-পুলিশ কমিশনার মশিউর রহমান বলেন, আমরা দেখেছি দিনশেষে এই কয়েনটার মূল্য ৪০-৭০ টাকা। সেটাকে এক শ্রেণির প্রতারকরা প্রায় কোটি টাকা মূল্যে বিক্রি করার জন্য পাঁয়তারা করে। এর জন্য কিছু দালাল থাকে, তারা সরলমনা অর্থবিত্তসম্পন্ন লোভী ধরনের মানুষকে টার্গেট করে। পোশাক পরিচ্ছদে কেতাদুরস্ত সাজে, এরা এভাবে প্রতারণাটা করে ফেলে। আমরা দেশবাসী অনুরোধ করে বলব, প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শনের কোনো কয়েন আসলে নাই। এগুলো কিনতে চাইলে প্রতারিত হবেন।

বেশি দামে বিক্রির আশায় লোভে পড়ে পুরোনো প্রত্নতত্ত্ব সামগ্রী না কেনার অনুরোধ পুলিশের।

ডিএমপির ডিবি যুগ্ম কমিশনার হারুন অর রশিদ বলেন, তারা তামার তার পুড়িয়ে পয়সা তৈরি করে। এর মধ্যে লেখা থাকে এক আনা, যা দিয়ে তারা বোঝাতে চায় এটা অনেক পুরোনো, প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শনের মতো। কিছু উঠতি বড়লোকের কাছে এগুলো বিক্রির চেষ্টা করে। তারা বোঝানোর চেষ্টা করেন এটার দাম কোটি কোটি টাকা। এমন প্রতারক চক্র বিভিন্ন হাসপাতালে রয়েছে। অস্বাভাবিক কিছু কেনা থেকে যেন আমরা সাবধান হই। কারণ এতে প্রতারিত হওয়ার সম্ভাবনা থাকে।

এনএইচ/এসকে

মন্তব্য করুন

RTV Drama
RTVPLUS