Mir cement
logo
  • ঢাকা রোববার, ২২ মে ২০২২, ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯

অভিনেতা না হলে যা হতেন সুশান্ত

অভিনেতা না হলে যা হতেন সুশান্ত
ছবি : সংগৃহীত

বলিউডের জনপ্রিয় অভিনেতা প্রয়াত সুশান্ত সিং রাজপুতের জন্মদিন আজ ২১ জানুয়ারি।

তিনি সশরীরে না থাকলেও আছেন ভক্তদের হৃদয়ে। ২০২০ সালের ১৪ জুন নিজ বাসা থেকে এই অভিনেতার লাশ উদ্ধার করা হয়। তারপর থেকে একে একে সবাই বুঝতে পারে সুশান্ত শুধু একজন অভিনেতাই ছিলেন না, ছিলেন মানুষের ভালোবাসার স্থানে।

তার মৃত্যুর পর থেকেই একে একে উঠে আসতে থাকে ব্যক্তিগত জীবনের নানান গল্প। এরকম গল্পই সম্প্রতি উঠে আসলো ভারতীয় একটি সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশিত সাক্ষাৎকারে।

জীবিত অবস্থায় সুশান্ত সেই সাক্ষাৎকারে যা বলেছিলেন তার চুম্বক অংশ পাঠকের জন্য প্রকাশ করা হলো।

বলিউডের রঙিন দুনিয়ায় একজন ব্যাকগ্রাউন্ড ড্যান্সার হিসেবে যাত্র শুরু করেছিলেন তিনি। এরপর টেলিভিশনের ধারাবাহিক নাটকে অভিনয়।যা পরবর্তীতে বড় পর্দায় অভিনয় করার একটি বিশেষ মাধ্যম হয়ে ওঠে। তিনি হয়ে ওঠেন একজন বলিউড সুপারস্টার। কারণ দর্শক মহলে অল্প কয়েক দিনেই তিনি জনপ্রিয়তা পেয়ে যান।

প্রকাশিত সাক্ষাৎকারে আরও বলা হয়, অভিনয় শুরু করার প্রথম দিক থেকেই মুম্বাইয়ের জনপ্রিয় ফিল্ম সিটিতে একটি ক্যানটিন চালুর চিন্তা করেছিলেন তিনি। আরও বলেছেন তিনি যদি সিনেমায় অভিনয়ের সুযোগ না পান তাহলে ক্যানটিন চালিয়েই জীবনযাপন করবেন। তারপর সেখানে থেকে নিজেই সিনেমা তৈরি করাসহ অভিনয়ও করবেন।

কিন্তু ভাগ্য তাকে পরিচয় করিয়ে দেয় একজন সু-অভিনেতা হিসেবে। ২০১৫ সালে রেডিফ ডটকমে দেওয়া সেই সাক্ষাৎকারে সুশান্ত আরও বলেছিলেন, ‘অনেকে প্রায়ই আমাকে প্রশ্ন করেন, যদি অভিনয়ে না আসতাম তাহলে কি হতাম? এই প্রশ্নের উত্তরে আমি বরাবরই বলি, নিজেই সিনেমা তৈরি করব তাতে নিজেই অভিনয় করব। আর আমার পরিকল্পনা ছিল, যদি এরকম হয় তাহলে ফিল্ম সিটিতে ক্যানটিন চালু করে সেই টাকায় একটি ক্যামেরা কিনব। পরে স্বল্পদৈর্ঘ্য সিনেমা তৈরি করে নিজেই অভিনয় করব। তবে আমার বর্তমান অবস্থান নিয়ে আমি উচ্ছ্বসিত।’

ফিল্ম সিটিকে একটু বেশিই ভালোবাসতেন সুশান্ত। তাই সেখানেই সব সময় থাকতে চেয়েছিলেন। কারণ মুম্বাইয়ের এই ফ্লিম সিটিতেই সবাই শুটিং নিয়ে ব্যস্ত থাকে। এখানে ক্যানটিন চালু করতে পারলে খাওয়ার পাশাপাশি সিনেমার শুটিং দেখতে পারবেন। তাছাড়া নিজেও স্বল্পদৈর্ঘ্য সিনেমার শুটিং করতে পারতেন।

উল্লেখ্য, ‘পবিত্র রিশতা’ নামক টেলিভিশন ধারাবাহিক নাটকে অভিনয় করে বেশ জনপ্রিয়তা পেয়েছিলেন তিনি। এরপর ২০১৩ সালে ‘কাই পো চে’ সিনেমার মাধ্যমে বড় পর্দায় অভিষেক হয় সুশান্তের। তারপর আর পেছনে ফিরে তাকাতে হয়নি। একে একে জনপ্রিয় সিনেমাগুলো বলিউডের জন্য উপহার দিয়েছিলেন তিনি। এর মধ্যে উল্লেখ্যযোগ্য হলো, ‘শুদ্ধ দেশি রোমান্স’, ‘পিকে’, ‘ডিটেকটিভ ব্যোমকেশ বক্সি’, ‘এম এস ধোনি : দ্য আনটোল্ড স্টোরি’, ‘ছিছোড়ে’।

কেইউ/এসকে

মন্তব্য করুন

RTV Drama
RTVPLUS