Mir cement
logo
  • ঢাকা মঙ্গলবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৩ আশ্বিন ১৪২৮

আদালতে শিল্পা, যা বললেন বিচারক

আদালতে শিল্পা, যা বললেন বিচারক
শিল্পা শেঠি

বলিউড অভিনেত্রী শিল্পা শেঠির স্বামী রাজ কুন্দ্রা পর্নগ্রাফি মামলায় গ্রেপ্তার হয়েছেন। গেলো বৃহস্পতিবারও (২৯ জুলাই) জামিন পাননি তিনি। ফলে আপাতত আর্থার রোড জেলেই থাকতে হচ্ছে তাকে। এদিকে সংবাদমাধ্যমের বিরুদ্ধে মানহানির মামলা দায়ের করে আইনের দ্বারস্থ হয়েছেন শিল্পা।

প্রমাণ ছাড়া স্বামী রাজ কুন্দ্রার পর্ন ব্যবসার সঙ্গে তার নাম জড়িয়ে প্রচুর ক্ষতিসাধন করা হয়েছে বলে দাবি করেছেন এই অভিনেত্রী। আর তাই বোম্বে হাইকোর্টের দ্বারস্থ হয়ে ২৫ কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ চেয়েছেন শিল্পা।

পিটিশনে কয়েকটি সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশিত খবর উল্লেখ করে শিল্পা অভিযোগ করেছেন সেগুলি ভুয়া, সম্মানহানিকর তথ্যে ভরা এবং এর কারণে সমাজে তার মর্যাদা হানি হয়েছে। ভুয়া খবর, ভিডিও ও আর্টিকেলগুলি ভক্তদের চোখেও তাকে খারাপ করে দিয়েছে বলে দাবি করেছেন তিনি। তার একার নয়, গোটা পরিবারেরই মানহানি হয়েছে বলে অভিযোগ করেন ক্ষুব্ধ অভিনেত্রী।

হিন্দুস্তান টাইমসের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, আদালত শিল্পার আইনজীবীকে প্রশ্ন করেন- পুলিশের দেওয়া তথ্য চ্যানেলে সম্প্রচার করা হলে বা সংবাদপত্রে অথবা ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মে প্রকাশিত হলে সেটা কীভাবে মানহানিকর? আদালতের পক্ষ থেকে জানানো হয়, পুলিশ অথবা ক্রাইম ব্রাঞ্চের পক্ষ থেকে দেওয়া কোনো তথ্য প্রকাশ করা কখনোই মানহানিকর বলে বিবেচ্য হতে পারে না।

বিচারক গৌতম পাটেল বলেন, ‘শিল্পা এবং রাজের মধ্যে যা ঘটেছে, তা সবার সামনেই ঘটেছে এবং অপরাধ দমন শাখা সূত্রেই সেই খবর প্রকাশ করেছে গণমাধ্যম। জনসমক্ষে আপনার (শিল্পার) জীবন কেমন হবে, সেটা আপনি বেছে নিয়েছেন।’

তবে বিচারক তার রায়ে স্পষ্ট করেছেন, শিল্পাকে নিয়ে সংবাদমাধ্যমের কোনো প্রতিবেদনে তার দুই সন্তানকে জড়ানো যাবে না। এটা শিল্পার গোপনীয়তা বজায় রাখার অধিকারের মধ্যেই পড়ে। সংবাদমাধ্যমের স্বাধীনতা এবং শিল্পার গোপনীয়তাকে সম্মান করার মধ্যে ভারসাম্য বজায় রাখার নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

আদালতের পক্ষ থেকে আরো জানানো হয়, সংবাদমাধ্যমের স্বাধীনতা এবং গোপনীয়তার অধিকারের (রাইট টু প্রাইভেসি) মধ্যে একটা সমতা বজায় রাখতে হবে। বাকস্বাধীনতার পথ সংকীর্ণভাবে তৈরি করতে হতে পারে, কিন্তু গোপনীয়তার অধিকার প্রত্যেকের মৌলিক অধিকার এবং তা সংবিধানসিদ্ধ। তাই কোনো মানুষ পাবলিক ফিগার মানে এই নয়, তাকে নিজের ব্যক্তি স্বাধীনতা বিসর্জন দিতে হবে।

প্রসঙ্গত, আগামী ২০ সেপ্টেম্বর এই মামলার পরবর্তী শুনানির দিন ধার্য করা হয়েছে।

এনএস

মন্তব্য করুন

RTV Drama
RTVPLUS