logo
  • ঢাকা শুক্রবার, ০৫ মার্চ ২০২১, ২০ ফাল্গুন ১৪২৭

কাউকে দোষী সাব্যস্ত নয়, সমাধান করতে এসেছি: পাপন 

nazmul hasan papon, bcb, rtv online
নাজমুল হাসান পাপন || ছবি- আরটিভি নিউজ

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন বলেছেন, ‘আমি কাউকে দোষী সাব্যস্ত করতে আসিনি। সমস্যা সমাধান করতে এসেছি।’

বেশ কিছুদিন ধরেই জাতীয় দলের নানা বিষয় নিয়ে অসন্তুষ্টি প্রকাশ করে আসছিলেন বিসিবি সভাপতি। সম্প্রতি ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে হোয়াইটওয়াশ হওয়ার পর ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেন তিনি। বুধবার রাতে বোর্ড কর্তা, নির্বাচক ও সিনিয়র ক্রিকেটারদের নিয়ে নিজ বাসভবনে জরুরি বৈঠকও করেন নাজমুল হাসান পাপন।

বৃহস্পতিবার কুর্মিটোলা হাসপাতালে ‘সুরক্ষা’ অ্যাপের উদ্বোধনের অনুষ্ঠানে হাজির হয়েছিলেন দেশের ক্রিকেটের সর্বোচ্চ সংস্থার প্রধান ব্যক্তিত্ব। এসময় সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপ করেছেন তিনি। আগের রাতের জরুরি বৈঠক নিয়ে প্রশ্নও রাখা হয় তার কাছে।

‘আপনারা তো কাউকে দোষী সাব্যস্ত করতে চাচ্ছেন, আমি তো কাউকে দোষী সাব্যস্ত করতে আসি নাই। সমস্যা সমাধান করতে এসেছি। জিনিসটা বোঝার চেষ্টা করেন। আমি তো আপনাদের বলেছি ভারতের খেলায় আমাকে বলেছে টসে জিতে ফিল্ডিং নিবে, পরে নিলো ব্যাটিং। ওয়ার্ল্ড কাপে শুনেছি, আমি এই খেলার আগে শুনেছি মিনিমাম দুইটা পেসার খেলবে, খেলায়নি। আমার কথা হচ্ছে এসব কেনো হচ্ছে সেটাই তো বের করতে চাচ্ছি। তারপরে আরও কিছু ব্যাপার আছে। আমার মনে হয় কৌশলগত কিছু পরিবর্তন হচ্ছে, এই পরিবর্তনটা কারা করছে, কেনো করছে এগুলোই তো জানতে চাচ্ছি। এবং এটার সমাধান দেয়া আমার মনে হয়না খুব একটা কঠিন কিছু হবে।’

সব কিছুর জন্য ক্রিকেট বোর্ড সভাপতি তথ্য ঘাটতিকে দায়ী করছেন।

নাজমুল হাসান পাপন বলেন, ‘আগে খালেদ মাহমুদ সুজন আমাদের ম্যানেজার ছিলেন, দল ও বোর্ডের মধ্যে তিনিই সংযোগ স্থাপন করতেন, তাই খেলোয়াড়দের সঙ্গে কোচের কি হচ্ছে না হচ্ছে আমরা সারাক্ষণ জানতে পারতাম। আমিও অন্তত জানতে পারতাম। এখন কিন্তু আমি জানি না, মাঠে নামার পরে জানতে পারি। তাই আমাদের মাঝে বিরাট দূরত্ব তৈরি হচ্ছে। কেন হচ্ছে আমিও তো জানতে চাচ্ছি আর যাকে জিজ্ঞেস করা হয়, সেই বলতে পারে না, তাহলে উত্তর দিবে টা কে!

সবাই এক সঙ্গে কাজ করলে দ্রুত সমাধান সম্ভব বলে মনে করেন বিসিবি বস।

‘পরিকল্পনা এবং কৌশলেও ঘাটতি রয়েছে। যেটা আমি ব্যক্তিগতভাবে আগের থেকে মনে করতাম যে এগুলো প্রত্যেকটা ভুল কিন্তু প্রথমবার যখন আফগানিস্তানের সঙ্গে হয়েছে তখন তারা সবাই ধরে নিয়েছিলে যে এটা দুর্ঘটনা! হঠাৎ হয়ে গেছে। কিন্তু এইবার দুটো ম্যাচ খেলার পরে এখন সবাই বুঝতে পারছে আসলেই কিছু একটা ভুল হচ্ছে। আগে যদি আপনি বুঝতেই না চান, আপনি যদি মনেই না করেন যে আপনার কোনও ভুল হচ্ছে, তাহলে তো আপনার সঙ্গে কথা বলে লাভ নেই। আমি আপনাদেরকে খালি একটা কথাই বলতে পারি, এই সমস্যা সমাধান কঠিন কোনও ব্যাপার না, এটা সহজ, কিন্তু সবাই যাতে এই সমস্যাটাতে হ্যাঁ বলে। যদি একসাথে সবাই হ্যাঁ বলে তাহলেই তো সমাধানের জন্য কাজ করতে হবে। জোর করে ছাপিয়ে দেয়া যায় না। আমার ধারণা কয়েক মাসের মধ্যে ঠিক হয়ে যাবে।’

ওয়াই

RTV Drama
RTVPLUS