Mir cement
logo
  • ঢাকা মঙ্গলবার, ১৭ মে ২০২২, ৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯

ঈদে আকাশপথে যাত্রীর চাপ বেড়েছে কয়েকগুণ (ভিডিও)   

ঈদে ঘরে ফিরতে কয়েক গুণ যাত্রীর চাপ বেড়েছে আকাশপথে। ইতোমধ্যে বিক্রিও শেষ অধিকাংশ এয়ারলাইনসের টিকিট। বিশেষ করে ২৮, ২৯ এবং ৩০ এপ্রিলের টিকিটের চাহিদা ও দাম সবচেয়ে বেশি বলে জানিয়েছে এয়ারলাইনসগুলো। তবে ভাড়া বাড়ায় অসন্তোষ জানিয়েছেন যাত্রীরা। জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধিই দাম বাড়ার কারণ বলেছে প্রতিষ্ঠানগুলো।

দুই বছর পর কোনো প্রকার বিধিনিষেধ ছাড়াই মুক্ত আকাশপথ। তাইতো ঈদযাত্রায় এবার ব্যাপক চাহিদা আকাশপথে।পবিত্র ঈদুল ফিতরের সম্ভাব্য তারিখ ২ অথবা ৩ মে। তবে সবচেয়ে বেশি চাহিদা ২৮, ২৯ এবং ৩০ এপ্রিলের টিকিটের।

ইতোমধ্যে প্রতিটি এয়ারলাইনসের টিকিট বিক্রি প্রায় শেষ হয়ে এসেছে। বাকি যা আছে তা পেতে চড়া মূল্য দিতে হচ্ছে যাত্রীদের। যশোর, সৈয়দপুর, রাজশাহী ও বরিশাল রুটের টিকিট সবচেয়ে বেশি বিক্রি হয়েছে।

ইউএস বাংলা এয়ারলাইনসের মহাব্যবস্থাপক কামরুল ইসলাম বলেন, ২৮, ২৯, ৩০ এপ্রিল ও ১ মে-এই চার দিন মাত্রাতিরিক্ত চাপ আছে। সেটাও বিশেষ করে ঢাকা থেকে সৈয়দপুর, যশোর, বরিশাল ও রাজশাহী রুটে। কক্সবাজারে ঈদের পর একটা চাপ আমরা দেখতে পাচ্ছি। সেখানে গত ২-৩ বছরের তুলনায় যাত্রীচাপটা এবার বেশি।

এদিকে, অভ্যান্তরীণ প্রতিটি গন্তেব্যে এয়ারলাইনসের টিকেটের মূল্য বাড়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন যাত্রীরা। এয়ারলাইনসগুলো বলছে, গত কয়েক মাসে উড়োজাহাজের জ্বালানি জেট ফুয়েলের দাম বেড়েছে অনেক বেশি।

নভোএয়ারের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) মফিজুর রহমান বলেন, তেলের দাম বাড়লে আমাদের বাড়া বাড়াতেই হবে। যার জন্য এখন যে ভাড়াটা হয়ে গেছে আকাশপথে এটা অনেকের সক্ষমতার বাইরে চলে গেছে। যারা ঈদের সময় এয়ারে যেত, এখন অনেকেই কিন্তু সড়কপথে বা রেলপথে যাবে।

অভ্যন্তরীণ রুটে আকাশপথকে আরও বেশি জনপ্রিয় করতে সরকারকে জ্বালানি তেলের দাম কমানোর আহ্বান জানান এভিয়েশন বিশেষজ্ঞ কাজী ওয়াহিদুল আলম।

তিনি বলেন, ঈদ ট্রাফিক সাধারণত ওয়ানওয়ে ট্রাফিক-যাওয়ার সময় হোক কিংবা আসার সময়। এ জন্য ভাড়াটা এ সময় বাড়তি দেখা যায়। যাত্রী মনে করছে-বেশি পয়সা দিচ্ছেন। আসলে খুব যে বেশি দিচ্ছে, তা না। কিছু হয়তো বেশি পড়ে। এয়ারলাইনসগুলোকে অবশ্যই মানবিক বিষয়টা বিবেচনা করা উচিত।

সহনীয় পর্যায়ে টিকিটের দাম রাখার আহ্বান জানান বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী মো. মাহবুব আলী।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, তারা সহনশীলই থাকবে। তবে বরাবরই আমাদের অনুরোধ ছিল, তাদের সঙ্গে আমরা বসেছি- ভাড়াটা যেন সহনীয় থাকে। এ ব্যাপারে আমাদের মন্ত্রণালয় থেকে আমারা বরাবরই সোচ্চার ছিলাম। পদক্ষেপ নিয়েছি, ভবিষ্যতেও আমরা পদক্ষেপ নেব।

চাহিদা বেশি থাকার সুযোগে টিকিটের দাম বেশি নিলে যাত্রীরা আকাশপথ থেকে মুখ ফেরাতে পারে বলেও মন্তব্য করেন বিশেষজ্ঞরা।

মন্তব্য করুন

RTV Drama
RTVPLUS