Mir cement
logo
  • ঢাকা বুধবার, ০৪ আগস্ট ২০২১, ২০ শ্রাবণ ১৪২৮

উৎপল-পার্থের হাতে জিম্মি সিলেটের সড়ক বিভাগ!

উৎপল-পার্থের হাতে জিম্মি সিলেটের সড়ক বিভাগ!
উৎপল-পার্থের হাতে জিম্মি সিলেটের সড়ক বিভাগ

সিলেটের সড়ক ও জনপথ বিভাগের কাজ প্রকৃত প্রতিষ্ঠান দিয়ে না করিয়ে, করানো হচ্ছে অন্যদের দিয়ে। এমন অভিযোগ করেছেন বেশ কয়েকজন ঠিকাদার। অনুসন্ধানে জানা যায়, সম্প্রতি সুনামগঞ্জ জেলায় ২ কোটি ৫৪ লাখ ৭০ হাজার টাকা ব্যয়ে ৩টি সড়ক নির্মাণ কাজ করছে সড়ক ও জনপথ বিভাগ (সওজ)। অভিযোগ উঠেছে, সড়কের নির্মাণকাজে নিম্নমানের সামগ্রী ব্যবহার করা হয়েছে। সবচেয়ে গুরুতর অভিযোগ হচ্ছে কাজগুলো যে প্রতিষ্ঠান টেন্ডারে পেয়েছে তারা নিজেরা না করে করাচ্ছে অন্যদের মাধ্যমে।

আর এসব কাজের তদারকি করছেন জয়দ্বীপ দে পার্থ নামের জনৈক ব্যক্তি। এই পার্থের সঙ্গে সওজের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা উৎপল সামন্তের রয়েছে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক। যার পিঠে ভর করেই তিনি সরাসরি কাজ তদারকি করছেন বলে অভিযোগ করেছেন বেশ কয়েকজন স্থানীয় ঠিকাদার।

অভিযোগ উৎপল আর পার্থের এই সখ্য অন্য ঠিকাদারদের জন্য গলার কাঁটায় পরিণত হয়েছে। এই ‘সম্পর্ককে’নিজেদের টিকে থাকার লড়াইয়ে বড় বাধা বলে মনে করছেন ঠিকাদাররা। তারা বলছেন, পথ হারিয়েছে সড়ক ও জনপথ সিলেট বিভাগ। তবে অভিযুক্ত সওজ কর্মকর্তা এমন অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছেন। তিনি বলেছেন, যারা কাজ পেয়েছে তারাই তাদের কাজ করছে। এখানে তার কোন হস্তক্ষেপ নেই।

জানা গেছে, সুনামগঞ্জ জেলার জামালগঞ্জে ৭৭ লাখ ৭০ হাজার ১৩৪ টাকা ৩০ পয়সা এবং ৮৩ লাখ ২৯ হাজার ৩৮৮ টাকা ৮২০ পয়সা ব্যয়ে দুটি সড়ক (আইডি নম্বর- ৫৬৩১৩৭ ও ৫৬৩১১৫) এবং নিয়ামতপুরে ৯৩ লাখ ৭০ হাজার ৭৩৯ টাকা ১৫০ পয়সা ব্যয়ে আরো একটি সড়কের (আইডি নম্বর- ৫৬৩১২৯) নির্মাণ কাজের দায়িত্ব পায় যশোরভিত্তিক একটি ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান। এছাড়া কানাইঘাট উপজেলায় ১২ কোটি টাকা ব্যয়ে একটি সেতুও নির্মাণ করছে একই প্রতিষ্ঠান।

কিন্তু যে প্রতিষ্ঠান কাজ পেয়েছে তারা সরাসরি কোন কাজই করছে না। কাজগুলো করছেন সিলেটের জয়দ্বীপ দে পার্থ নামের এক ব্যক্তি। যার কোন ঠিকাদারি লাইসেন্সই নেই। শুধু একজন সরকারি কর্মকর্তার সঙ্গে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক থাকার সুবাদেই তিনি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানকে লাইসেন্স ভাড়া দিয়ে নিজে চালিয়ে যাচ্ছেন এসব সরকারি গুরুত্বপূর্ণ কাজ।

যশোরভিত্তিক ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের প্রধান প্রকৌশলী সোহাগও আরটিভি নিউজকে স্বীকার করেন যে, কাজগুলো জয়দ্বীপ দে পার্থের মাধ্যমে করানো হচ্ছে।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত জয়দ্বীপ দে পার্থ নিজেকে প্রথমে সওজ এর ঠিকাদার বলে দাবি করেন। এরপর জানান, তিনি ও সওজ এর তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী উৎপল সামন্ত একসাথে বসে আড্ডা দিচ্ছেন। সুনামগঞ্জের তিনটি সড়কের কাজ তিনি করাচ্ছেন। পরবর্তীতে এক প্রশ্নের জবাবে তিনি সওজ’র ঠিকাদার নন বলে স্বীকার করেন।

সিলেট সওজ’র সড়ক সার্কেলের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী উৎপল সামন্তের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি কারো সাথে বিশেষ সম্পর্কের কথা অস্বীকার করে বলেন, যদি কাজে গড়মিল থাকে তাহলে বিল দেয়া হবে না। এটা ছোট কাজ। আগে টেস্ট করা হবে। আমি কারো জন্য কখনো রিকয়েস্ট করিনি। সিলেটের নির্বাহী প্রকৌশলী ছিলাম তখনো করিনি। আমি যেটা জানি, সাইফুল ইসলাম, জিল্লুর রহমান, মিলাদসহ অন্যরা কাজটি করাচ্ছেন। সেখানে আমার কোন হাত নেই। পার্থ আমার বন্ধু, সেটা কি আমার অপরাধ। কিন্তু পার্থ তো দূরের কথা, আমি কারো জন্যই কোনোদিন রিকয়েস্ট করিনি। গত ১০ জুন কাজ ঠিকমতো করার জন্য সবাইকে চিঠি দিয়েছি।’

উৎপল সামন্ত আরও বলেন, পার্থের ঠিকাদারি লাইন্সেস নেই। একসময় হয়তো ছিল। লাইসেন্স ছাড়া কেউ কাজ করতে পারবে না। বিষয়টি আমি খোঁজ নিয়ে দেখবো।

পি

মন্তব্য করুন

RTV Drama
RTVPLUS