Mir cement
logo
  • ঢাকা রোববার, ০৯ মে ২০২১, ২৬ বৈশাখ ১৪২৮

সাদিয়া কানিজ লিজা, আরটিভি নিউজ

  ০৩ মে ২০২১, ১৭:২০
আপডেট : ০৩ মে ২০২১, ১৮:২৭

বাজারে মানা হচ্ছে না স্বাস্থ্যবিধি, নেই সচেতনতা

বাজারে মানা হচ্ছে না স্বাস্থ্যবিধি, নেই সচেতনতা
বাজারে মানা হচ্ছে না স্বাস্থ্যবিধি, নেই সচেতনতা

রাজধানীর বাজারগুলোতে লকডাউনের মধ্যেও প্রতিদিন শত শত মানুষের আনাগোনা। বিক্রেতারা জীবিকার তাগিদে দোকান খুলে বসছেন। আবার নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের চাহিদা মেটাতে বাজারে আসছেন ক্রেতারা। সেই সঙ্গে রোজার মাস হওয়ায় ইফতারের আগ মুহূর্তে বাজারে মানুষের আনাগোনা আরও বেড়ে যায়। বাজারগুলোতে স্বাস্থ্যবিধি যেন একেবারেই উধাও। সচেতনতার ন্যূনতম বালাইটুকুও নেই।

লকডাউনের শুরুতে মানুষকে বিধি-নিষেধ মানাতে কিছুটা তোরজোড় থাকলেও এখন আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর তৎপরতাও চোখে পড়ছে না। দেশে প্রতিদিন এত মানুষ আক্রান্ত হচ্ছেন, মারা যাওয়ার সংখ্যাটাও নেহাতই কম নয়। তাতেও যেন মানুষের টনক নড়ছে না।

এদিকে সংশ্লিষ্টরা বলছেন, বাজার-শপিংমলগুলোতে এমন পরিস্থিতি চলতে থাকলে সংক্রমণ আরও বাড়ার সম্ভাবনা রয়েছে। এখনই সতর্ক না হলে সামনের অবস্থা আরও ভয়াবহ হবে। এ অবস্থায় স্বাস্থ্যবিধি মেনেই বাইরে চলাচল করা উচিত।

করোনা সংক্রমণরোধে গত ১৪ এপ্রিল থেকে চলছে লকডাউন। মানুষ যাতে সামাজিক দূরত্ব ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলে সেই উদ্দেশ্যেই লকডাউন দেয়া হয়েছে। কিন্তু বাস্তবচিত্র একেবারেই ভিন্ন। করোনা নিয়ে মানুষের উদাসীনতা কাটছেই না।

সোমবার (৩ মে) সবচেয়ে বড় পাইকারি ও খুচরা বাজার কারওয়ানবাজারে গিয়ে দেখা যায়, একজন আর একজনের গায়ের সঙ্গে গা ঘেঁষেই কেনাকাটা করছেন। ক্রেতাদের মুখে মাস্ক দেখা গেলেও বেশিরভাগ বিক্রেতার মুখে নেই মাস্ক। কেউ রেখেছেন থুতনিতে, কেউ পকেটে। অজুহাতেরও অভাব নেই তাদের। এদিকে বাজারের সামনের রাস্তায় ব্যক্তিগত গাড়িতে যানজট লেগেই থাকে। সেখানেও দেখা যায় মানুষের জটলা।

কারওয়ান বাজারের ফল বিক্রেতা সবুজ দুপুরের পর থেকেই ব্যস্ত সময় পার করছেন। কোনও দিকে খেয়াল দেয়ার সময়টুকুও নেই। সেই সঙ্গে মুখে নেই মাস্ক। হাত ধোয়া বা স্যানিটাইজ করার ফুসরত কোথায়। ক্রেতারা পণ্য কিনে টাকা দিলে পকেটে রেখে সেই হাত দিয়েই মুছে নিচ্ছেন নাকে-মুখে জমে থাকা ঘাম। সেই হাত যাচ্ছে চোখেও।

জানতে চাইলে এই ফল বিক্রেতা বলেন, মাস্ক পরা উচিত জানি। পকেটে আছে কিন্তু গরম লাগে তাই পরে থাকতে পারি না।

আর এক বিক্রেতা হোসেনের কাছে জানতে চাইলে দ্রুত পকেট থেকে মাস্ক বের করে পরতে পরতে বলেন, মাস্ক সবসময়ই পরি কিন্তু একটু আগেই খুলছি। এইডা পরে কথা কইতে কষ্ট হয়, গরম লাগে।

আব্দুল হাই নামে এক ক্রেতা আরটিভি নিউজকে বলেন, এক সপ্তাহ পরে বাজারে এলাম। এসেই দেখি বাজারে এত এত মানুষ। অনেকেই স্বাস্থ্যবিধিও মানেছন না। বেশির ভাগ বিক্রেতার মুখে মাস্ক নেই। অনেক ক্রেতাও মাস্ক পরেননি দেখলাম। এর ফলে সবাই স্বাস্থ্যঝুঁকিতে পরছি।

এদিকে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র আতিকুল ইসলাম জানিয়েছেন, স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিতে বুধবার থেকে রাজধানীর মার্কেটগুলো পরিদর্শন করা হবে।

এসকে/পি

RTV Drama
RTVPLUS