Mir cement
logo
  • ঢাকা রোববার, ০৯ মে ২০২১, ২৬ বৈশাখ ১৪২৮

সড়কে বাড়ছে মোটরসাইকেল, বেড়েছে দুর্ঘটনাও (ভিডিও)

সড়কে অনিয়ন্ত্রিতভাবে মোটরসাইকেলের সংখ্যা বাড়ার সঙ্গে বেড়েছে দুর্ঘটনাও। বুয়েটের এক্সিডেন্ট রিসার্চ ইনস্টিটিউটের হিসাবে ২০২০ সালে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় ১ হাজার ৯৭ জন মারা যান। এর কারণ হিসেবে বেপরোয়া গতি, মানহীন হেলমেট ব্যবহার আর ভাড়ায় খাটা অদক্ষ চালকদের দায়ী করেন বিশেষজ্ঞরা।

যানজটের শহরে যাত্রী পরিবহনের জন্য মোটরসাইকেলের ব্যবহার কয়েকগুণ বেড়েছে। এ কাজে রাইড শেয়ারিং অ্যাপ ভিত্তিক মোটরসাইকেলের ব্যবহার বেশি দেখা যায়। তবে এর মান নিয়ে আছে অনেক প্রশ্ন। অন্যদিকে চালকদের নিয়ম না মানার প্রবণতা বেপরোয়া চালানো আর যত্রতত্র যাত্রী ওঠানামায় সড়ক বিশৃঙ্খলায় নতুন মাত্রা যোগ করেছে।

দেশে মোট সড়ক দুর্ঘটনার শিকার যানবাহনের মধ্যে মোটরসাইকেলের সংখ্যা সবচেয়ে বেশি। বুয়েটের সড়ক দুর্ঘটনা গবেষণা ইনস্টিটিউটের তথ্যমতে, করোনার লকডাউনে সব বন্ধ থাকার পরও ২০২০ সালে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় প্রাণ গেছে ১ হাজার ৯৭ জনের। আরেক গবেষণায় দেখা যায়, এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনার শীর্ষে বাংলাদেশ।

এ সমস্যার বিষয়ে বুয়েটের এআরআই’র পরিচালক ড. মো. হাদিউজ্জামান বলেন, যারা মোটরসাইকেল চালান তাদের মধ্যে মাত্র ১০ শতাংশ হেলমেট ব্যবহার করেন। এমনও বাইকার আছে যারা ১০ মিনিটে ৬০ বার লেন পরিবর্তন করে থাকে। মোটরসাইকেল দুর্ঘটনার অন্যতম কারণ বেপরোয়া গতি আর নিম্নমানের হেলমেট আর অদক্ষ চালক। রাজধানীর অতিব্যস্ত অপ্রসস্ত রাস্তায় ইউলুপ নির্মাণও মোটরসাইকেল চালকদের ঝুঁকিতে ফেলেছে।

তারপরেও কেবলমাত্র যোগ্যরা লাইসেন্স পেলে আর অভিভাবকরা সচেতন হলে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনা অনেকাংশে কমানো সম্ভব।

জিএম/এসএস

RTV Drama
RTVPLUS