logo
  • ঢাকা বুধবার, ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১১ ফাল্গুন ১৪২৭

পুরো বছর প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষার বাইরে রয়েছে শিক্ষার্থীরা (ভিডিও)

ফাইল ছবি

করোনা পরিস্থিতির কারণে ২০২০ সালে বিপর্যস্ত দেশের শিক্ষাব্যবস্থা আর পুরো বছরই প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষার বাইরে রয়েছে শিক্ষার্থীরা। স্বাস্থ্য ঝুঁকির কারণে সমাপনী ও জেএসসি পরীক্ষা এমনকি এইচএসসির মতো গুরুত্বপূর্ণ পরীক্ষাও হয়নি। পরীক্ষা বদলে সব স্কুলে হবে লটারিতে ভর্তি। বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষা নিয়েও তৈরি হয়েছে নানা জটিলতা। ২০২১ এর ১ জানুয়ারিতে হচ্ছে না বই উৎসবও।

৮ই মার্চ বাংলাদেশে প্রথম করোনা রোগী শনাক্তের পরেই বিভিন্ন মহলে দাবি ওঠে করোনা প্রতিরোধে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ করার। ২৬ মার্চ থেকে দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ করে দেয় সরকার। এরপর এক/দুই মাস করে কয়েক দফা ছুটি বৃদ্ধি করা হয়। সর্বশেষ ২০২১ সালের ১৬ জানুয়ারি পর্যন্ত ছুটি বাড়িয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়।

২০২০ এর প্রায় পুরো বছরই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান থেকে দূরে রয়েছে শিক্ষার্থীরা। মুক্তিযুদ্ধ পরবর্তী সময়ে এমন নজির আর দেখা যায়নি। ২৫শে আগস্ট শিক্ষা মন্ত্রণালয় জানায় এ বছর সমাপনী ও জেএসসি পরীক্ষা হচ্ছে না।

এ বছর এপ্রিলে এইচএসসি পরীক্ষা হওয়ার কথা থাকলেও তা স্থগিত করা হয়। নানা জল্পনা কল্পনার পর শিক্ষামন্ত্রী সেপ্টেম্বরে ঘোষণা দেন এইচএসসি পরীক্ষা হবে না। জেএসসি ও এসএসসি পরীক্ষার ফলাফলের ভিত্তিতে এইচএসসির ফল দেয়া হবে।

শিক্ষাবিদ রাশেদা কে চৌধুরী বলেন, করোনা সংক্রমণ বিষয়টি আমরা লাগালে আনতে পারি নাই। সে জন্য সরকার সিদ্ধান্ত নিতে বাধ্য হয়েছে। তবে কত দিন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখার প্রয়োজন ছিল তা নিয়ে নানা রকম মত আছে।

শিক্ষা ব্যবস্থায় এবছর বড় পরিবর্তন হলো অনলাইন ক্লাস। যেটার সঙ্গে পরিচিত ছিল না শিক্ষার্থীরা। প্রথমে বিশ্ববিদ্যালয়ে শুরু হলেও পরবর্তীতে স্কুল-কলেজে অনলাইন ক্লাস চালু করা হয়। যদিও বেশিরভাগ শিক্ষার্থীই অনলাইন ক্লাসের বাইরে থেকে যাচ্ছে।

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকা এবং স্বাস্থ্য ঝুঁকির কারণে এবার স্কুলগুলোতে বার্ষিক পরীক্ষা হয়নি। আগের ক্লাসের ফলাফলের ভিত্তিতে সবাইকে উত্তীর্ণ করে দেয়া হয়েছে। অন্য বছর কিছু স্কুলে প্রথম শ্রেণীতে লটারি হলেও এবার সারাদেশের সব ক্লাসে ভর্তি করা হচ্ছে লটারির মাধ্যমে।

বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি পরীক্ষার ক্ষেত্রেও এবার অনেক পরিবর্তন হয়েছে। শিক্ষার্থীদের ভোগান্তি দূর করতে সমন্বিত ভর্তি পরীক্ষার কথা বলা হলেও অনেক বিশ্ববিদ্যালয় তাতে রাজি হয়নি। পরে ১৯টি বিশ্ববিদ্যালয় নিয়ে গুচ্ছ পদ্ধতিতে পরীক্ষার সিদ্ধান্ত হয়েছে। বাকি বিশ্ববিদ্যালয়গুলো স্বতন্ত্রভাবে ভর্তি পরীক্ষা নেবে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় বিভাগীয় শহরে পরীক্ষা নেবে।

গেল কয়েক বছর ধরে বছরের প্রথম দিন বই উৎসব করা হলেও ২০২১ সালে সেটা হচ্ছে না। করোনা সংকটের কারণে নতুন বই ছাপাতেও বিলম্ব হচ্ছে। বই প্রস্তুতের পর কয়েকটি ধাপে শিক্ষার্থীদেরকে নতুন বই দেয়া হবে।

শিক্ষা মন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেন, স্বাস্থ্য ঝুঁকির কারণে সমাবেশ করে বই দেয়া হবে না।

শিক্ষাবিদ রাশেদা কে চৌধুরী বলছেন, করোনাকে কেন্দ্র করে ২০২১ সালে সিলেবাস পরিবর্তন করে শিক্ষাবর্ষকে ভিন্ন আঙ্গিকে সাজাতে হবে।

তিনি আরও বলেন, স্বাস্থ্যবিধি মানার প্রস্তুতিসহ তাদের জন্য বিশেষ ব্যবস্থা করা। এবং সরকার যদি এগুলো করতে পারে তাহলে এক সময় আমরা পুষিয়ে নিতে পারবো।

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান চালু হলে শিক্ষার্থীদের ক্ষতি পুষিয়ে নিতে আগের ক্লাসের পাঠদানের জন্য কিছুটা সময় বরাদ্দ রাখার পরামর্শ দিলেন তিনি।

জিএম/এম/এমকে

RTV Drama
RTVPLUS