logo
  • ঢাকা রোববার, ০৬ ডিসেম্বর ২০২০, ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৭

খাল উন্নয়নে ওয়াসার বিরুদ্ধে সাড়ে ৫শ’ কোটি টাকার দুর্নীতির অভিযোগ (ভিডিও)

রাজধানীর খালগুলোর উন্নয়নে ঢাকা ওয়াসার বিরুদ্ধে সাড়ে ৫০০ কোটি টাকার প্রকল্পে দুর্নীতি অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। প্রকল্পের অধীনে ১৭টি খালে উন্নয়ন কাজ করার কথা থাকলেও দুই-একটি খাল ছাড়া বাকিগুলোতে ময়লা পরিষ্কার ছাড়া তেমন কিছু করা হয়নি। অথচ ইতোমধ্যেই প্রকল্পের ১০০ কোটি টাকা খরচ হয়ে গেছে।  এনিয়ে মুখ খুলছেন না, ওয়াসার ব্যবস্থাপনা পরিচালক।    

জমি অধিগ্রহণ ও খননের জন্য ৬৪৫ কোটি টাকার প্রকল্পের পর, খাল উন্নয়নে সাড়ে ৫০০ কোটি টাকার আরেকটি মেগা প্রকল্প হাতে নেয় ঢাকা ওয়াসা। সরকারি অর্থায়নে প্রকল্পের মেয়াদ শেষ হওয়া কথা ছিল ২০১৮ সালের ৩০ ডিসেম্বর। এতে ১৭টি খাল খনন, পাড় বাঁধাই, ওয়াকওয়ে ও রেলিং নির্মাণ এবং খালের রোড ক্রসিং ব্রিজ বা কালভার্ট নির্মাণের কথা। কিন্তু দুই-তিনটি খাল ছাড়া বাকিগুলোতে এর কিছুই করা হয়নি। অথচ এরই মধ্যে খরচ হয়ে গেছে ১০০ কোটি টাকা।

ওয়াসার কাছে প্রকল্পের অগ্রগতি জানতে চাওয়া হলে তারা জানায়, ইব্রাহিমপুর খাল, বাউনিয়া খাল ও আব্দুল্লাহপুর খালে পাড় বাঁধাই, ওয়াকওয়ে ও রেলিং নির্মাণের কাজ চলছে। কিন্তু ইব্রাহিমপুর ও বাওনিয়া খালে গিয়ে এসবের কোনও আলামত পাওয়া গেলো না। বরাবরের মতো ওয়াসার ব্যবস্থাপনা পরিচালক এ নিয়েও কথা বলেননি।  

আবার, তিন কোটি ৩৭ লাখ টাকা ব্যয়ে কাঁটাসুর খালে, দুটি কালভার্ট নির্মাণ করা হচ্ছে। কিন্তু এত টাকা খরচকে অস্বাভাবিক বলছেন স্থানীয়রা। কাজের অগ্রগতি সম্পর্কে ওয়াসা জানিয়েছে, ১৬টি খাল খনন করেছেন তারা। অথচ খালগুলো ঘুরে দেখা গেলো বেশিরভাগে খালে কেবল ভাসমান ময়লা-আবর্জনা সরানো হয়েছে।     

স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী তাজুল ইসলাম বলেন, আমরা তথ্যগুলো যাচাই করে দেখবো। যদি কোথাও ত্রুটি বিচ্যুতি পাওয়া যায় তাহলে আমরা ব্যবস্থা নেবো। 

খালগুলোর উন্নয়নে, হাজার কোটি টাকা যথাযথভাবে খরচ করা গেলে সেগুলোর নব্যতা ফিরিয়ে আনা সম্ভব হতো বলে মনে করেন বিশেষজ্ঞরা। 

এসএম/এমকে

RTVPLUS