logo
  • ঢাকা সোমবার, ১৮ জানুয়ারি ২০২১, ৪ মাঘ ১৪২৭

‘আমরা রাজনীতির কেউ না, আমরা প্রবাসী, আমাদের কান্না শুনুন’

We, politics, expatriates, listen, cries
‘আমরা রাজনীতির কেউ না, আমরা প্রবাসী, আমাদের কান্না শুনুন’
করোনা মহামারিতে গত এক বছরে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সামনে প্রবাসীরা নিজেদের দাবি আদায়ে পাঁচবার উপস্থিত হয়েছেন। ফের দাবি আদায়ে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সামনে ব্যানার নিয়ে দাঁড়িয়েছেন প্রবাসীরা। এসময় তারা বলছেন, ‘আমরা এখানে রাজনীতির কেউ না, আমরা প্রবাসী, আমরা দিনমজুর, আমরা খেটে খাওয়া শ্রমিক, আমরা বিদেশ থেকে দেশের জন্য কাজ করেছি, আমরা দেশের জন্য কাজ করতে চাই। আমাদের কান্নার আওয়াজ শুনুন। আমাদের ন্যায্য অধিকার দিন।’

আজ মঙ্গলবার (৫ জানুয়ারি) রাজধানীর তোপখানা রোড সংলগ্ন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সামনে কাতার ফেরত প্রবাসী কর্মীদের একজন হ্যান্ডমাইকে এভাবেই কান্নাজড়িত কণ্ঠে তাদের দাবির কথা বলছিলেন। কর্মস্থলে ফিরতে ‘রি-এন্ট্রি পারমিটের’ আবেদন করা হলেও তা গ্রহণ করা হচ্ছে না বলে জানিয়েছেন কয়েকজন প্রবাসী।

প্রবাসীরা বলেন, মুজিববর্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমাদের দাবিগুলো শুনবেন। এই দাবি আদায়ে কোনও প্রবাসী পিছুপা হবেন না। আমরা যারা বিদেশ থেকে দেশে এসে ১ বছর ধরে আটকে পড়েছি। আমরা কতোটা কষ্টে দিনযাপন করছি, আমরাই জানি। 
তারা আরও বলেন, বিদেশে যাওয়ার ব্যবস্থা না করলে প্রবাসীদের দেশেই কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করে দেন। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সামনে দায়িত্ব পালন করা পুলিশ সদস্যদের বলেন- প্রশাসনের যারা দায়িত্ব পালন করছেন দয়া করে তারা আমাদের সঙ্গে খারাপ ব্যবহার করবেন না।

এক বছর আগে ফিরে এসে মহামারি করোনা পরিস্থিতির কারণে ১২ হাজার কুয়েত প্রবাসী দেশে আটকা পড়ে। তারা পুনরায় কাতার ফিরে যাওয়ার জন্য আজ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সামনে ভিড় জমান।

এ প্রতিবেদকের সঙ্গে আলাপকালে কাতার প্রবাসীদের কয়েকজন বলেন, প্রবাসে অর্থ উপার্জন করতে দিনরাত কষ্ট করে দেশের অর্থনীতিতে অবদান রাখছি। আমাদের পাঠানো টাকায় পরিবার-পরিজন খেয়ে-পরে ভালো ছিল। কিন্তু বর্তমানে কাতার ফিরে না যেতে পারায় অর্থকষ্টে পরিবার-পরিজন নিয়ে মানবেতর জীবনযাপন করছি।

সিলেটের বাসিন্দা কাতার প্রবাসী শামসুল আলম বলেন, কাতার ফিরে যাওয়ার এন্ট্রি পারমিটের জন্য আমরা পাঁচ পাঁচবার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে সমবেত হলেও শুধু আশ্বাসই পেয়েছি।

এফএ

RTV Drama
RTVPLUS