logo
  • ঢাকা শনিবার, ১৪ ডিসেম্বর ২০১৯, ২৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

পূজার ছুটিতে হল বন্ধ করে ঐতিহাসিক নজির স্থাপন করলো ইবি

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি
|  ০১ অক্টোবর ২০১৯, ১১:১৫
ইবি,হল,বন্ধ
শারদীয় দুর্গোৎসব উপলক্ষে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের সব আবাসিক হলগুলো বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

হল বন্ধের খবরটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হলে শিক্ষার্থীরা গতকাল সোমবার  সন্ধ্যা সাড়ে ছয়টায় ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ মিছিল করে। মিছিলটি ক্যাম্পাসের জিয়া মোড়ে শুরু হয়ে বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে একই স্থানে এসে শেষ হয়। এ সময় তারা হলগুলো খোলা রাখার দাবিতে বিভিন্ন স্লোগান দিতে থাকে।

ভারপ্রাপ্ত রেজিস্টার এস.এম আব্দুল লতিফ জানান, আগামী দুই অক্টোবর থেকে ১১ অক্টোবর পর্যন্ত শারদীয় দুর্গোৎসব উপলক্ষে বিশ্ববিদ্যালয় নয় দিনের ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে। পাঁচ অক্টোবর একাডেমিক ক্যালেন্ডার অনুযায়ী ছুটি না থাকলেও উপাচার্য ওইদিন ছুটি ঘোষণা করেছেন।একইসঙ্গে তিন অক্টোবর থেকে ১০ অক্টোবর পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল আবাসিক হল বন্ধ রাখার জন্য উপাচার্যের কাছে সুপারিশ করেছে প্রভোস্ট কাউন্সিল। উপাচার্য ক্যাম্পাসের বাইরে থাকায় ক্যাম্পাসে এসে তিনি এ সুপারিশ অনুমোদন দেবেন।

এদিকে হল বন্ধের চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত গ্রহণের আগেই দেশরত্ন শেখ হাসিনা হলের নোটিশ বোর্ডে তিন অক্টোবর বেলা ১১ টার মধ্যে ছাত্রীদের হল ত্যাগের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এই নোটিশের খবরটি ফেসবুকে প্রকাশিত হওয়ার পর শিক্ষার্থীরা ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ মিছিল করেছে। মিছিলে শিক্ষার্থীরা আবাসিক হলগুলো খোলা রাখার দাবিতে হল আমার ঠিকানা বন্ধ হতে দিব না, হল বন্ধের অযৌক্তিক দাবি মানি না মানব না’সহ বিভিন্ন স্লোগান দিতে থাকে।

এ বিষয়ে বাংলা বিভাগের অনার্স শেষ বর্ষের শিক্ষার্থী জি.কে সাদিক বলেন, অনার্স শেষ বর্ষের পরীক্ষা চলমান। এ অবস্থায় মাত্র নয় দিনের জন্য হল বন্ধের সিদ্ধান্তটি প্রশাসনের অযৌক্তিক সিদ্ধান্ত। এ সিদ্ধান্ত আমরা মানি না।

এ বিষয়ে শেখ হাসিনা হলের আবাসিক শিক্ষার্থী তামান্না বলেন,  ভিসি স্যার চাইলে প্রভোস্ট কাউন্সিলের সিদ্ধান্ত পরিবর্তনও করতে পারেন। চূড়ান্ত সিদ্ধান্তের আগেই ম্যাম নোটিশ দিয়েছেন। আমরা সাধারণ শিক্ষার্থীরা ভিসির কাছে হল খোলা রাখার আবেদন জানাব।

এ বিষয়ে প্রভোস্ট কাউন্সিলের সভাপতি প্রফেসর ড. আকরাম হুসাইন মজুমদার আরটিভি অনলাইনকে  বলেন,  ক্যাম্পাস বন্ধ থাকাকালে শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তার কথা বিবেচনা করে আমরা এ সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছি।এ বিষয়ে ভিসিও আমাদের সিদ্ধান্তে সুপারিশ করেছেন।  শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভের পরে ভিসি চাইলে হল খোলা রাখার সিদ্ধান্তও নিতে পারেন।

জেবি

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
  • অন্যান্য এর সর্বশেষ
  • অন্যান্য এর পাঠক প্রিয়