Mir cement
logo
  • ঢাকা বুধবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২১, ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৮

শখের মেয়ে খুব চটপটে

শখের মেয়ে খুব চটপটে

দেশীয় টেলিভিশনের একসময়ের জনপ্রিয় মুখ ছিলেন। নানারকম বিজ্ঞাপনেও দেখা মিলত। দেশের প্রায় সব বড় শহর ছেয়ে গিয়েছিল তার হাসিমাখা ছবির বিলবোর্ডে। সেই আনিকা কবির শখ দীর্ঘদিন শোবিজে অনিয়মিত। সম্প্রতি তিনি মা হয়েছেন। মেয়ের নাম রেখেছেন আনাহিতা রহমান আলিফ।

সম্প্রতি গণমাধ্যমকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে মেয়ে প্রসঙ্গে শখ জানিয়েছেন, ‘ওর (আলিফ) বয়স ১ মাস ২৬ দিন। খুব চটপটে। কোলে বসে সারাক্ষণ অস্থির থাকে। বাবুকে নিয়েই এখন আমার ব্যস্ততা বেশি।’

কাজে ফেরা প্রসঙ্গে তিনি জানিয়েছেন, ‘কাজের জন্য এরই মধ্যে কেউ কেউ নক দেওয়া শুরু করেছেন। বাচ্চা হওয়ার কারণে অনেকটা মুটিয়ে গেছি। ফিট হতে হবে। অবশ্য সেই প্রস্তুতিও শুরু করতে যাচ্ছি। আগামী সপ্তাহ থেকে নাচের ক্লাস শুরু করব। শরীর ঠিক রাখতে আমি কখনোই জিম করি না। নেচেই মেকআপ করি। নাচলে একদিকে শরীর ভালো থাকে, অন্যদিকে নাচের অনুশীলনও হয়ে যায়। সব মিলে আশা করছি, আগামী বছরের শুরুর দিকেই কাজে ফিরতে পারব। নতুনভাবে আসতে চাচ্ছি।’

এর আগে গেল সোমবার (১৫ নভেম্বর) জাগো এফএমে লাইভ সাক্ষাৎকারে অংশ নেন শখ। সেখানে তিনি ব্যক্তিগত জীবনের নানান কথা বলেন। জানান বন্ধুত্ব-প্রেম, বিয়ে বিচ্ছেদ, সংসার ও অভিনয় নিয়ে অনেক কথা।

সাক্ষাৎকারের প্রথমদিকে নিজের ক্যারিয়ার এবং জনপ্রিয় ওয়ে ওঠার বিষয়ে শখ বলেন, আমরা যে সময়ে কাজ শুরু করি, তখন কাজের পরিবেশটা ভিন্ন ছিল। আমরা কোনো প্ল্যাটফরম থেকে আসিনি। তখন কাজের প্রতিযোগিতা ছিল আলাদা। কাজ দিয়ে যুদ্ধ করে এগোতে হতো। এখন যেমন প্ল্যাটফরম দিয়ে এলে পেছন থেকে একটা ব্যাকআপ পাওয়া যায়। আমাদের ক্ষেত্রে ওই সাপোর্টটা ছিল না। আমরা একদম নিজে নিজেই কাজ করে এসেছি।

ক্যারিয়ারের কঠিন সময়ের কথা তুলে ধরে তিনি বলেন, আমার ক্যারিয়ারের কঠিন সময় ছিল ২০১০-১১ সাল। তখন আমি ধুমছে কাজ শুরু করেছি। ফ্যামিলি বেশ সাহায্য করেছিল। বাবার হেল্প পেতাম সবসময়।

নিজের অভিনয়কালে গুরুত্বপূর্ণ সময়ের বিষয়ে শখ বলেন, আমার অভিনয়ের টার্নিং পয়েন্ট ছিল ‘সিকান্দার বক্স’। এখানে ডিরেক্টর সাগর জাহান, আর মোশাররফ ভাই অনেক সাহায্য করেছেন। আসলে ‘সিকান্দার বক্স’ থেকেই অভিনয় ভালো হওয়া শুরু আমার। মোশাররফ ভাই, প্রত্যেকটা বিষয় ধরে ধরে বুঝিয়ে দিতেন। বলতেন, ‘শখ তুই এটা এভাবে বল, এভাবে কর।’

অভিনয়ের আগের জীবন এবং পরবর্তী জীবন প্রসঙ্গে তিনি বলেন, আগে কলেজের বন্ধুরা ‘তুই তুই’ করে বলত। এখন ‘তুমি’ করে বলে। অনেক কিছুই পরিবর্তন হয়েছে বলে জানান এই অভিনেত্রী। তবে এখনো আগের মতো রিকশায় ঘোরা, ফুচকা খাওয়া এসব উপভোগ করেন। মাঝেমধ্যে স্বামীকে নিয়ে বাইরেও ঘুরতে যান।

সম্পর্ক গড়া, তারপর বিয়ে ভাঙা এসব বিষয়ে প্রশ্নের সম্মুখীন হতে হয় কি না, এমন প্রশ্নে অভিনেত্রী বলেন, আগে এটা ছিল। কিন্তু এখন নেই। মানুষ এখন বিষয়টা অনেক খোলাখুলিভাবে নিচ্ছে। কারণ, জোর করে সম্পর্ক হয় না। একটা মানুষের সঙ্গে বোঝাপড়া না থাকলে তো জোর করে থাকা সম্ভব না। জোর করে খারাপভাবে সম্পর্ক রাখার থেকে সুন্দরভাবে ভেঙে যাওয়াই ভালো।

মডেল ও অভিনেতা নিলয়ের সঙ্গে ডিভোর্স প্রসঙ্গে শখ জানান, তার পরিবার এটাকে স্বাভাবিকভাবেই নিয়েছে। কারণ, এটার পেছনে আমারও কোনো ভুল ছিল না। বোঝাপড়া হয়নি। আমরা পারিবারিভাবে সিদ্ধান্ত নিয়েছি। বোঝাপড়া হয়নি বলেই দাম্পত্যে ইতি টেনেছি।

এদিকে নিলয়ের সঙ্গে বিচ্ছেদের পর জনকে জীবনসঙ্গী করেন শখ। জনের সঙ্গে কীভাবে পরিচয় হলো- এমন প্রশ্নে তিনি বলেন, একটি ফোটোশুটে তার সঙ্গে পরিচয়। ওর সঙ্গে প্রেম করার সময় হয়নি। সে একদিন সরাসরি আম্মুকে ফোন দিল। ওই দিনই সে আম্মুকে বললো, আমি শখকে পছন্দ করি। আমি তাকে বিয়ে করতে চাই। আম্মুও বললো আচ্ছা দেখি। এরপর দুই ফ্যামিলির সিদ্ধান্তে সরাসরি বিয়ে হয়। করোনার সময় বিয়ে হয় ঘরোয়াভাবে। তখন অনেকে বলেছিল, আমি না কি গোপনে বিয়ে করেছি। কিন্তু গোপন করার কিছু নেই। তখন ফেসবুক হ্যাকড ছিল। কারও সঙ্গে তেমন যোগাযোগ করার সুযোগ হয়নি।

এনএস/টিআই

মন্তব্য করুন

RTV Drama
RTVPLUS