logo
  • ঢাকা রোববার, ২৯ নভেম্বর ২০২০, ১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৭

ফরিদুল হাসানের ‘ফরেন ভিলেজ’

সকাল হলেই উজান পুর গ্রামের প্রতিটা ঘরে স্বামীরা সংসারের যাবতীয় কাজ নিয়ে ব্যস্ত হয়ে পড়ে। কারণ এই গ্রামের বেশির ভাগ বউ বিদেশে কর্মরত। স্ত্রী’র পাঠানো বিদেশি টাকায় কারও স্বামী ইট কিনে রেখেছে দালান তুলবে বলে। কেউ আবার খুব দাম্ভিকতা নিয়ে চলে স্ত্রী বিদেশে কর্মরত বলে।

সরকারের বেঁধে দেওয়া সঠিক নিয়মে বিদেশ গিয়ে যেমন কারও বউয়ের ভাগ্য খুলে যায় তেমনি আবার অবৈধ পথে বিদেশ গিয়ে অনেক বউদের সহ্য করতে হয় অমানবিক নির্যাতন। উজান পুর গ্রামে আছে দ্বন্দ্ব। আছে আনন্দ। আছে কাছে না পাবার বেদনা আর সেই সঙ্গে আছে স্বপ্ন পূরণের বাস্তবতা। এমনই গল্পে দর্শকপ্রিয় নির্মাতা ফরিদুল হাসান নির্মাণ করেছেন তারকাবহুল ধারাবাহিক ‘ফরেন ভিলেজ’।

নাট্যকার বরজাহান হোসেনের রচনায় আগামী ৭ নভেম্বর থেকে সপ্তাহে শনি ও রোববার রাত ৯টা ৪৫ মিনিটে বাংলা ভিশনে প্রচারিত হবে ‘ফরেন ভিলেজ’। ধারাবাহিক প্রচার উপলক্ষে সোমবার রাতে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করেন নির্মাতা ফরিদুল হাসান। এ সময় উপস্থিত ছিলেন নাটক সংশ্লিষ্ট অনেকেই।

ধারাবাহিকটি নিয়ে নির্মাতা ফরিদুল হাসান বলেন, ‘করোনাভাইরাসের কারণে নাজুক পরিস্থিতির মধ্য দিয়ে যাচ্ছি আমরা। শত শঙ্কার মধ্যেও জীবন বয়ে চলছে। ধন্যবাদ জানাই বাংলা ভিশনকে ভালো গল্পের একটি দীর্ঘ ধারাবাহিক নির্মাণের সুযোগ করে দেওয়ার জন্য। আমার ধারাবাহিকগুলোতে বরাবরই চেষ্টা থাকে ব্যতিক্রম কিছু উপহার দেওয়ার এবারও তার ব্যতিক্রম হয়নি। করোনার মধ্যেও দর্শকদের আনন্দ বিনোদন দিয়ে মনকে স্বতঃস্ফূর্ত রাখতে আমার এই প্রয়াস। আশা করি সবাই ধারাবাহিকটি উপভোগ করবেন।’

অভিনেত্রী অরুনা বিশ্বাস বলেন, ‘বর্তমান ধারাবাহিক থেকে ব্যতিক্রম গল্পের ‘ফরেন ভিলেজ’। প্রায়ই শোনা যায় ধারাবাহিক নাটকের ধারাবাহিকতা থাকে না তবে সে রকম সুযোগ নেই এ ধারাবাহিকে। এটি দর্শক উপভোগ করবে।’

অভিনেত্রী নাদিয়া বলেন, ‘চরিত্র নিয়ে এখনই কিছু বলতে চাই না। তবে গ্রামের সবাই যে দিকে যায় আমি তার উল্টো দিকে যাই। আমার মনে হয় নারী পুরুষ সবারই স্বাবলম্বী হওয়া দরকার। ধারাবাহিকের গল্পটি অনেক ভালো লেগেছে। ‘ফরেন ভিলেজ’ নামটাই একটা অসাধারণ। দর্শক দেখলেই বুঝতে পারবে কি কারণে আসলে এই নাম। বিদেশের সঙ্গে কী সম্পর্ক তা বোঝানো হয়েছে। আমার মনে হয় একজন শিল্পী হিসেবে গল্পের যে চরিত্রটা ভালো লাগে সেটা যদি ফুঁটিয়ে তোলা যায় তাহলে সেটা দর্শকদেরও ভালো লাগবে।’

 

অভিনেতা মীর সাব্বির বলেন, ‘ধারাবাহিকটিতে প্রধান চরিত্রে অভিনয় করেছি। এখানে বিদেশের যাওয়ার যে প্রতিবন্ধকতা রয়েছে তা গল্পে দর্শক দেখতে পারবে। অন্যান্য ধারাবাহিক থাকে একেবারে আলাদা। গল্পে বার্তা আছে। আশা করছি দর্শকের ভালো লাগবে।’

এতে বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করেছেন মীর সাব্বির, অরুনা বিশ্বাস, নাদিয়া আহমেদ, শারমিন জোহা শশী, ঊর্মিলা শ্রাবন্তী কর, সাজু খাদেম, জামিল হোসাইন, ডা. এজাজ, দিলারা জামান, আলভি, প্রাণ রায়, আব্দুল্লাহ রানা, মাহমুদুল ইসলাম মিঠু (বড়দা মিঠু), অলিউল হক রুমী, আরফান আহমেদ, ফারজানা রিক্তা, এ্যানি খান, আইরিন আফরোজ, পূর্ণিমা বৃষ্টি, হান্নান শেলী, পাভেল সহ অভিনয় করেছেন আরো অনেক গুণী অভিনেতা-অভিনেত্রী। ধারাবাহিকটি প্রযোজনা করেছেন ক্রিয়েশন ওয়ার্ল্ড।

এম

RTVPLUS