• ঢাকা সোমবার, ২০ মে ২০২৪, ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
logo
কিশোরীকে ধর্ষণ, বৃদ্ধের বিরুদ্ধে ভ্রুণ হত্যার অভিযোগ
হোম ভিজিটের নামে এইচএসসির ফরম পূরণে অতিরিক্ত অর্থ আদায়
নরসিংদীর পলাশ উপজেলার পলাশ রেসিডেন্সিয়াল মডেল কলেজের এইচএসসি পরীক্ষার ফরম পূরণে অতিরিক্ত অর্থ আদায়ের অভিযোগ পাওয়া গেছে। নিয়মের বাইরে গিয়ে বাধ্যতামূলক এই টাকা নেওয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছে ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীরা। বিষয়টি নিয়ে সাধারণ শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের মধ্যে ক্ষোভ সৃষ্টি হয়েছে। এদিকে ফরম পূরণে সঙ্গে হোম ভিজিটের অর্থ আদায়ের বিষয়টি স্বীকার করেছেন কলেজের অধ্যক্ষ। সরেজমিন গিয়ে জানা গেছে, চলতি বছরে এইচএসসি পরীক্ষার ফরম পূরণে বোর্ড নির্ধারিত ফি বিজ্ঞান শাখায় ২ হাজার ৬৮০ টাকা এবং মানবিক ও ব্যবসায় শিক্ষা শাখায় ২ হাজার ১২০ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। এ ছাড়া মানবিক ও ব্যবসায় শিক্ষা শাখার শিক্ষার্থীদের নৈবার্চনিক বিষয়ে এবং চতুর্থ বিষয়ে ব্যবহারিক থাকলে বিষয় প্রতি আরও ১৪০ টাকা যুক্ত হবে। কিন্তু এ কলেজে সুকৌশলে নির্ধারিত ফি নেওয়ার পরও বিবিধ নাম দিয়ে প্রতি শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে অতিরিক্ত আরও ৫ হাজার থেকে ৬ হাজার টাকা হাতিয়ে নেওয়া হয়েছে। এ বছর ওই কলেজ থেকে ১০৫ জন শিক্ষার্থী এইচএসসি পরীক্ষার ফরম পূরণ করেছে বলে জানান কলেজ কর্তৃপক্ষ। তবে অতিরিক্ত বিবিধ নাম দিয়ে কি ভাবে টাকা নিচ্ছেন তারও ব্যাখ্যা দিয়েছেন কলেজের অধ্যক্ষ আরিফ পাঠান।  তিনি দাবি করেন, শিক্ষার্থীদের হোম ভিজিট বাবদ ২০০০ টাকা, পরীক্ষায় পাস করার পর প্রশংসাপত্রসহ সনদের জন্য ১০০০ টাকা ও বাকি টাকা বিল্ডিঙসহ অন্যান্য খাতে নেওয়া হচ্ছে।  নাম প্রকাশ না করার শর্তে বেশ কয়েকজন শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা অভিযোগ করে বলেন, কলেজ থেকে এইচএসসি ফরম পূরণে সরকার নির্ধারিত ফি ছাড়াও হোম ভিজিট নামে অতিরিক্ত টাকা রশিদের মাধ্যমে নিয়েছেন কলেজ কর্তৃপক্ষ। কষ্ট হলেও কলেজ কর্তৃপক্ষের দাবিকৃত টাকা রশিদের মাধ্যমে জমা দিয়েছি। কিন্তু টাকাগুলো কোন খাতে কত টাকা আমাদের বলা হয়নি। এছাড়া অতিরিক্ত টাকা নেওয়ার বিষয়টি দেখার জন্য ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের দৃষ্টিআকর্ষণ করেন অভিভাবকরা।  জানতে চাইলে পলাশ রেসিডেন্সিয়াল মডেল কলেজের অধ্যক্ষ আরিফ পাঠান মুঠোফোনে বলেন, এটি প্রাইভেট কলেজ। এখানে সরকারিভাবে কোনো বরাদ্দ নেই। বিবিধ নামে যে টাকা আদায় করা হয়েছে, সেগুলো হোম ভিজিট, প্রশংসাপত্র ও কলেজ উন্নয়নে ব্যয় করা হয়।  এদিকে পলাশ উপজেলার মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মিলন কৃষ্ণ হালদার বলেন, নির্ধারিত টাকার বাইরে অতিরিক্ত কোনো ধরনের টাকা নেওয়ার সুযোগ নেই। আর হোম ভিজিটের নামে টাকা আদায় করারও কোনো বিধান নেই। এ বিষয়ে অভিযোগ পেলে তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।  
নরসিংদীতে গৃহবধূর রহস্যজনক মৃত্যু
নরসিংদীতে সহিংসতায় আহত ১০
চমক দেখিয়ে ফের দেশসেরা নরসিংদীর নাছিমা কাদির মোল্লা হাইস্কুল 
বিয়ের দাবিতে প্রেমিক তরিকুলের বাড়িতে তরুণী, অতঃপর...
নরসিংদীতে ভোটকেন্দ্র দখল নিয়ে দুপক্ষের সংঘর্ষ, আহত ৫
নরসিংদীর সদরের একটি ভোটকেন্দ্র দখল করা নিয়ে দুগ্রুপের সংঘর্ষে ৫ জন আহত হয়েছেন।  বুধবার (৮ মে) সকাল ৯টার দিকে উপজেলার কাকশিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রে এ ঘটনা ঘটে। পরে পুলিশ এবং নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। তবে তাৎক্ষণিকভাবে আহতদের নাম জানা যায়নি। স্থানীয়রা জানান, আনারস প্রতীকের সমর্থক স্থানীয় যুবলীগ নেতা মনির মোল্লার সমর্থকরা কেন্দ্র দখল করতে গেলে বাধা দেয় কাপ পিরিচের সমর্থকরা। এতে দুপক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের সৃষ্টি হয়। এতে উভয়পক্ষের পাঁচজন আহত হয়।  প্রিজাইডিং অফিসার কাউছার আহমেদ জানান, দুপক্ষের সংঘর্ষের উত্তেজনার ফলে ৪০ মিনিট বন্ধ থাকে ভোটগ্রহণ। পরবর্তীতে পুনরায় চালু হয় কেন্দ্রটি। নরসিংদীর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শামসুল আরেফিন জানান, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ উপস্থিত হয়েছে। বিষয়টি খতিয়ে দেখে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
বিয়ে করতে বলায় প্রেমিকাকে হত্যা করে প্রেমিক, অতঃপর...
নরসিংদীর মাধবদীতে প্রেমিকাকে হত্যার দায়ে দীন ইসলাম নামে এক যুবককে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। একইসঙ্গে ১০ হাজার টাকা অর্থদণ্ডসহ অনাদায়ে আরও ৬ মাসের কারাদণ্ড প্রদান করা হয় তাকে।  মঙ্গলবার (৩০ এপ্রিল) নরসিংদীর অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক শামীমা পারভীন এ রায় দেন। মামলার বরাতে জানা যায়, নিহত খাদিজা বেগম মাধবদীর একটি কারখানায় শ্রমিক হিসেবে কর্মরত ছিলেন। স্বামী সন্তান না থাকায় খাদিজা বেগম মাধবদী এলাকায় ভাড়া বাসায় একাই বসবাস করতেন। কাজের সুবাদে দীন ইসলাম নামে এক শ্রমিকের সঙ্গে তার পরিচয় হয়। এক সময় তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। পরে খাদিজার বাসায় যাতায়াত শুরু করেন দ্বীন ইসলাম। এরইমধ্যে খাদিজা বিয়ের জন্য দ্বীন ইসলামকে চাপ দিলে তিনি বিয়ে করতে অস্বীকৃতি জানান। এ নিয়ে উভয়ের মধ্যে মতবিভেদ দেখা দিলে ২০১৮ সালের ১৩ মে খাদিজার বাসায় তাকে হত্যা করেন প্রেমিক দ্বীন ইসলাম।  বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন আদালতের সহকারী পাবলিক প্রসিকিউটর (এপিপি) অ্যাডভোকেট অলিউল্লাহ। তিনি জানান, নিহত খাদিজার বিয়ের কিছুদিন পরই তার বিচ্ছেদ হয়ে যায়। কাজের সুবাদে মাধবদী থাকতেন তিনি। পরে দীন ইসলামের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েন। তারা একসঙ্গে থাকা শুরু করেন। বিয়ের জন্য চাপ দিলেই বিপত্তি দেখা দেয়।  তিনি আরও জানান, ২০১৮ সালের ১৩ মে বাসায় এসে খাদিজাকে শ্বাসরোধ করে হত্যার পর মরদেহ ফেলে পালিয়ে যান দীন। ১২ জন সাক্ষীর সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে সন্দেহাতীতভাবে প্রমাণিত হওয়ায় অভিযুক্ত দ্বীন ইসলামকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত।
ধান কাটতে গিয়ে হিটস্ট্রোকে শ্রমিকের মৃত্যু
নরসিংদীতে প্রচণ্ড তাপদাহে হিটস্ট্রোকে মানিক মিয়া (৫০) নামে এক শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে।  সোমবার (২৯ এপ্রিল) দুপুরে জেলার পলাশ উপজেলার ঘোড়াশালে একটি ধানের জমিতে কাজ করতে গিয়ে হিটস্ট্রোকে তার মৃত্যু হয়।  নিহত মানিক মিয়া রংপুরের হাতিবান্দা থানার বাসিন্দা।  বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন পলাশ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিকেল অফিসার ডা. পলাশ দাস।  তিনি জানান, দুপুরে ১০ জন শ্রমিক মিলে ঘোড়াশালে একটি ধানের জমিতে কাজ করছিলেন। এ সময় প্রচণ্ড তাপদাহে মানিক মিয়া মাটিতে লুটিয়ে পড়েন। পরে সহকর্মীরা উদ্ধার করে পলাশ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষণা করেন। এ নিয়ে নরসিংদীতে হিটস্ট্রোকে তিনজনের মৃত্যু হলো।
নরসিংদীতে ইসতিসকার নামাজ আদায়
নরসিংদীতে বৃষ্টি কামনায় ইসতিসকার নামাজ আদায় করা হয়েছে। শুক্রবার (২৬ এপ্রিল) জুমার পর শহরের নবাব বাড়ি ঈদগাহ মাঠে এ নামাজ আদায় করা হয়। নামাজে অংশগ্রহণকারীরা জানান, কয়েক দিন যাবৎ নরসিংদীসহ সারাদেশে তীব্র দাবদাহে জনজীবন বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে। বৃষ্টি না হওয়ায় তীব্র গরমে কষ্ট ভোগ করছেন সকল শ্রেণি-পেশার মানুষ। তীব্র গরম থেকে মুক্তি পেতে আল্লাহর সাহায্য চেয়ে এই নামাজ আদায় করেন স্থানীয় মুসল্লিরা। নামাজে ইমামতি করেন নরসিংদী বড় বাজার মসজিদের পেশ ইমাম মুফতি রবিউল আলম। নামাজ শেষে খুতবা প্রদানের পর দুই হাত তুলে আল্লাহর কাছে দোয়া করা হয়।  এ সময় দোয়াতে মুসল্লিরা নিজেদের পাপের জন্য ক্ষমা চেয়ে রহমতের বৃষ্টি কামনা করেন।
প্রেমিকাকে ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগে প্রেমিক গ্রেপ্তার
নরসিংদীর পলাশে ৭ম শ্রেণিতে পড়ুয়া মাদরাসার এক ছাত্রীকে (১৪) ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে মো. সাকিব মিয়া (২০) নামে এক যুবককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।  রোববার (২১ এপ্রিল) রাতে উপজেলার ঘোড়াশাল পৌর এলাকার কুমারটেক গ্রাম থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।  গ্রেপ্তারকৃত সাকিব মিয়া কুমারটেক গ্রামের জাহাঙ্গীর হোসেনের ছেলে।  তথ্যটি নিশ্চিত করেছেন পলাশ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইকতিয়ার উদ্দিন। তিনি জানান, গ্রেপ্তারকৃত সাকিব মিয়া মাদরাসায় পড়ুয়া ওই কিশোরীকে বিভিন্ন সময় প্রেমের প্রস্তাব দেওয়াসহ উত্ত্যক্ত করতো। একপর্যায়ে তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। সেই সুযোগে সম্প্রতি কথা বলার জন্য ওই কিশোরীকে একই গ্রামের কারিমা (৩৫) নামের এক নারীর ফাঁকা বাসায় ডেকে নিয়ে ধর্ষণচেষ্টা করে সাকিব মিয়া। পরে সেখান থেকে ওই কিশোরী দৌড়ে পালিয়ে যায়।  তিনি আরও জানান, লোকলজ্জার ভয়ে বিষয়টি কাউকে জানায়নি মেয়েটির পরিবার। তবে গত ১৬ এপ্রিল ফের ওই কিশোরীকে কুপ্রস্তাব দিলে বিষয়টি সামাজিকভাবে জানাজানি হয়। এ ঘটনায় ভুক্তভোগী ওই কিশোরীর বাবা বাদী হয়ে থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দিলে ওই যুবককে গ্রেপ্তার করা হয়।  গ্রেপ্তারকৃত সাকিব মিয়ার বিরুদ্ধে থানায় ধর্ষণ চেষ্টা মামলা হয়েছে বলেও জানান ওসি।
নরসিংদীতে ট্রেনে কাটা পড়ে বৃদ্ধার মৃত্যু
নরসিংদীতে ট্রেনে কাটা পড়ে এক বৃদ্ধার মৃত্যু হয়েছে।  রোববার (২১ এপ্রিল) দুপুরে নরসিংদীর আরশীনগর রেল ক্রসিংয়ে এ দুর্ঘটনা ঘটে।  নিহতের নাম ফাইজুন্নেসা বেগম (৭০)। তিনি রায়পুরা উপজেলার আদিয়াবাদ মধ্যপাড়া এলাকার মৃত বশির ডাক্তারের স্ত্রী। নিহতের স্বজনরা জানান, স্বামীর বাড়ি রায়পুরার আদিয়াবাদ থেকে নরসিংদী শহরের পশ্চিম ঘোড়াদিয়াস্থ তার মেয়ের বাড়িতে অবস্থান করে চিকিৎসা নিতে আসেন তিনি। রোববার দুপুরে মেয়ের বাড়ি থেকে বের হয়ে আরশীনগর রেল ক্রসিংয়ে আসলে ঢাকাগামী মালবাহী (পাথর বহনকারী) ট্রেনে কাটা পড়েন তিনি।  নরসিংদী রেলওয়ে ফাঁড়ির ইনচার্জ মো. শহিদুল্লাহ হিরো জানান, দুপুর পৌনে ২টার দিকে সিলেট থেকে ঢাকাগামী পাথরবহনকারী ট্রেনটি আরশীনগর রেলক্রসিং এলাকায় পৌঁছালে রেলসড়ক পারাপারের সময় এক বৃদ্ধার মৃত্যু হয়। আমরা মরদেহ উদ্ধারের পাশাপাশি পরবর্তী আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করছি।