logo
  • ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২৩ জানুয়ারি ২০২০, ১০ মাঘ ১৪২৭

রাস্তা বন্ধ করে দিলেন ইউপি সদস্য, দুর্ভোগ চরমে

টেকনাফ প্রতিনিধি, আরটিভি অনলাইন
|  ০৮ জানুয়ারি ২০২০, ১২:০২
টেকনাফ ইউপি রাস্তা
টেকনাফে ইউপি সদস্য কর্তৃক বন্ধ করে দেয়া রাস্তা
কক্সবাজারের টেকনাফের উনছিপ্রাংয়ে দীর্ঘ দিনের জন চলাচলের রাস্তা বন্ধ করে দিয়েছেন হোয়াইক্যং ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য। ফলে গ্রামবাসী চরম দুর্ভোগ পোহাচ্ছে। এ বিষয়ে সমাধান পেতে টেকনাফ উপজেলা প্রশাসন বরাবর অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

জানা গেছে, হোয়াইক্যং ইউনিয়নের উনচিপ্রাং গ্রামের বহু বছর আগের পুরাতন চলাচলের রাস্তা স্থানীয় ইউপি সদস্য আব্দুল বাসেত ও তার সহযোগীরা  বেড়া দিয়ে জোরপূর্বক বন্ধ করে দিয়েছে।

উপজেলা প্রশাসন বরাবর ৮০ জন ব্যক্তির স্বাক্ষরিত অভিযোগে জানা যায়, উনচিপ্রাং মদিনাতুল উলুম এবতেদায়ী মাদরাসাসংলগ্ন উত্তর পাশের প্রধান সড়ক হয়ে পূর্ব দিকে বেড়িবাঁধ পর্যন্ত জন চলাচলের রাস্তাটি স্বাধীনতার আগ থেকে ব্যবহার করে আসছে এলাকাবাসী।  পেশিশক্তির দাপট দেখিয়ে হঠাৎ করে গেল নভেম্বর মাসে এলাকাবাসী রাস্তাটি বাঁশের ঘের দিয়ে বন্ধ করে দেয় আব্দুল বাসেত ও তার সহযোগী মোস্তাক আহমেদ, মৌলভী ফরিদসহ সাঙ্গপাঙ্গরা।

এতে করে ৩০ পরিবারের মধ্যে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। যেকোনো সময় রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। এ রাস্তা দিয়ে স্কুল মাদরাসা পড়ুয়া শিক্ষার্থী, শত শত মৎস্য চাষি ও গ্রামবাসী যাতায়াত করতো। কিন্তু রাস্তাটি বন্ধ করে দেওয়ায় পাহাড় নদী পেরিয়ে নিত্যদিনের কাজ করতে হচ্ছে।

স্থানীয় বাসিন্দা অ্যাডভোকেট আব্দুল মালেক আরটিভি অনলাইনকে বলেন, শত বছরের পুরাতন রাস্তাটি পেশিশক্তি ও অবৈধ টাকার জোরে গাছ ও বাঁশের বেড়া দিয়ে আটকে দেয়া হয়। এতে চরম দুর্ভোগে পরতে হয়েছে  গ্রামবাসীকে।

এলাকাবাসী জানান, এই মেম্বার শুধু দখলকারীই নয় তালিকাভুক্ত মাদক ব্যবসায়ীও। তার বিরুদ্ধে এলাকাবাসী যেকোনো সময় ফুঁসে উঠবে।

এ ব্যাপারে অ্যাডভোকেট আব্দুল মালেকসহ এলাকাবাসী জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার, উপজোলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও টেকনাফ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার সুদৃষ্টি কামনা করেছেন।

তবে আব্দুল বাসেত মেম্বারের মুঠোফোনে একাধিকবার যোগাযোগ করেও তার বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।

এ ব্যাপারে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মোহাম্মদ আবুল মনসুর রাস্তা ও মাদরাসার জায়গা দখল করার একটি অভিযোগ পাওয়ার বিষয় নিশ্চিত করে আরটিভি অনলাইনকে বলেন, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে দান করা জমি কারও দখলে থাকতে পারে না। এটা শিক্ষা অফিসের তত্ত্বাবধানে। আইনানুগভাবে যা যা করা দরকার উপজেলা প্রশাসন তাই করবে।

জেবি

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
  • দেশজুড়ে এর সর্বশেষ
  • দেশজুড়ে এর পাঠক প্রিয়