Mir cement
logo
  • ঢাকা সোমবার, ২৩ মে ২০২২, ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯

অভিনেত্রী শিমুর স্বামীর করা সেই জিডিতে যা আছে

What is in the GD made by the husband of the heroine Shimur
স্বামী নোবেলের সঙ্গে অভিনেত্রী শিমু।। ফাইল ছবি

অভিনেত্রী রাইমা ইসলাম শিমুর বস্তাবন্দি মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। এ ঘটনায় সন্দেহের তীর তার স্বামী সাখাওয়াৎ হোসেন নোবেলের দিকে। পাশাপাশি চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির সাধারণ সম্পাদক অভিনেতা জায়েদ খানকেও সন্দেহের চোখে দেখছেন শিমুর সহকর্মীর; যা বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশ হয়েছে। এদিকে শিমুর স্বামী নোবেলকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করেছে পুলিশ।

এই আটকের আগে গত রোববার (১৬ জানুয়ারি) দিনগত রাতে স্বামী নোবেল রাজধানীর কলাবাগান থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন। যেখানে শিমু ‘নিখোঁজ’ রয়েছেন বলে উল্লেখ করেন তিনি।

নোবেল জিডিতে উল্লেখ করেন, রোববার সকালে কাউকে কিছু না জানিয়ে বাসা থেকে বের হয়ে যান তার স্ত্রী শিমু। এরপর আর বাসায় ফেরেননি। সম্ভাব্য সব জায়গায় খোঁজাখুঁজি করেও তার কোনো সন্ধান পাওয়া যায়নি।

এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন কলাবাগান থানার ওসি পরিতোষ চন্দ্র। তিনি মঙ্গলবার সকালে মোবাইল ফোনে গণমাধ্যমকে বলেন, অভিনেত্রী শিমু নিখোঁজ রয়েছেন, এ মর্মে থানায় জিডি করেছেন তার স্বামী। পরে শিমুর লাশ উদ্ধার করা হয়।

এ ঘটনায় কেরানীগঞ্জ মডেল থানায় মামলা দায়েরের প্রক্রিয়া চলছে। থানায় শিমুর পরিবারের সদস্যরা উপস্থিত হয়ে পুলিশ কর্মকর্তাদের সঙ্গে এ বিষয়ে আলাপ আলোচনা করছেন।

আটক হওয়া নোবেল ও গাড়িচালক ফরহাদকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ করেছে পুলিশ। এরপরই বলা হচ্ছে- শিমুকে হত্যার দায় স্বীকার করেছেন তার স্বামী নোবেল।

কেরানীগঞ্জ মডেল থানার ওসি মো. আবু সালাম মিয়া বলেন, শিমুর বস্তাবন্দি লাশ উদ্ধারের ঘটনায় তার স্বামী ও গাড়িচালককে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়েছে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে- এটি একটি হত্যাকাণ্ড। এ হত্যাকাণ্ডে সংশ্লিষ্টতা পাওয়া গেলে তাদের গ্রেপ্তার দেখানো হবে।

উল্লেখ্য, এর আগে গতকাল সোমবার (১৭ জানুয়ারি) দুপুরে কেরানীগঞ্জের হজরতপুর ব্রিজের কাছে আলিয়াপুর এলাকায় রাস্তার পাশে পড়ে থাকা বস্তা দেখে স্থানীয়রা পুলিশে খবর দেন। পরে পুলিশ গিয়ে নারীর মরদেহ উদ্ধার করে। পরে সেটি অভিনেত্রী শিমুর মরদেহ বলে শনাক্ত হয়। বর্তমানে তার মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য রাজধানীর স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে (মিটফোর্ড) রাখা হয়েছে। সেখানেই শিমুর স্বামী ও গাড়িচালক ফরহাদ গেলে তাদের আটক করে পুলিশের কাছে হস্তান্তর করে দেয় র‌্যাব।

নিহত শিমুর ভাই শহিদুল ইসলাম খোকন গত রাতে জানিয়েছেন, তার ভগ্নিপতি নোবেল প্রায়ই শিমুকে মারধর করতেন। সে মাদকাসক্ত।

কেরানীগঞ্জের ওসি মো. আবু সালাম মিয়া আরও জানান, লাশ ওই বস্তায় ভরে রাস্তার পাশে ফেলে রাখা হয়েছিল। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে শ্বাসরোধে তাকে হত্যা করা হয়েছে। স্থানীয়দের মাধ্যমে খবর পেয়ে বস্তার ভেতর থেকে লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠানো হয়।

প্রসঙ্গত, কাজী হায়াৎ পরিচালিত ‘বর্তমান’ সিনেমা দিয়ে ১৯৯৮ সালে চলচ্চিত্রে অভিষেক ঘটে শিমুর। পরের বছর দেলোয়ার জাহান ঝন্টু, চাষি নজরুল ইসলাম, শরিফ উদ্দিন খান দিপুসহ আরও বেশ কিছু পরিচালকের প্রায় ২৫টি সিনেমায় পার্শ্বচরিত্রে দেখা যায় তাকে। শাকিব খান, অমিত হাসানসহ কয়েকজন তারকার সঙ্গেও কাজ করেছেন শিমু।

কেএফ/টিআই

মন্তব্য করুন

RTV Drama
RTVPLUS