• ঢাকা শুক্রবার, ২৪ মে ২০১৯, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬

বাংলাদেশ দল নিরাপদ জেনে বিরাট, শোয়েব, আফ্রিদিদের স্বস্তি

স্পোর্টস ডেস্ক
|  ১৫ মার্চ ২০১৯, ১৮:১৫ | আপডেট : ১৫ মার্চ ২০১৯, ১৮:২৬
আর একটু হলে ক্রিকেট অধ্যায়ের সবচেয়ে কালো দিন ঘটে যেত আজ শুক্রবার। নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে একটি মসজিদে সন্ত্রাসী হামলায় নিহত হয়েছে ৩ বাংলাদেশিসহ ৪৯ জন। এই তালিকায় যোগ হতে পারতো বাংলাদেশ জাতীয় দলের ক্রিকেটাররাও।

whirpool
স্থানীয় সময় অনুযায়ী শুক্রবার দুপুর দেড়টার দিকে জুমার নামাজের সময় ক্রাইস্টচার্চের আল নূর মসজিদে হামলা চালায় ২৮ বছর বয়সী এক এক অস্ট্রেলীয় নাগরিক ব্রেনটন ট্যারেন্ট। মসজিদে ঢুকে এলোপাথাড়ি গুলি চালিয়ে হত্যা করেন সাধারণ মানুষদের।

ওই মসজিদে জুমার নামাজ আদায় করার কথা ছিল বাংলাদেশ দলের খেলোয়াড়দেরও। কিন্তু সংবাদ সম্মেলন থাকায় কিছুক্ষণ দেরি করে বের হওয়ায় বেঁচে গেছেন ক্রিকেটাররা

এরপর হ্যাগলি ওভালের ড্রেসিং রুমে আশ্রয় নেন খেলোয়াড়রা। সেখানে অবরুদ্ধ থাকতে হয় প্রায় দুই ঘণ্টা।

-------------------------------------------------------
আরও পড়ুন : শনিবার দেশে ফিরছেন টাইগাররা
-------------------------------------------------------

হ্যাগলি ওভালের ড্রেসিং রুমে বাংলাদেশ দলই শুধু অবরুদ্ধ ছিল না, সেখানে চোখ ছিল সবার। দেশ-জাতি ভুলে সবাই প্রার্থনা করেছে সেখানকার মানুষ আর বাংলাদেশ দলের খেলোয়াড়দের জন্য।

সাবেক বর্তমান ক্রিকেটাররাও বাদ যাননি এই তালিকা থেকে। স্বস্তি প্রকাশ করেছেন বাংলাদেশ দলের নিরাপদে হোটেলে পৌঁছানোয়। এ নিয়ে টুইট করে নিজেদের স্বস্তির কথা জানান ভারতীয় দলের অধিনায়ক বিরাট কোহলি, পাকিস্তানের সাবেক অলরাউন্ডার শহীদ আফ্রিদি, শোয়েব আখতারসহ অনেক ক্রিকেটার।

বিরাট তার টুইটে লেখেন, হতবাক করে দেওয়ার মতো ঘটনা। ক্রাইস্টচার্চে এমন কাপুরুষোচিত হামলায় হতাহত লোকজনের জন্য আমার অনেক ভালোবাসা। নিরাপদে থাকুক বাংলাদেশ দল, আমার শুভকামনা তাদের জন্য।’

হামলা পরবর্তী শহীদ আফ্রিদি কথা বলেছেন তামিম ইকবালের সঙ্গে। আফ্রিদি ঘৃণা জানানোর সঙ্গে সমবেদনাও জানান নিহতদের জন্য। 

আফ্রিদি তার টুইট বার্তায় লেখেন, নিউজিল্যান্ডকে নিরাপদ ও শান্তিপূর্ণ দেশ হিসেবে মনে করি আমি সব সময়। ওখানকার মানুষ খুবই বন্ধুসুলভ। তামিমের সঙ্গে আমার কথা হয়েছে। বাংলাদেশ দল ও কোচিং স্টাফরা সবাই নিরাপদে আছে জেনে স্বস্তি পাচ্ছি। এসব থামাতে গোটা বিশ্বকে এক হতে হবে। এভাবে ঘৃণা করা থামান। সন্ত্রাসবাদের কোনও ধর্ম নেই। শোকসন্তপ্ত পরিবারের জন্য প্রার্থনা। আল্লাহ নিহতদের শান্তি দান করুন।

এছাড়া পাকিস্তানের সাবেক বোলার শোয়েব আখতার তার টুইট বার্তায় লেখেন, ক্রাইস্টচার্চে মসজিদের মধ্যে সন্ত্রাসী হামলার ছবি দেখে আমি স্তম্ভিত। আমরা কি এখন আমাদের প্রার্থনার জায়গার ভেতরেও নিরাপদ নই? এ ধরনের সন্ত্রাসী হামলার তীব্র প্রতিবাদ জানাই। আমি আনন্দিত, যে বাংলাদেশের খেলোয়াড়রা নিরাপদ আছে।

আরও পড়ুন : 

এমআর/পি

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়

আজকের প্রশ্ন :

  • হ্যাঁ
    ক্লিক করুন
  • না
    ক্লিক করুন
  • মন্তব্য নেই
    ক্লিক করুন
মোট ভোট সংখ্যা : ৪২