Mir cement
logo
  • ঢাকা রোববার, ০৯ মে ২০২১, ২৬ বৈশাখ ১৪২৮

স্পোর্টস ডেস্ক, আরটিভি নিউজ

  ০৫ মে ২০২১, ০৯:৩৩
আপডেট : ০৫ মে ২০২১, ০৯:৪৩

আইপিএল স্থগিতে আর্থিক যত ক্ষতি বিসিসিআই-এর

ছবি- আইপিএল

করোনা মহামারিকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের (আইপিএল) ১৪তম আসর শুরু করেছিল ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড (বিসিসিআই)। করোনা ভয়ে গত আসর সংযুক্ত আরব আমিরাতের মাটিতে অনুষ্ঠিত হলেও এবার সেটি হয়েছে ভারতে।

তবে ভারতের বর্তমান করোনা পরিস্থিতির এতটা অবনতি হয়েছে যে, শেষ পর্যন্ত আইপিএল স্থগিত করতে বাধ্য হয়েছে দেশটির ক্রিকেট বোর্ড।

গত ৯ মার্চ কঠোর জৈব সুরক্ষা বলয় গঠন করে আইপিএল শুরু করলেও ২ মে কলকাতা নাইট রাইডার্সের দুই ক্রিকেটারের করোনা আক্রান্তের খবরে ম্যাচ কলকাতা-ব্যাঙ্গালুরুর ম্যাচ স্থগিত করতে বাধ্য হয় আইপিএল গভর্নিং কাউন্সিল। এরপর একে একে বেশ কয়েকজন আক্রান্ত হন কয়েকটি দলের। তাতেই ৪ মে ঘোষণা আসে টুর্নামেন্ট স্থগিতের।

আইপিএল স্থগিত নিয়ে বিসিসিআই ভাইস-প্রেসিডেন্ট শুক্লা জানান, ‘বোর্ড, সদস্য, ফ্র্যাঞ্জাইজি এবং ব্রডকাস্টারের সঙ্গে আলোচনার পর টুর্নামেন্ট আপাতত স্থগিত রাখার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। তবে পরিস্থিতির উন্নতি হলে বাকি ম্যাচগুলো নিয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।’

তবে পরিস্থিতি যেদিকে যাচ্ছে তাতে মনে হয় না খুব সহসা পুনরায় আইপিএল মাঠে গড়াবে। এতে বিসিসিআই এর ক্ষতির পরিমাণ ভ্রু কুঁচকে দেয়ার মতো।

বিসিসিআই-এর এক সিনিয়র কর্মকর্তা ভারতীয় সংবাদ সংস্থা পিটিআই-কে জানিয়েছেন, ‘মাঝপথে আইপিএল স্থগিত হওয়ায় বোর্ডের ক্ষতি হয়েছে ২ হাজার থেকে ২ হাজার ৫০০ কোটি টাকার (ভারতীয়) মতো। বলা যায় ২ হাজার ২০০ কোটি টাকার ক্ষতি।’

ম্যাচ পিছু ৫৪.৫ কোটি টাকা করে মোট ৬০টি ম্যাচের এই টুর্নামেন্টে ব্রডকাস্টার স্টার স্পোর্টস থেকে প্রতি বছর ৩ হাজার ২৬৯ কোটি টাকা পায়৷ অর্থাৎ বিসিসিআই।

২৯ ম্যাচ মাঠে গড়ানোয় বিসিসিআই স্টার স্পোর্টস থেকে পাবে ১ হাজার ৫৮০ কোটি টাকা। বাকি ৩১ ম্যাচ স্থগিত হওয়ায় পাচ্ছে না ১ হাজার ৬৯০ কোটি টাকা।

শুধু ব্রডকাস্ট নয়, টাইটেল স্পন্সর ভিভোর কাছ থেকেও প্রতি আসরে পায় ৪৪০ কোটি টাকা। তাই স্বাভাবিকভাবেই অর্ধেক টাকা পাবে বোর্ড।

এছাড়াও অন্যান্য স্পন্সরের থেকে প্রতি আসরে ১২০ কোটি টাকা পেয়ে থাকে বোর্ড। এখানেও অর্ধেক টাকা পাবে না বোর্ড।

এমআর/

RTV Drama
RTVPLUS