• ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২৩ মে ২০১৯, ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬

ডাকসুতে কর্মচারী নিয়োগ করতে চিঠি, জানেন না ভিপি

আরটিভি অনলাইন রিপোর্ট
|  ০৬ এপ্রিল ২০১৯, ১৭:৩৬ | আপডেট : ০৬ এপ্রিল ২০১৯, ১৮:৪৯
ডাকসু ভিপি নুরুল হক নুর (ফাইল ছবি)
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) কর্মচারী নিয়োগের জন্য আবেদন করেছেন ডাকসুর সাধারণ সম্পাদক (জিএস) গোলাম রাব্বানী ও সহকারী সাধারণ সম্পাদক (এজিএস) সাদ্দাম হোসেন। তবে, এ নিয়ে কিছুই জানেন না বলে জানিয়েছেন ভিপি নুরুল হক নুর।

whirpool
নুর সংবাদমাধ্যমকে জানান, এই চিঠির যৌক্তিকতা নেই। এটি অবৈধ। তবে ডাকসুর জিএস গোলাম রাব্বানীর দাবি, নুর বিষয়টি জানে। তিনি কেন এমন বলেছেন, তা তার কাছে জানতে চাইব।

জানা যায়, ডাকসুতে বর্তমানে চারজন কর্মরত আছেন। এ ছাড়া একজন অফিস সহকারী কাম মুদ্রাক্ষরিক, কমনরুম বেয়ারার দুজন, অফিস সহায়ক দু'জন, অ্যাথলেটিক্স বেয়ারার একজন, গার্ড দুজন এবং পরিচ্ছন্নকর্মী একজন নিয়োগের আবেদন জানানো হয়। ওই আবেদনপত্রে ডাকসুর জিএস গোলাম রাব্বানী ও এজিএস সাদ্দাম হোসেনের স্বাক্ষর রয়েছে।

এ বিষয়ে নুরুল হক নুর শনিবার (৫ এপ্রিল) সকালে গণমাধ্যমকে জানান, এর আগে আইএমএলে চিঠি, ইন্টারনেটসহ বিভিন্ন বিষয়ে প্রশাসন বরাবর একাধিক চিঠি তারা দিয়েছেন। কিন্তু আমি নির্বাচিত ভিপি হলেও এ বিষয়ে তারা আমাকে কিছুই জানায়নি। ডাকসুর স্টাফ নিয়োগে আমাকে না জানিয়ে চিঠি দেওয়া কতটুকু যুক্তিযুক্ত? এর বৈধতাই বা কী?

এর আগে গতকাল শুক্রবার রাত ১১টা ১৬ মিনিটে নুর এ বিষয়ে সামজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে একটি পোস্ট করেন। সেখানে তিনি লিখেন, ‘ডাকসুতে বিভিন্ন পদে চারজন লোক কর্মরত রয়েছে। আমার জিএস, এজিএস সাহেব আরো নয়জনের চাহিদাপত্র দিয়েছেন। অথচ জানলাম না আমি! অবশ্য এসব বিষয়ে বাম হাত/ডানহাত থাকে তো, চুপেচাপে করাই ভালো! কারণ অনিয়ম হলে বাধাটা এই ভিপিই দিবে। সুতরাং হামলা-টামলা, নাটক-ফাটক, ফন্দি-ফিকির করে ভিপিকে সরানো জরুরি হয়ে পড়বে!

এ বিষয়ে ডাকসুর জিএস গোলাম রাব্বানী জানান, নূর বিষয়টি জানেন। কেননা আরেকটি পৃষ্ঠায় তার স্বাক্ষর রয়েছে। তিনি পুরো বিষয়টি না দিয়ে শুধু একটি অংশ সংযোজন করেছেন। আমি বিষয়টি নিয়ে তাকে ধরব, কেন তিনি এ রকম করেছেন।

এর আগে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের জন্য আধুনিক ভাষা ইনস্টিটিউটের জুনিয়র সব কোর্সের আবেদন ফি কমানোর দাবিতে করা আবেদনেও নুরকে জানানো হয়নি।

এসজে/পি

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়