• ঢাকা বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
logo

লিফট কিনতে ফিনল্যান্ডের পথে ঢাবির প্রো-ভিসিসহ ৪ জন

আরটিভি নিউজ

  ০৪ মে ২০২৪, ১৬:৫৮
ফাইল ছবি

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে (ঢাবি) বিভিন্ন ভবনের জন্য লিফট কিনতে ফিনল্যান্ডে পথে উড়াল দিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য (শিক্ষা) অধ্যাপক ড. সীতেশ চন্দ্র বাছারসহ ৪ সদস্যের একটি প্রতিনিধি দল।

শনিবার (৪ মে) ভোরে ফিনল্যান্ডের উদ্দেশে তারা রওনা দেন।

প্রতিনিধি দলের বাকি সদস্যরা হলেন- বিশ্ববিদ্যালয়ের ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড টেকনোলজি অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. হাফিজ মুহম্মদ হাসান বাবু, বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের অধ্যাপক ড. এ বি এম তৌফিক হাসান এবং পরিকল্পনা ও উন্নয়ন অফিসের পরিচালক জাবেদ আলম মৃধা।

জানা গেছে, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে (ঢাবি) নির্মাণাধীন জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হল, বিভিন্ন একাডেমিক ভবনের জন্য মোট ১৭টি লিফট কেনার জন্য ফিনল্যান্ড যাচ্ছেন দলটি। তবে তাদের ফিনল্যান্ড যাওয়া আসার খরচ বিশ্ববিদ্যালয় বহন করবে না ঢাবি। প্রি–শিপমেন্ট ইন্সপেকশনের (পিএসআই) অংশ হিসেবে এ প্রতিনিধি দল ফিনল্যান্ড যাচ্ছেন। ঠিকাদারের সঙ্গে চুক্তিতে ব্যয়ের বিষয়টি উল্লেখ থাকায় ফিনল্যান্ড যাওয়ার জন্য বিশ্ববিদ্যালয় কোনও ব্যয় বহন করবে না। লিফট কেনার প্রকল্প পেয়েছেন রংপুর মেটাল ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড (আরএমআইএল)। প্রতিষ্ঠানটি প্রতিনিধিদের ফিনল্যান্ড নিয়ে যাবেন, লিফট দেখবেন এবং লিফট কেনার বিষয়ে স্বাক্ষর করবেন। তাছাড়া যেই লিফট পছন্দ করে কেনা হয়েছে সেটাই শিপমেন্ট করা হচ্ছে কি না সেটাও পরীক্ষা করবেন এই প্রতিনিধি দলের সদস্যরা।

ঢাবির রেজিস্ট্রার প্রবীর কুমার স্বাক্ষরিত এক চিঠি থেকে জানা যায়, চলতি মাসের ২-৯ তারিখ পর্যন্ত তাদের ৮ দিনের ছুটি মঞ্জুর করা হয়েছে। তাদের সফরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কিংবা বাংলাদেশ সরকার কোনও আর্থিক খরচ বহন করবে না। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে ২০১১ সালে জারিকৃত এক স্মারকের ক্ষমতাবলে এবং শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের ২০২২ সালের ২৪ নভেম্বর এক পত্রের পরিপ্রেক্ষিতে উপাচার্য আপনাকে (উপ–উপাচার্য) বিদেশ গমনের অনুমতি দিয়েছেন।

এ বিষয়ে ঢাবির রেজিস্ট্রার প্রবীর কুমার সরকার বলেন, প্রতিনিধি দল আজকে সকালেই ফিনল্যান্ডের উদ্দেশ্যে বের হয়েছেন। এ বিষয়ে আমার বলার কিছু নেই। আমার কাজ ছুটি দেওয়া, আমি ছুটি দিয়েছি। বাকি সব কাজ ইঞ্জিনিয়ারিং দপ্তরের।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান প্রকৌশলী (ভারপ্রাপ্ত) কাজী মো. আকরাম হোসেন বলেন, এটা নিয়ে এত আলোচনার কিছু দেখি না। বাংলাদেশের যে কোনও টেন্ডার নিলে সেখানে প্রি-শিপমেন্টের বিষয়টি সামনে আসে। লিফট কেনার ট্রেন্ডারেও তাই উল্লেখ করা আছে। এই বিষয়টি অধিক স্বচ্ছ করতে দুটি টিমও গঠন করা হয়েছিল। সেখান থেকেই দুজন প্রশাসনিক ও দুজন টেকনিক্যাল স্পেশালিষ্ট ফিনল্যান্ড যাচ্ছেন। এর আগে রোকেয়া হলের লিফটের ট্রেন্ডার স্বচ্ছতার সঙ্গে করা হয়নি, কারণ সেখানে প্রশাসনের যোগসূত্র ছিল না। তাই এবার প্রতিনিধি দলকে ফিনল্যান্ড পাঠানো হয়েছে।

তিনি বলেন, লিফট কেনার আগে দরপত্রেই দাম উল্লেখ করা থাকে। এর বাইরে আলাদা কোনও খরচ বিশ্ববিদ্যালয় বহন করবে না। তবে প্রতিনিধি দলের যাবতীয় খরচ লিফটের দামের সঙ্গে যুক্ত কি না তা আমি বলতে পারবো না।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে উপ-উপাচার্য (শিক্ষা) অধ্যাপক ড. সীতেশ চন্দ্র বাছার ফিনল্যান্ডের পথে থাকায় তার মোবাইল নম্বর বন্ধ পাওয়া যায়। পরে হোয়াটসঅ্যাপে কল করা হলেও তাকে পাওয়া যায়নি।

মন্তব্য করুন

daraz
  • অন্যান্য এর পাঠক প্রিয়
আরও পড়ুন
ঢাবি শিক্ষার্থীকে মাদক দিয়ে ফাঁসানোর অভিযোগ দুই পুলিশ সদস্যের বিরুদ্ধে
চাকরিতে কোটা পুনর্বহালের প্রতিবাদে ঢাবিতে বিক্ষোভ
কলকাতা থেকে দেশে ফিরছে ডিবির প্রতিনিধি দল
বাংলাদেশের ব্যবসায়ী প্রতিনিধি দলের স্পেন সফর