logo
  • ঢাকা শুক্রবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২০, ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৭

সবাইকে কথা বলার অধিকার দিতে হবে: ডা. জাফরুল্লাহ

bnp, Zafrullah Chowdhury. democracy
ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী
গণস্বাস্থ্যের প্রতিষ্ঠাতা ও ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেছেন, দেশে ভিন্ন আঙ্গিকে বাকশাল কায়েম করতে যাচ্ছে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ।দেশে আজ গণতন্ত্র নেই। জনগণের কাছে আওয়ামী লীগের গ্রহণযোগ্যতা তলানিতে পৌঁছেছে। মানুষ স্বাধীনভাবে কথা বলতে পারছে না। সবাইকে কথা বলার অধিকার দিতে হবে।

শুক্রবার (২৩ অক্টোবর) জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে ‘রাজনৈতিক দলের নিবন্ধন দাবি বাতিল পরিষদ’ এর উদ্যোগে এক মানববন্ধনে এসব কথা বলেন ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী।  

তিনি বলেন, দেশে গণতন্ত্র না থাকায় প্রধানমন্ত্রী যেসব কাজ করেছেন তা ভুল প্রমাণিত হচ্ছে। সম্প্রতি নারী নির্যাতন ও ধর্ষণের বিরুদ্ধে আন্দোলনের পরিপ্রেক্ষিতে আইনের সংশোধনী এনে তা ফাঁসি কার্যকর করা হয়েছে। ফাঁসি দিয়ে বিশ্বের কোথাও এ ধরনের অপরাধের পরিবর্তন আসেনি। এটা মধ্যযুগীয় শাস্তি।

ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, মানুষের গণতান্তিক অধিকার হরণ করে নিয়েছে সরকার। ভয়ে জনগণ স্বাধীনভাবে কথা বলতে পারছেন না, সংগঠন করতে পারছেন না। যা বাকশাল কায়েমের পূর্ব প্রস্তুতি। আজকের জনগণকে প্রকৃত মানবিক এবং সুষ্ঠু গণতন্ত্র দিতে হবে। সবাইকে কথা বলার অধিকার দিতে হবে। সুষ্ঠু ও মানবিক গণতন্ত্র ছাড়া আমাদের মুক্তির কোনো পথ নেই।

রাষ্ট্রদ্রোহ মামলায় আটক দৈনিক সংগ্রাম পত্রিকার সম্পাদক আবুল আসাদ ও সদ্য গ্রেপ্তার ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের একাংশের সভাপতি রুহুল আমিন গাজীর প্রসঙ্গ টেনে জাফরুল্লাহ বলেন, ‘শুধু কথা বলার কারণে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে। আবুল আসাদকে এক বছর যাবৎ আটকে তাকে জামিন দেওয়া হচ্ছে না। অথচ যারা লক্ষ-কোটি টাকা পাচার করেছে তাদের জামিন আগেই হয়ে যায়। এটা কি গণতন্ত্র হতে পারে?

মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন ভাসানী ফ্রন্টের চেয়ারম্যান মমতাজ চৌধুরী, বাংলাদেশ ন্যাপ মহাসচিব গোলাম মোস্তফা ভূঁইয়া, গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রেস উপদেষ্টা জাহাঙ্গীর আলম মিন্টু প্রমুখ।

এফএ/পি

 

RTVPLUS