Mir cement
logo
  • ঢাকা শুক্রবার, ১৮ জুন ২০২১, ৪ আষাঢ় ১৪২৮

চাঁদ দেখা কমিটি যেভাবে চূড়ান্ত করে ঈদের তারিখ

চাঁদ দেখা কমিটি যেভাবে চূড়ান্ত করে ঈদের তারিখ
চাঁদ দেখা কমিটি যেভাবে চূড়ান্ত করে ঈদের তারিখ

ঈদ-উল-ফিতর কিংবা ঈদ-উল-আযহা কবে পালিত হবে তা নির্ভর করে চাঁদ দেখার ওপর। বাংলাদেশে ঈদের দিন ইসলামিক ফাউন্ডেশনের চাঁদ দেখা কমিটির সিদ্ধান্ত অনুযায়ী নির্ধারণ করা হয়।

চলতি বছর ঈদ-উল-ফিতর কবে অনুষ্ঠিত হবে সেই দিনক্ষণ নির্ধারণের জন্য আগামীকাল বুধবার (১২ মে) জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটি বৈঠকে বসবে। এদিন সন্ধ্যা সোয়া সাতটায় ইসলামিক ফাউন্ডেশনের বায়তুল মোকাররম সভাকক্ষে বৈঠকে বসবে। দেশের কোথাও যদি এদিন চাঁদ দেখা যায় তাহলে পরদিন ঈদ-উল-ফিতর উদযাপনের ঘোষণা দেবে ইসলামিক ফাউন্ডেশন। যদি চাঁদ দেখা না যায় তাহলে ৩০ রোজা পূর্ণ করেই ঈদ হয়ে থাকে। তবে কখনো ৩১ রোজা পূর্ণ হওয়ার কোনো সুযোগ নেই।

চাঁদ দেখা কমিটি কিভাবে কাজ করে?

ইসলামিক ফাউন্ডেশনের সূত্রমতে, ঈদের দিনক্ষণ নির্ধারণ করার জন্য ধর্মমন্ত্রীর নেতৃত্বে চাঁদ দেখা কমিটির সদস্যরা বৈঠকে বসে থাকেন। বৈঠকে সদস্য সচিব হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মহাপরিচালক।

এছাড়াও দেশের প্রতিটি জেলায় একযোগে একটি করে কমিটি দায়িত্ব পালন করে। দেশের কোনো জেলায় যদি চাঁদ দেখা যায় তাহলে স্থানীয় প্রশাসন বা ইসলামিক ফাউন্ডেশন তা দ্রুত জেলা কমিটিকে অবহিত করে এবং জেলা কমিটি তা নিশ্চিত করে। পরে চাঁদ দেখার সত্যতা যাচাইয়ের পর জেলা কমিটির মাধ্যমে কেন্দ্রীয় চাঁদ দেখা কমিটি পর্যন্ত পৌঁছায়।

জেলা কমিটি বিভিন্নভাবে যাচাই করে চাঁদ দেখার বিষয়টি। স্থানীয়রা চাঁদ দেখেছে কিনা, নির্ভরযোগ্য এবং ভালো দৃষ্টিসম্পন্ন কেউ দেখেছে কিনা। স্থিরচিত্র বা ভিডিওচিত্র সংগ্রহ করেও নিশ্চিত হয়ে থাকে স্থানীয় প্রশাসন।

এছাড়াও সারাদেশে ৭৪টি আবহাওয়া অধিদপ্তরের স্টেশন রয়েছে। সেখান থেকেও চাঁদ দেখা কমিটি তথ্য সংগ্রহ করে। আবহাওয়া যদি অনুকূল না থাকে বা খালি চোখে যদি চাঁদ দেখার কোনো সুযোগ না থাকে তাহলে আবহাওয়া স্টেশনের তথ্যও চাঁদ উঠেছে কিনা তা নিশ্চিত করে বিশেষ ভূমিকা পালন করে। কেননা, খালি চোখে চাঁদ দেখা না গেলেও তা টেলিস্কোপে ঠিকই ধরা পড়বে। এমনটা হলে আবহাওয়া বিভাগ সংশ্লিষ্টদের অবহিত করে থাকেন।

এসআর/

RTV Drama
RTVPLUS