logo
  • ঢাকা শনিবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২০, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৭

‘তিনটি পদক্ষেপ করোনার টিকার বিকল্প হিসেবে কাজ করবে’

Three, works, serve, alternative, corona ticker
প্রধানমন্ত্রীর ব্যক্তিগত চিকিৎসক অধ্যাপক ডা. এবিএম আব্দুল্লাহ
শীতের মৌসুমে করোনাভাইরাস সংক্রমণ বাড়ার আশঙ্কা করে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) মেডিসিন বিভাগের সাবেক ডিন ও প্রধানমন্ত্রীর ব্যক্তিগত চিকিৎসক অধ্যাপক ডা. এবিএম আব্দুল্লাহ বলেছেন, বিশ্বজুড়ে করোনা মহামারী প্রকোপ কমছে না। ভাইরাস মোকাবিলায় হিমশিমে পড়েছে বিশ্বব্যাপী। শুধু মাস্ক পরলেই ৮০ শতাংশ করোনার সংক্রমণ ঠেকানো সম্ভব। এছাড়া শারীরিক দূরত্ব ও হাত ধোয়ার ব্যবস্থা রাখতে হবে। নিয়মিত এ তিনটি কাজ করতে পারলে করোনা সংক্রমণ রোধ করা সম্ভব। 

মঙ্গলবার (১৭ নভেম্বর) রাজধানীর তোপখানা রোডের বিএমএ ভবন মিলনায়তনে কোভিড-১৯ মোকাবিলা এবং রোগ নির্ণয় মেডিকেল টেকনোলজিস্টদের গুরুত্ব ও প্রয়োজনীয়তা শীর্ষক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন।

করোণা সংক্রমণ রোধে দেশের জনগণকে সচেতন হওয়ার আহ্বান জানিয়ে অধ্যাপক ডা. এবিএম আব্দুল্লাহ বলেন, সরকারি-বেসরকারি, গণপরিবহন থেকে শুরু করে সকল স্থরে ‘নো মাস্ক, নো সার্ভিস’ বার্তাটি মুখে মুখে না রেখে বাস্তবায়ন করতে হবে। জনপ্রতিনিধি, মসজিদের ইমাম, স্কুল-কলেজের ছাত্র-শিক্ষকদের এগিয়ে আসতে হবে। বিশ্বের কোথাও কোথাও করোনার দ্বিতীয় ও তৃতীয় ঢেউ শুরু হয়েছে। বিভিন্ন দেশে সংক্রমণ বৃদ্ধি পেয়েছে। কোথাও কোথাও লকডাউনও দিয়েছে। শীতকালে আমাদের দেশেও সংক্রমণ বৃদ্ধি পেতে পারে। এটা আমরা আশঙ্কা করছি।

করোনা রোগীদের চিকিৎসা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, আমাদের দেশে অনেক হাসপাতাল করোনার চিকিৎসা বন্ধ করে দিয়েছে। এর কারণও আছে। রোগী কম থাকায় সরকার এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছে। আমাদের অবকাঠামো আছে। যে কোনো সময় সংক্রমণ বৃদ্ধি পেলে এ সকল হাসপাতাল পুনরায় চালু করতে অনুরোধ করা হয়েছে। এ সকল হাসপাতাল ২৪ ঘণ্টার মধ্যে চালু করা যাবে বলে তারা জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, চিকিৎসক, নার্স, টেকনোলজিস্ট, স্বাস্থ্যকর্মীরা প্রস্তুত আছেন। আমরা রোগীদের সামাল দিতে পারব। বিশ্বের কোথাও করোনার ওষুধ কিংবা টিকা আবিষ্কার করতে পারেনি। তবে আমাদের চিকিৎসকরা ওষুধ দিচ্ছেন। সুস্থও হচ্ছেন অনেকে। টিকা কবে আসবে সেজন্য বসে থাকলে চলবে না। দেশের জনগণকে সচেতন হতে হবে।

বঙ্গবন্ধু মেডিকেল টেকনোলজিস্ট পরিষদের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মো. গোলাম সারোয়ারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য দেন বাংলাদেশ মেডিকেল এসোসিয়েশনের (বিএমএ) সভাপতি ডা. মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিন, বিএমএর মহাসচিব ডা. মো. ইহতেশামুল হক চৌধুরী, শিক্ষা অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. মো. আবু ইউসুফ ফকির প্রমুখ।

এফএ/পি

RTVPLUS