Mir cement
logo
  • ঢাকা রোববার, ০৯ মে ২০২১, ২৬ বৈশাখ ১৪২৮

মুহা. ইকবাল আজাদ

  ২৮ এপ্রিল ২০২১, ২২:৪৪
আপডেট : ২৮ এপ্রিল ২০২১, ২৩:৩২

নারী ইতিহাসের অন্যন্য ক্রিকেটার সারা টেইলর

নারী ইতিহাসের অন্যন্য ক্রিকেটার সারা টেইলর
নারী ইতিহাসের অন্যন্য ক্রিকেটার সারা টেইলর

‘যে রাঁধে, সে চুলও বাঁধে’ - আলোচিত এই প্রবাদটি নারী মহলে ব্যাপক পরিচিত। পদে পদে নারীর সমালোচনায় বুঁদ হয়ে থাকা মানুষটি থেকে শুরু করে নারীর সহযোদ্ধা হয়ে কাজ করা প্রতিটি পুরুষ সর্বদা একজন গুণবতী নারী পছন্দের প্রথম সারিতে রাখেন। পুরুষের জিতে যাওয়া কিংবা হেরে যাওয়ার পেছনে যিনি কলকাঠি নাড়েন; অধিকাংশ ক্ষেত্রেই দেখা যায় তিনি একজন নারী। কাজের বেলায় দুই হাতে সমান পারদর্শী মানুষটি যদি হয় সব্যসাচী, তবে বর্তমানে নারীর উপযুক্ত বিশেষণ ‘সর্বগুণনিধি’।

আধুনিক বিশ্বে শুধু রাঁধা আর চুল বাঁধায় নারীরা থেমে নেই। কর্মক্ষেত্রে নারীর বিচরণ রয়েছে প্রতিটি পদক্ষেপেই। কয়েক দশক আগে নজরুল তার ‘নারী’ কবিতায় কল্যাণকর কাজে যেভাবে নারী-পুরুষ উভয়কেই সমতায় রেখেছেন, আজকে নারীরা চোখে আঙ্গুল দিয়ে তার উপমা তৈরি করে যাচ্ছেন। সংসার গোছানো, চাকরি, খেলাধুলা কিংবা অন্যান্য প্রসঙ্গে বিশ্বজুড়ে নারীরা যেভাবে স্বাক্ষর রাখছেন তাতে পরপারে বসে বেগম রোকেয়া হয়তো কিছুটা স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলছেন।

কয়েক শতক আগে যে সমাজ নারীদের অবজ্ঞার চোখে দেখতো, সে সমাজ আজ নারীদের অতি মানবীয় কাজে উল্লাস করে। যারা বলতো নারী পারে না কিছু, তারাও নিজের মেয়েকে সমাজে প্রতিষ্ঠিত হওয়ার কাছে দারুণ উৎসাহ যোগায়। এশিয়া মহাদেশে নারীরা এখনো যতটা ঘরকুনো, ইউরোপীয় দেশগুলোতে দৃশ্যপট সম্পূর্ণ ভিন্ন। নারীদের অবাধ বিচরণের যে চল, তা উন্নত দেশগুলোয় বেশি দৃশ্যমান। জীবন নির্বাহের সুযোগ কিংবা উন্মুক্ত কর্মক্ষেত্র, আধুনিক দেশগুলোয় নারীদের সুযোগ অফুরন্ত। সেটা হোক অফিসে করা চাকরি অথবা মাঠের পেশাদার খেলাধুলা, সবখানে নারীর অবস্থান-অবদান চোখে পড়ার মতো। ফুটবল, ক্রিকেট, রাগবি কিংবা টেনিস; ক্রীড়া জগতের প্রতিটি পদে রয়েছে নারীর পদচারণা। অর্জনে কুড়ানো অফুরন্ত সম্মাননা।

বিদ্রোহী কবি তার ‘সংকল্প’ কবিতায় বিশ্বকে আপন হাতের মুঠোয় পুরে দেখতে চেয়েছেন। নারীরাও হয়তো নিজেদের খোলস থেকে বেরিয়ে বিশ্বকে পরিভ্রমণ করার সংকল্প করেছেন। কয়েকদিন আগেও যে প্রথা চলেছিলো ক্রিকেট বিশ্বে, সম্প্রতি সে প্রথাকে উল্টো করে দেখিয়েছেন এক নারী ক্রিকেটার। ক্রিকেটে প্রমীলা দলে কোচ হিসেবে নারী-পুরুষ উভয়ই নিয়োগ হতে পারেন, পুরুষ দলে শুধু পুরুষ শিক্ষক যুক্ত হতে পারতেন, এটাই যেন স্বাভাবিকতা। কিন্তু প্রচলিত প্রথার ব্যতিক্রম দিকটা দেখালেন ইংল্যান্ডের সাবেক উইকেট রক্ষক ব্যাটসম্যান সারা টেইলর।

ইংল্যান্ডের জনপ্রিয় কাউন্টি ক্লাব সাকসেসের উইকেট রক্ষক কোচ হিসেবে যোগ দিয়েছেন সাবেক এই কিংবদন্তী ক্রিকেটার। ছেলেদের শীর্ষ পর্যায়ের খেলায় নারী কোচের শিক্ষাদান নতুন কিছু নয়। জনপ্রিয় টেনিস খেলোয়াড় অ্যান্ডি মারেকে কোচিং করিয়েছেন সাবেক নাম্বার ওয়ান প্রমীলা টেনিস তারকা অ্যামেলি মরেসমো। তবে ছেলেদের ক্রিকেটে গুরুর দায়িত্ব নিয়ে যেন এক বিজয়ী যোদ্ধার ঐতিহাসিক কাব্য লিখলেন সারা টেইলর।

শিক্ষার্থীকে বুঝানোর ক্ষমতায় সব শিক্ষক সমান নয়। তবুও একজন অভিভাবক যখন গৃহশিক্ষক খুঁজেন, তখন অবশ্যই শিক্ষকের যোগ্যতা দেখেন, দক্ষতা নিয়ে পর্যালোচনা করেন। মহিলা ক্রিকেটে উইকেটের পেছনে সারা টেইলর যতটা দক্ষ, ব্যাট হাতে প্রতিপক্ষ বোলারকে নাস্তানাবুদ করতে যতটা পারদর্শী- তাতে তার সামর্থ্য নিয়ে প্রশ্ন তোলা যে কারো জন্যই মহা-অন্যায় হয়ে দাঁড়াবে।

পরিসংখ্যান বলে, ওয়ানডে ক্রিকেটের ১১৯ ইনিংসে প্রায় ৩৯ গড়ে ৪০৫৬ রান করেছেন সারা টেইলর। টি-টোয়েন্টিতে ২৯ গড়ে রান সংখ্যা প্রায় ২২শ’ এর কাছাকাছি। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ২২৬ ম্যাচে ২৩২ ডিসমিসালের রেকর্ড গড়া এই টপ অর্ডার ব্যাটসম্যান এখনো প্রমীলা ক্রিকেটের শীর্ষে। শুধু নারী ক্রিকেট কেন, পরিসংখ্যান অনুযায়ী বিশ্বজুড়ে পুরুষ ক্রিকেট দলের অনেক স্বীকৃত ব্যাটসম্যান এবং উইকেট রক্ষক এখনো এই কিংবদন্তি থেকে যোজন যোজন পিছিয়ে। তবুও যদি প্রশ্ন উঠে, সারা কি এই পেশায় টিকে থাকতে পারবেন? উত্তরটা হয়তো এমন হবে, ‘সময় বলে দিবে’।

টেবিলের পাঠে কিংবা খেলার মাঠে দুর্দান্ত যে জন, প্রশংসায় বা আলোচনায় তাকে সমাদৃত করে স্বজন। যে দুর্দান্ত দক্ষতার বলে, হস্ত যুগলের ক্ষিপ্রতার টানে সারাকে সমাদৃত করেছে বিখ্যাত কাউন্টি ক্লাব সাসেক্স। নিজের মেধা, বুদ্ধি আর বিচক্ষণতায় সারা যেন সমাজের মরীচিকা পড়া রীতিকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়েছেন। নিয়মের শিকল ছিঁড়ে যেন নিজের প্রাপ্য আসন দখল করেছেন। শিষ্যদের দীক্ষা দানে হয়তো সারা এখানেও বিখ্যাত হবেন। আগামীর প্রজন্মকে আরও দক্ষ করে তুলবেন। হয়তো সারার দেখানো পথে আরও অনেকেই ছেলেদের কোচের দায়িত্ব নিবেন। নামের আগে শিক্ষার্থীরা সম্মানসূচক ‘স্যার’ পদবী জুড়ে দিবেন। তবুও যিনি অভিনব পেশায় প্রথম আসে, যার নামে কলম হাসে; হোক তিনি তার কর্মে ব্যর্থ কিংবা সফল, তবুও তার নাম বেজে ওঠে ঐতিহাসিক সুরের মূর্ছনায়। শ্রদ্ধা ভরে স্মরণ করা হয় অপরিমেয় ভালোবাসায়। খেলোয়াড়ি জীবনে বিখ্যাত সারা নতুন পেশার ভিন্নতায় ইতিহাসের পাতায় রেকর্ড গড়ে যেন ঐতিহাসিক কাব্য রচনা করেছেন। যার শিরোনাম হয়তো এমন হবে, ‘নারী ইতিহাসের অন্যন্য ক্রিকেটার সারা টেইলর’।

RTV Drama
RTVPLUS