logo
  • ঢাকা মঙ্গলবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ২ আশ্বিন ১৪২৬

অবরোধের মুখে জাবিতে স্থবির প্রশাসনিক কার্যক্রম

জাবি প্রতিনিধি
|  ০৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১২:৩২
জাবি, প্রশাসন, কর্মসূচি
জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে (জাবি) তিন দফা দাবিতে পূর্ব ঘোষিত প্রশাসনিক ভবন অবরোধ কর্মসূচি পালন করছেন আন্দোলনকারীরা। এতে স্থবির হয়ে পড়েছে সকল ধরনের প্রশাসনিক কার্যক্রম। ফলে কোনও কর্মকর্তা-কর্মচারী দুপুর পর্যন্ত প্রশাসনিক ভবনে প্রবেশ করতে পারেননি। এতে শিক্ষা কার্যক্রমসহ সকল কর্মকাণ্ড বন্ধ হয়ে আছে। ভোগান্তির কবলে পড়েছে সেবা গ্রাহকরা।

মঙ্গলবার সকাল সাড়ে সাতটা থেকে ‘দুর্নীতির বিরুদ্ধে জাহাঙ্গীরনগর’ ব্যানারে বিভিন্ন সংগঠনের নেতাকর্মী এই অবরোধ কর্মসূচি পালন করে আসছে। এতে কয়েকজন শিক্ষকসহ জাহাঙ্গীরনগর সাংস্কৃতিক জোট ও বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ, ছাত্র ইউনিয়ন, সমাজতান্ত্রিক ছাত্রফ্রন্টের জাবি শাখার নেতাকর্মীরা অংশ নিয়েছেন।

আন্দোলনকারীদের দাবি, অপরিকল্পিত মাস্টার প্লানের অধীনে ‘অধিকতর উন্নয়ন প্রকল্পের’ কাজ শুরু করা হয়েছে। অপরিকল্পিতভাবে যে কয়েকটি স্থাপনার কাজ শুরু হয়েছে তাতেও ব্যাপক আর্থিক অনিয়মের ঘটনা ঘটেছে বলে তারা জাতীয় দৈনিকে প্রকাশিত প্রতিবেদন থেকে জেনেছেন। এজন্য প্রকল্পে অপরিকল্পনা ও দুর্নীতির প্রতিবাদে এবং তিন দফা দাবি আদায়ে তারা এই অবরোধ কর্মসূচি পালন করছেন।

দাবিগুলো হলো বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর হলের তিনটি হল স্থানান্তর করে নতুন জায়গায় দ্রুত কাজ শুরু করা, মেগা প্রজেক্টের টাকার দুর্নীতির ব্যাপারে বিচার বিভাগীয় তদন্ত করা, টেন্ডারের শিডিউল ছিনতাইকারীদের শাস্তি প্রদান ও মেগা প্রজেক্টের স্বচ্ছতা নিশ্চিত করে সকল ব্যয়ের হিসেব জনসম্মুখে প্রকাশ করা এবং মেগা প্রজেক্টের বাকি স্থাপনার কাজ স্থগিত রেখে সকল স্টক হোল্ডারদের সঙ্গে আলোচনা করে মাস্টারপ্ল্যান পুনর্বিন্যাস করা।

বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ জাবি শাখার যুগ্ম  আহ্বায়ক জয়নাল আহমেদ শিশির বলেন, প্রশাসন একগুঁয়ে  আচরণ করছে। এর জবাব ক্যাম্পাসের শিক্ষার্থীরা দিবে। প্রশাসন দাবি মেনে না নিলে আমরা লাগাতার কর্মসূচি দিতে বাধ্য হব।

জাহাঙ্গীরনগর সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি আশিকুর  রহমান বলেন, তিন দিনব্যাপী কর্মসূচি চলাকালে তাদের দাবি মেনে না নেওয়া হলে তারা আলোচনা করে নতুন কর্মসূচির বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবেন।

এদিকে শিক্ষার্থীদের অবরোধ কর্মসূচির বিষয়ে প্রশাসনের পক্ষ থেকে এখন পর্যন্ত কোনও ধরনের বার্তা পাওয়া যায়নি।

জেবি

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়