logo
  • ঢাকা মঙ্গলবার, ০২ মার্চ ২০২১, ১৭ ফাল্গুন ১৪২৭

লাইফস্টাইল ডেস্ক, আরটিভি নিউজ

  ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১৪:২২
আপডেট : ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১৪:৩৫

সৌন্দর্যমণ্ডিত ক্যাকটাস দিয়ে বাড়ির দেয়াল নির্মাণ

Build the walls of the house with beautiful cactus
সৌন্দর্যমণ্ডিত ক্যাকটাস দিয়ে বাড়ির দেয়াল নির্মাণ

মানুষের কাছে কাঁটাযুক্ত সৌন্দর্যমণ্ডিত ক্যাকটাস এখন ঘরের গাছ হিসেবেই বেশি পরিচিত। সব ধরনের ক্যাকটাসেই রোদের দরকার হয়। তবে ক্যাকটাস কণ্টকময় এক ধরনের উদ্ভিদ, তাদের কাণ্ডে বিশাল পরিমাণে পানি জমা রাখতে পারে এবং অত্যন্ত গরম ও শুষ্ক স্থানে বেঁচে থাকতে পারে।

বিভিন্ন আকার-আকৃতি এবং রঙের প্রায় ২০০০ প্রজাতির ক্যাকটাস আছে পৃথিবীতে। প্রায় সব প্রজাতির ক্যাকটাসই দক্ষিণ এবং উত্তর আমেরিকার মরুভূমি এবং শুষ্ক অঞ্চলে জন্মায়। ক্যাকটাসের আকার-আকৃতি নির্ভর করে এদের প্রজাতির ওপর।

ক্যাকটাস চাষের জন্য খুব গুরুত্বপূর্ণ হলো মাটি। এই গাছ অন্য গাছের তুলনায় একেবারেই আলাদা। পারলাইট মাটি বা দোআঁশ মাটির মিশ্রণ এক্ষেত্রে ভালো। ক্যাকটাসের চারা বা বীজ বপণের কোনো নির্দিষ্ট সময় নেই। তবে এপ্রিল-মে মাসে বীজ বপণ করলে ভালো হয়।

ক্যাকটাসে পানি দেওয়ার ক্ষেত্রে খুব সতর্কতা মেনে না চললে গাছ মারা যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। কম পানি দিলে ক্যাকটাসের বৃদ্ধি ব্যাহত হতে পারে। আবার বেশি পানি দিলে মূল পচে গাছ মারা যেতে পারে। মাসে ১ থেকে ২ বার পানি দেওয়া ভালো। তবে খেয়াল রাখতে হবে গাছের গোড়া শুকনা না থাকলে পানি দেওয়ার প্রয়োজন নেই।

মানুষ তার বাড়িকে নিরাপদ রাখার জন্য নানা পদক্ষেপ নিয়ে থাকে। আর সেই দেওয়াল যদি হয় ক্যাকটাসের গাছ দিয়ে, তখনি চারপাশ সৌন্দর্যমণ্ডিত হয় এর মাধ্যমে।

ক্যাকটাস দিয়ে এমনই এক ভিন্ন রকম দেয়াল নির্মাণ করেছেন খাগড়াছড়ি শহর থেকে ৩১ কিলোমিটার দূরে মহালছড়ি উপজেলার মুবাছড়ি ইউপির কাপ্তাই পাড়া এলাকার বাবুরাম মারমা। তার বাড়ির এমন দৃশ্য চোখ জুড়ায় রাস্তা দিয়ে চলাচল করা প্রকৃতিপ্রেমী মানুষদের। এরই মাঝে বাড়ির চারপাশে সবুজ ক্যাকটাস গাছ লাগিয়ে বাউন্ডারি দেয়ালের কাজ শেষ করেছেন তিনি।

বাবুরাম মারমা জানান, তার বাড়ির চারপাশে ১৮ বছর আগে ক্যাকটাস গাছ লাগানো হয়েছিল। এগুলো এখন অনেক বড় হয়েছে। এসব গাছের কারণে এখন আমার বাড়িতে দেওয়াল দিতে হচ্ছে না। এগুলো অনেক বড় হয়ে যাওয়ার কারণে বাইরে থেকে ভিতরের কিছু দেখা যায় না।

ক্যাকটাস গাছ নিয়ে বাবুরামের স্ত্রী রামবাই মারমা বলেন, আমার বিয়ের পর এই বাড়ি বানিয়েছি। এরপর এক জায়গা থেকে এই গাছগুলোর বীজ এনে বাড়ির চারপাশে লাগিয়েছি। এখন অনেক বড় হয়েছে গাছগুলো। আমাদের বাড়ির চারপাশ ঢেকে গেছে ক্যাকটাস গাছে। এখন বাড়ির যেদিকে তাকাই গাছগুলো দেখতে পাই।

এছাড়া বৃহৎ প্রজাতির ক্যাকটাস ৬৬ ফুট পর্যন্ত লম্বা হতে পারে এবং এর ওজন হতে পারে ৪৮০০ পাউন্ড (যখন এরা পানি দ্বারা সম্পূর্ণ ভর্তি থাকে)। ছোটো প্রজাতির ক্যাকটাস মাত্র কয়েক ইঞ্চি লম্বা হয়।

জিএম/পি

RTV Drama
RTVPLUS