logo
  • ঢাকা শুক্রবার, ২২ জানুয়ারি ২০২১, ৮ মাঘ ১৪২৭

কোন ডিমের কী উপকারিতা, না খেলে বুঝবে কী করে

What are the benefits of an egg, if you do not understand how to play,
ডিম (ফাইল ছবি)
প্রতিদিনই কমবেশি ডিম খেয়ে থাকি আমরা। সাধারণত হাঁসের ডিম, দেশি মুরগির ডিম, ফার্মের মুরগির ডিম ও কোয়েলের ডিম খাওয়া হয়। কিন্তু আমরা কী জানি, কোন ডিমে কী গুণাগুণ রয়েছে। পাঠকদের জন্য ডিমের পুষ্টিগুণ তুলে ধরা হলো-

দেশি মুরগির ডিম
দেশি মুরগির ডিম ও ফার্মের মুরগির ডিমে খুব ব্যবধান নেই। দেশি মুরগি খাদ্য হিসেবে বিভিন্ন পোকা-মাকড়, গাছের কচিপাতা, কেঁচো ও বাড়ির ফেলে দেওয়া অবশিষ্ট খাবার খায়। দেশি মুরগির ডিমের গড় ওজন প্রায় ৩৮ গ্রাম। বিপরীতে ফার্মের মুরগির ডিমের গড় ওজন প্রায় ৬০ গ্রাম।

ফার্মের মুরগির ডিম 
ফার্মের মুরগির খাবারে বিভিন্ন ভিটামিন মেশানো হয়। এসব খাবারে বিভিন্ন খনিজ পদার্থ থাকে। শামুকের গুঁড়া, খৈল, লবণ, শুটকি মাছের গুঁড়া, ভুষি, গম, ভুট্টাসহ অনেক কিছুর মিশ্রণে তৈরি হয় ফার্মের মুরগির খাদ্য। দেশি মুরগির থেকে ফার্মের মুরগির ডিম প্রায় দ্বিগুণ বিধায় এতে প্রোটিন, ফ্যাট, ভিটামিন, খনিজসহ অন্যান্য পুষ্টি গুণাগুণ বেশি। ফ্যাট কমাত হাঁসের ডিমের থেকে মুরগির ডিম সহায়ক।

হাঁসের ডিম 
পুষ্টি গুনাগুণ বিবেচনা করলে হাঁসের ডিম ও মুরগির ডিম প্রায় একই। তবে হাঁসের ডিমে কিছুটা বেশি পুষ্টি। ১০০ গ্রাম হাঁসের ডিমে ১৮১ কিলো-ক্যালরি শক্তি রয়েছে। এতে ১৩.৫ গ্রাম প্রোটিন থাকে, ফ্যাট ১৩.৭ গ্রাম, ক্যালসিয়াম ৭০ মিলিগ্রাম, লোহা ৩ মিলিগ্রাম, ভিটামিন-এ ২৬৯ মাইক্রোগ্রাম থাকে।

কোয়েলের ডিম 
ডিমের মধ্যে একমাত্র কোয়েলের ডিমে পুষ্টিগুণ বেশি। বিশেষজ্ঞরা চল্লিশ বছরের পর মুরগির ডিম খেতে নিষেধ করেন। নিয়মিত মুরগির ডিম খেলে কোলেস্টেরলের মাত্রা বেড়ে যায় এবং হৃদরোগ হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। সেটা দেশি মুরগি কিংবা ফার্মের মুরগির ডিম হোক। কোয়েলের ডিমে রিবোফ্লাভিন রয়েছে। এটি ভিটামিন বি-২। যা দেহের বিভিন্ন শারীরবৃত্তি প্রক্রিয়ায় উপকারী। ভিটামিন বি-২ সহ অন্যান্য বি শ্রেণির ভিটামিন উপাদানগুলো লিভার, ত্বক, চুল ও চোখের সুস্থতায় কাজ করে। এ ডিমে রয়েছে সেলেনিয়াম খনিজ। উপাদানটি প্রোস্টেট ক্যানসারের ঝুঁকি কমায়। সেলেনিয়ামের অ্যান্টি অক্সিডেন্ট দেহকোষ ক্ষয় রোধে কাজ করে এবং এই ডিমে থাকা ভিটামিন-এ চোখের দৃষ্টি শক্তি বাড়ায়।
এসআর/পি

RTV Drama
RTVPLUS