Mir cement
logo
  • ঢাকা রোববার, ২০ জুন ২০২১, ৬ আষাঢ় ১৪২৮

‘আমাকে বিয়ে করুক না হয় মেরে ফেলুক’

কলেজছাত্রী জুলেখা

প্রেমিকের পরিবার থেকে সম্পর্ক মেনে না নিয়ে বরং অন্য জায়গায় বিয়ে ঠিক করেন ছেলের জন্য। যুবক প্রেমিকের অন্য জায়গায় বিয়ে ঠিক হওয়ার খবর জানতে পেরেই যুবক প্রেমিকের বাড়ির সামনে অবস্থান নেন কলেজছাত্রী। ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের মুর্শিদাবাদের ডোমকলের শেখালিপাড়ায়।

জানা গেছে, যুবকের সঙ্গে প্রায় তিন বছরের পুরনো সম্পর্ক তরুণীর। কিন্তু এ সম্পর্ক যুবকের পরিবার থেকে মানতে নারাজ। তাই অন্য জায়গায় বিয়ে ঠিক করেন ছেলের।

এদিকে কলেজছাত্রী জুলেখা বলছেন, প্রায় তিন বছর আগে শেখালিপাড়ার বাসিন্দা আব্বাসউদ্দিনের সঙ্গে পরিচয় হয় তার। এরপর পর্যায়ক্রমে ঘনিষ্ঠতা বাড়তে থাকে তাদের মধ্যে। বিষয়টি জানতে পেরে আব্বাসের পরিবার শুরু থেকেই এ সম্পর্ক মানতে অসম্মতি জানায়। কিন্তু আব্বাস ও জুলেখা ভেবেছিল সময়ের সঙ্গে সঙ্গে পরিবার সব মেনে নিবে। তবে সেই ভাবনা ঠিক হয়নি। তাই তো জুলেখার পরিবর্তে অন্য জায়গায় অন্য মেয়ের সঙ্গে পরিবার থেকে বিয়ে ঠিক করা হয় আব্বাসের।

আব্বাসের বিয়ে ঠিক হওয়ার খবর জানতে পেরে বৃহস্পতিবার (৩ জুন) বিকেলে যুবক প্রেমিকের বাড়ি ছুটে যান জুলেখা। এতে নাকি আব্বাসের পরিবার মারমুখী হয়ে উঠে। জুলেখা পোস্টার হাতে প্রেমিকের বাড়ি অবস্থান নেন। জুলেখার পোস্টারে লেখা, ‘বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে তিন বছর ধরে সব সম্পর্ক করে এখন অন্য মেয়েকে বিয়ে করবে। আমাকে বিয়ে করুক না হয় মেরে ফেলুক। না হলে আমি আত্মহত্যা করব।’

জুলেখার এমন অবস্থানে অবাক আব্বাসের প্রতিবেশীরা। আর এ বিষয়টি জানাজানি হলে চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয় এলাকায় এবং আব্বাসের বাড়ির সামনে লোকজন ভিড় করেন। তবে আব্বাস কিংবা তার পরিবার থেকে এ বিষয়ে কোনো প্রতিক্রিয়া জানানো হয়নি। সূত্র : সংবাদ প্রতিদিন

এসআর/

RTV Drama
RTVPLUS