• ঢাকা মঙ্গলবার, ২১ মে ২০১৯, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬

মোদির হেলিকপ্টারে ট্রাঙ্ক, তদন্তের দাবি কংগ্রেসের

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, আরটিভি অনলাইন
|  ১৪ এপ্রিল ২০১৯, ২১:১৬ | আপডেট : ১৪ এপ্রিল ২০১৯, ২১:৩১
ছবি: সংগৃহীত
ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির হেলিকপ্টারে ‘রহস্যজনক’ ট্রাঙ্ক নিয়ে অভিযোগ তুলেছে কংগ্রেস। তারা নির্বাচন কমিশনের কাছে এই ঘটনা তদন্তেরও দাবি জানিয়েছে।

whirpool
ভারতীয় গণমাধ্যম আনন্দবাজারের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, গত সপ্তাহে নির্বাচনী প্রচারে হেলিকপ্টারে করে কর্নাটক যান নরেন্দ্র মোদি। সেখানে পৌঁছানোর পর মোদি নামার আগেই তার নিরাপত্তারক্ষীরা একটি কালো ট্রাঙ্ক তড়িঘড়ি করে নামিয়ে গোপন জায়গায় নিয়ে যায়।

এরপরই বিষয়টি নিয়ে আলোচনা শুরু হয়। ঘটনা নজরে আসার পর এ ব্যাপারে মোদির বক্তব্য জানতে চান কংগ্রেস মুখপাত্র আনন্দ শর্মা। ট্রাঙ্কের ভিতরে কী ছিল তা জানতে চান তিনি।

এদিকে মোদির হেলিকপ্টার থেকে ট্রাঙ্ক নামানোর ঘটনার প্রমাণ হিসেবে শনিবার নিজের টুইটার অ্যাকাউন্টে ১৫ সেকেন্ডের একটি ভিডিও পোস্ট করেন কর্নাটক প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি দীনেশ গুন্ডু রাও।

ওই ভিডিওতে দেখা যায়, মোদির হেলিকপ্টার থেকে একটি কালো রঙের ট্রাঙ্ক নামান কয়েকজন নিরাপত্তারক্ষী। এরপর দ্রুত সেই ট্রাঙ্ক একটি গাড়িতে তুলে দেন। ট্রাঙ্ক তোলার সঙ্গে সঙ্গেই গাড়িটি চলে যায়।

টুইটারে ভিডিওটি পোস্ট করে নির্বাচন কমিশনের হস্তক্ষেপ দাবি করেন দীনেশ গুন্ডু রাও। তিনি লেখেন, কর্নাটকে প্রধানমন্ত্রী মোদির হেলিকপ্টার থেকে রহস্যজনক বাক্স নামানো হলো। কিছুক্ষণের মধ্যে সেটি নিয়ে উধাও হয়ে গেলো একটি গাড়ি। বিষয়টি খতিয়ে দেখা উচিত নির্বাচন কমিশনের। বাক্সে কী রাখা ছিল, গাড়িটাই বা কার, সবকিছু তদন্ত করে দেখা হোক।

রোববার পুরো বিষয়টি নিয়ে দিল্লিতে সরব হতে দেখা যায় কংগ্রেস মুখপাত্র আনন্দ শর্মাকে। তিনি বলেন, কর্নাটকে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির হেলিকপ্টারের সঙ্গে আরও তিনটি হেলিকপ্টার ছিল। সেখানে নামার সঙ্গে সঙ্গেই প্রধানমন্ত্রীর কপ্টার থেকে একটি কালো ট্রাঙ্ক বের করে নিয়ে যাওয়া হয়। বেসরকারি গাড়িতে তুলে সঙ্গে সঙ্গে সরিয়েও ফেলা হয় ট্রাঙ্কটি।

ডি/পি

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়