logo
  • ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১২ ফাল্গুন ১৪২৭

সিনেমায় সন্ত্রাস ও নায়িকাকে উত্ত্যক্ত করার দৃশ্য পাল্টাতে হবে: আনু মুহাম্মদ

scene, terror, harassment, heroine, movie, changed, Anu Muhammad
সিনেমায় সন্ত্রাস ও নায়িকাকে উত্ত্যক্ত করার দৃশ্য পাল্টাতে হবে আনু মুহাম্মদ

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের অধ্যাপক এবং তেল-গ্যাস-খনিজ সম্পদ ও বিদ্যুৎ-বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটির সদস্য সচিব আনু মুহাম্মদ বলেন, আমাদের দেশে নাটক-সিনেমাগুলোর পরিবর্ত আনতে হবে। নারী উত্ত্যক্তকারীকে প্রশ্রয় দিয়ে নাটক-সিনেমা তৈরি হচ্ছে। নায়িকাকে উত্ত্যক্ত করলে নায়কের প্রেমে পড়বে নাটক-সিনেমায় এ ধরনের দৃশ্যের পরিবর্তন আনতে হবে।

শুক্রবার (১২ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে ছাত্র ইউনিয়ন, সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট, বাংলাদেশ নারীমুক্তি কেন্দ্রসহ ১৩টি প্রগতিশীল সংগঠনের উদ্যোগে আয়োজিত এক গণসমাবেশে তিনি এ মন্তব্য করেন। ধর্ষণ ও বিচারহীনতার বিরুদ্ধে বাংলাদেশ ব্যানারে এ গণসমাবেশের আয়োজন করা হয়।

আনু মুহাম্মদ বলেন, বর্তমান নাটক-সিনেমাগুলোর দিকে তাকালে মূলত দুই জিনিস দেখা যাবে, একটি হচ্ছে সারাক্ষণ মারামারি, সন্ত্রাস এবং সহিংসতা। এটা যত নির্মম হয় তত হিট হয় সিনেমা। অন্যটি হচ্ছে যৌন নিপীড়ন। সেখানে নায়কের কাজ হচ্ছে নায়িকাকে উত্ত্যক্ত করা। এক পর্যায়ে যাকে উত্যক্ত করা হবে সে প্রেমে পড়বে। সিনেমা ও নাটকগুলোতে এরকম একটি কাহিনী আমরা সারাক্ষণ দেখি। এই সিনেমাগুলো একটা জনমত তৈরি করে। এতে তরুণ সমাজের মধ্যে ধারণা জন্মে পুরুষ হিসেবে যদি আমাকে পাত্তা পেতে হয় তাহলে নারীকে উত্ত্যক্ত করতে হবে।

অধ্যাপক আনু মুহাম্মদ আরও বলেন, ধর্ষণ ও নারী নির্যাতনের পেছনে স্থান, কাল, সময়, পোশাক কোনোকিছুই ধর্ষণের কারণ নয়। আসলে ধর্ষকের ক্ষমতাই ধর্ষণের মূল কারণ। যারা নির্যাতিতদের পোশাক ও চলাফেরা খুঁজে, তারা মূলত অপরাধীর অপরাধকে আড়াল করতে চায়। যখন একজন ধর্ষণ হয় তখন ধর্ষিতার দোষ যারা খুঁজে তারা আসলে সন্ত্রাসী বা ধর্ষকদের পৃষ্ঠপোষকতা করে তার পক্ষের যুক্তি খোঁজার চেষ্টা করে। স্থান, কাল, সময়, পোশাক কোনো কিছুই আসলে ধর্ষণের কারণ নয়, এর মূল কারণ হলো ধর্ষকের ক্ষমতা। এই ধর্ষণকারীর পরিচয়টা প্রকাশ করতে হবে ভালোভাবে। সঙ্গে তারা ক্ষমতার উৎসও।

এফএ

RTV Drama
RTVPLUS