logo
  • ঢাকা মঙ্গলবার, ২৮ জানুয়ারি ২০২০, ১৫ মাঘ ১৪২৭

হুমকির মুখে মুন্সী আবদুর রউফ স্মৃতি জাদুঘর

ফরিদপুর প্রতিনিধি
|  ০৯ ডিসেম্বর ২০১৯, ০৯:২০ | আপডেট : ০৯ ডিসেম্বর ২০১৯, ১১:৩৭
হুমকি মুন্সী আবদুর রউফ স্মৃতি জাদুঘর
ফরিদপুরের মধুখালী উপজেলার কৃতি সন্তান বীরশ্রেষ্ঠ মুন্সী আব্দুর রউফ। স্বাধীনতার ৪৮ বছর পরও জরাজীর্ণ অবস্থায় পড়ে আছে ফরিদপুরে তার বসতভিটা। এমনকি মুন্সী আব্দুর রউফ সংগ্রহশালায় যাওয়ার একমাত্র রাস্তাটি মধুমতি নদীর গর্ভে বিলীন হয়ে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে আছে। স্মৃতি সংগ্রহশালার আধুনিকায়ন ও এলাকার রাস্তা সংস্কারের দাবি জানান পরিবারের সদস্য ও এলাকাবাসী।

ফরিদপুরের মধুখালী উপজেলার কামারখালী ইউনিয়নের প্রত্যন্ত একটি গ্রাম সালামতপুর। এ গ্রামেই ১৯৪৩ সালে জন্ম নেন বীরশ্রেষ্ঠ ল্যান্স নায়েক মুন্সী আবদুর রউফ। ১৯৬৩ সালে পূর্ব পাকিস্তান রাইফেলসে যোগ দেন তিনি। মুক্তিযুদ্ধের সময়ে তিনি সৈনিক হিসেবে কর্মরত ছিলেন। ১৯৭১ সালে বঙ্গবন্ধুর ডাকে ঝাঁপিয়ে পড়েন মুক্তিযুদ্ধে। একাত্তরের ৮ এপ্রিল রাঙামাটির মহালছড়িতে বুড়িঘাট এলাকায় হানাদার বাহিনীর সঙ্গে সম্মুখ যুদ্ধে ২ প্লাটুন পাকিস্তানি সেনা ধ্বংস করেন। সেখানে যুদ্ধরত মুক্তিযোদ্ধাদের নিরাপদে সরিয়ে দেন। কিন্তু শত্রুর মর্টার সেলে প্রাণ হারান মুন্সী আবদুর রউফ।

মুন্সী আবদুর রউফের গ্রামের পৈত্রিক বাড়িটি অযত্ন অবহেলায় পড়ে আছে। বাড়ি যাওয়ার একমাত্র রাস্তাটিও নদী ভাঙনের মুখে। পরিবারের সদস্যরা দীর্ঘদিন ধরেই বাড়িটির সংস্কারের দাবি জানিয়ে আসছেন।

একই সঙ্গে হুমকির মুখে মুন্সী আবদুর রউফ স্মৃতি জাদুঘর ও গ্রন্থাগারটি। নদী ভাঙনের কবলে জাদুঘরের সামনের রাস্তাটিও। দর্শনার্থীদের এখানে আসতে ভোগান্তি পোহাতে হয়।

মুন্সি আব্দুর রউফ গ্রন্থাগার ও স্মৃতি জাদুঘর রক্ষায় নদী ভাঙন রোধের ব্যবস্থা নেয়ার আশ্বাস দিলেন জেলা প্রশাসক।

মধুখালী উপজেলায় মুন্সী আব্দুর রউফ স্মরণে সমাধি ও মুক্তিযুদ্ধ স্মৃতি জাদুঘর নির্মাণের দাবি জানালেন এলাকাবাসী।

আরো পড়ুন

পি

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
  • দেশজুড়ে এর সর্বশেষ
  • দেশজুড়ে এর পাঠক প্রিয়