Mir cement
logo
  • ঢাকা সোমবার, ২৯ নভেম্বর ২০২১, ১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৮

কুবি প্রতিনিধি, আরটিভি নিউজ

  ১৮ অক্টোবর ২০২১, ২১:২৯
আপডেট : ১৮ অক্টোবর ২০২১, ২২:৫২

প্রেমিককে হেনস্তা করায় দ্বিমুখী সংঘর্ষ 

প্রেমিককে হেনস্তা করায় দ্বিমুখী সংঘর্ষ 
কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের (কুবি) উপাচার্য বাসভবন সংলগ্ন সামাজিক বনায়নে ছিনতাই ও দ্বিমুখী সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এই ঘটনায় একজনকে আটক করেছে পুলিশ। সোমবার (১৮ অক্টোবর) দুপুর দুইটার দিকে এই ঘটনা ঘটে।

আটক ব্যক্তির নাম মো. ইকবাল (২৭)। তার নামে এর আগেও সামাজিক বনায়ন এলাকায় ছিনতাইয়ের অভিযোগ রয়েছে৷

প্রত্যক্ষদর্শী ও ছিনতাইয়ের ঘটনায় অভিযুক্ত এবং ভুক্তভোগীদের জবানবন্দি মতে জানা গেছে, কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের (কুবি) উপাচার্য বাসভবন সংলগ্ন সামাজিক বনায়নে কুমিল্লা চান্দিনা এলাকার এক নারী তার প্রবাসী প্রেমিক মুন্সিগঞ্জের বাসিন্দা মো. রাসেলকে হেনস্তার উদ্দেশে নিয়ে আসে।

সে নারী আরটিভি নিউজকে জানিয়েছেন, প্রেমের সম্পর্কের ভাঙনে তার বন্ধু আজহারকে দিয়ে প্রেমিক রাসেলকে ভয়-ভীতি দেখানোর পরিকল্পনা করে। জায়গা হিসেবে তারা বেছে নেয় বিশ্ববিদ্যালয় সংলগ্ন সামাজিক বনকে।

ওই নারীর বন্ধু আজহার সেখানে তার পূর্বপরিচিত ও বন্ধু কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইসিটি বিভাগের ১৩তম ব্যাচের শিক্ষার্থী মেহেদী হাসান সাকিব ও কয়েকজনকে সঙ্গে নিয়ে ওই নারীর প্রেমিক রাসেলকে হেনস্তা করে।

প্রেমিক রাসেল আরটিভি নিউজের কাছে অভিযোগ করেন, আজহার তাকে চড় মারেন এবং তার সঙ্গে থাকা একজন তার মোবাইল ছিনিয়ে নিয়েছে ৷

তাদের এই পরিকল্পনা বাস্তবায়নের সময় সামাজিক বনে ছিনতাইয়ের জন্য পরিচিত 'টারজান' গ্রুপের সদস্যরা (ইকবাল, নয়ন, মিজান) লাঠিসোটা নিয়ে এসে তাদের ঘিরে ধরেন। এর মধ্যে আটককৃত ইকবাল ও তার সহযোগীরা সাকিবের ফোন ছিনিয়ে নেন। এ সময় দুই পক্ষের মাঝে একদফা সংঘর্ষ হয়।

পরবর্তীতে দ্রুত সময়ের মধ্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্যান্য শিক্ষার্থীরা ঘটনাস্থলে এসে ‘টারজান’ গ্রুপের নেতা ইকবাল ও তার সহযোগী আলাউদ্দিনকে ধরে ফেলে। এরপর ওই নারী ও তার প্রেমিক রাসেলসহ ওই দুইজনকে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অফিসে নিয়ে যাওয়া হয়।

প্রথমে প্রেমিকযুগল মূল ঘটনা আড়াল করলেও পরবর্তীতে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ও পুলিশ প্রশাসনের সামনে পুরো ঘটনা জানানো হয়।

জিজ্ঞাসাবাদে, ইকবালের দেওয়া তথ্যে সামাজিক বনের একটি ঘর থেকে সাকিবের ফোনটি উদ্ধার করা হয়।

পরবর্তীতে সবার বক্তব্য শুনে কোটবাড়ি ফাঁড়ির ইনচার্জ মো. রিয়াজউদ্দিন ছিনতাইকারী ইকবালকে আটক করেন। বাকিরা কেউ কারও বিরুদ্ধে অভিযোগ না করায় মুচলেকা নিয়ে তাদের ছেড়ে দেওয়া হয়।

এ ব্যাপারে মো. রিয়াজউদ্দিন আরটিভি নিউজকে জানিয়েছেন, ছিনতাইয়ের ঘটনায় আমরা একজনকে আটক করেছি। বাকিদের ব্যাপারে সুনির্দিষ্ট অভিযোগ পেলে পরবর্তীতে সেই অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এ প্রসঙ্গে কুবি প্রক্টর ড. কাজী মোহাম্মদ কামাল উদ্দিন আরটিভি নিউজকে জানিয়েছেন, কেউ লিখিত অভিযোগ করলে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন থেকে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এমআই/এসকে

মন্তব্য করুন

RTV Drama
RTVPLUS