Mir cement
logo
  • ঢাকা সোমবার, ২৯ নভেম্বর ২০২১, ১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৮

মোহাম্মদপুর-শ্যামলী-বসিলায় চাঁদাবাজ চক্রের ভয়ঙ্কর কাণ্ড, অ্যাকশনে র‌্যাব

Terrible extortion ring in Shyamoli-Mohammadpur-Basila, said RAB
র‌্যাবের হাতে গ্রেপ্তারকৃত ৬ জন

রাজধানীর শ্যামলী, মোহাম্মদপুর ও বসিলাকেন্দ্রিক এক ভয়ঙ্কর চাঁদাবাজ চক্রের বিষয়ে বিস্তারিত তথ্য তুলে ধরেছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)। কেবল তা-ই নয়, ওই চক্রের সক্রিয় ছয় সদস্যকে গ্রেপ্তার করেছে বাহিনীটি। তাদের মধ্যে চক্রটির নেতৃত্ব দেওয়া একাধিক সদস্যও রয়েছে বলে জানা গেছে।

সম্প্রতি শ্যামলীর একটি মোটরসাইকেল শোরুমে ছুরি-চাপাতি নিয়ে হামলা করে ডাকাতির ঘটনা ঘটে। ওই ঘটনার ছায়াতদন্তে নেমে অন্য পেশার আড়ালে থাকা ভয়ঙ্কর ডাকাত চক্রের সন্ধান পাওয়া যায়।

র‌্যাব বলছে, পলাতক শীর্ষ সন্ত্রাসীদের নাম ভাঙিয়ে রাজধানীর বেশ কয়েকটি এলাকায় চাঁদাবাজি করত একটি গ্রুপ। বেশির ভাগ সময় ব্যবসায়ী ও নির্মাণাধীন ভবন মালিকদের টার্গেট করে তারা চাঁদাবাজি করছিল। তাদের দাবি করা চাঁদা না পেলে ভুক্তভোগীদের দেওয়া হতো হুমকি। পাশাপাশি সেই প্রতিষ্ঠানে হামলা ও ডাকাতি করে লুটে নিত সবকিছু।

গত ১২ অক্টোবর সন্ধ্যায় এই চক্রের সদস্যরা শ্যামলী এলাকার মোটরসাইকেলের শোরুম ‘ইডেন অটোস’-এ ঢুকে দুজনকে কুপিয়ে সাড়ে পাঁচ লাখ টাকা ও কিছু দামি জিনিসপত্র লুট করে। পরবর্তীতে র‌্যাব সদর দপ্তরের গোয়েন্দা শাখা ও র‌্যাব-২ পৃথক অভিযান চালিয়ে গতকাল শনিবার (২৩ অক্টোবর) রাতে চক্রটির মূলহোতাসহ ছয়জনকে গ্রেপ্তার করে। আজ রোববার (২৪ অক্টোবর) দুপুরে রাজধানীর কারওয়ান বাজার র‌্যাব মিডিয়া সেন্টারে এলিট ফোর্সটির লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইংয়ের পরিচালক কমান্ডার খন্দকার আল মঈন এসব তথ্য জানান।

র‌্যাব জানায়, গতরাতে ঢাকার কেরানীগঞ্জ ও ধামরাইয়ে অভিযান চালিয়ে লুণ্ঠিত অর্থ ও ডাকাতির কাজে ব্যবহৃত দেশীয় অস্ত্র এবং অন্যান্য আলামতসহ চক্রের ছয় সদস্যকে গ্রেপ্তার করা হয়। তারা হলো- খুলনার জহিরুল ইসলাম জহির (৩৩), বরগুনার মো. জসিম উদ্দিন (৩৪), পটুয়াখালীর মো. জাহিদুল ইসলাম শিকদার (২৬), কিশোরগঞ্জের মো. খায়রুল ভূঁইয়া (২০), বরগুনার মো. রাকিব হাসান (২০) এবং ঢাকার মো. নয়ন (২৮)।

র‌্যাবের দাবি, রাজধানীর মোহাম্মদপুর, বসিলা, শ্যামলী এলাকায় আস্তানা গেড়ে বিভিন্ন অপকর্ম করছিল তারা। ওইসব এলাকার বিভিন্ন পলাতক শীর্ষ সন্ত্রাসীদের নাম ভাঙিয়ে কয়েক বছর ধরে বিভিন্ন ব্যবসায়ী, নির্মাণাধীন ভবন মালিকদের টার্গেট করে চাঁদাবাজি করছিল। চাঁদার টাকা না পেলে ভুক্তভোগীদের বিভিন্নভাবে হুমকি ও ভয়ভীতি দেখাতে। এরপরও কেউ চাঁদা দিতে রাজি না হলে তারা বাসাবাড়ি অথবা ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে হামলা ও ডাকাতি করত। তাদের বিরুদ্ধে একাধিক চুরি ও ছিনতাইয়ের মামলাও রয়েছে।

র‌্যাব কর্মকর্তা কমান্ডার আল মঈন বলেন, উত্তরা মটরস-এর ডিলার ‘ইডেন আটো’স নামের শোরুমে একটি ডাকাত দল প্রবেশ করে ম্যানেজার ওয়াদুদ সজীব এবং মটর টেকনিশিয়ান নুরনবী হাসানকে ধারালো চাপাতি দিয়ে আঘাত করে। এ সময় ডাকাত দলের কিছু সদস্য শোরুমের দোতলায় উঠে গ্লাস, কম্পিউটার, ল্যাপটপ এবং ক্যাশ ড্রয়ার ভাঙচুর করে। তারা ক্যাশ থেকে সাড়ে পাঁচ লাখ টাকা এবং ডেস্কটপ কম্পিউটারের মনিটর নিয়ে পালিয়ে যায়। এর আগে থেকে তারা প্রতিষ্ঠানটির মালিককে বিভিন্ন সন্ত্রাসীর নামে হুমকি ও চাঁদা দাবি করছিল। ডাকাতির ঘটনার পর র‌্যাব ছায়াতদন্ত শুরু করে ও গোয়েন্দা নজরদারি বাড়ায়। গতরাতে র‌্যাব সদর দপ্তরের গোয়ন্দা শাখা ও র‌্যাব-২ ঢাকা জেলার দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ এবং ধামরাই এলাকায় অভিযান চালিয়ে ডাকাত চক্রের মূলহোতাসহ ছয়জনকে গ্রেপ্তার করে। এ সময় ডাকাতির কাজে ব্যবহৃত চারটি চাপাতি ও নগদ ১ লাখ ৯৩ হাজার টাকা উদ্ধার করে।

র‌্যাবের এই কর্মকর্তা বলেন, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা গেছে, তারা মোহাম্মদপুরকেন্দ্রিক একটি সংঘবদ্ধ অপরাধী চক্রের সদস্য। তাদের দলে ৮-১০ জন রয়েছে। মোহাম্মদপুর, বসিলা, শ্যামলী এবং আশপাশের এলাকায় বিভিন্ন পলাতক শীর্ষ সন্ত্রাসীর নাম ভাঙিয়ে কয়েক বছর ধরে চাঁদাবাজি করছিল তারা। এ ছাড়াও তারা মাদক ও চোরাই অটোরিকশা ব্যবসা, চুরি ও ছিনতাইসহ বিভিন্ন অপরাধে জড়িত।

র‌্যাব বলছে, শ্যামলীর ওই মোটরসাইকেল শোরুমে প্রায় তিন মাস আগে মোটা অংকের চাঁদা দাবি করেছিল চক্রটি। ওই চাঁদা না পেয়ে সেখানে ডাকাতির পরিকল্পনা করে তারা। ১১ অক্টোবর মোহাম্মদপুরের ঢাকা উদ্যান এলাকায় জসিমের বাড়িতে বসে জহির, জাহিদ, নয়ন, খায়রুল এবং রাকিব একত্রিত হয়ে শ্যামলী ইডেন অটো শোরুমে ডাকাতির পরিকল্পনা হয় তাদের। ওইদিন সন্ধ্যায় শোরুমটি রেকি করে। জসিম ও জহির ঢাকা উদ্যান কাঁচাবাজার থেকে ডাকাতির কাজে ব্যবহৃত চারটি চাপাতি কেনে। পরের দিন আবারও শোরুমের সামনে যায় এবং ভেতরে প্রবেশ করে চাপাতি দিয়ে দুজনকে জখম করে। অন্যরা শোরুমে ভাঙচুর করে। পাঁচ-ছয় মিনিটে ডাকাতি শেষ করে তারা পালিয়ে যায়।

কেএফ/টিআই

মন্তব্য করুন

RTV Drama
RTVPLUS