Mir cement
logo
  • ঢাকা বুধবার, ২৭ অক্টোবর ২০২১, ১২ কার্তিক ১৪২৮

পাবজি-ফ্রি ফায়ার কি আজই বন্ধ হচ্ছে?

পাবজি ও ফ্রি-ফায়ার গেম

অনলাইনভিত্তিক গেম ‘পাবজি ও ফ্রি ফায়ার রাত ১২টা থেকে বন্ধ হচ্ছে’ - এমন বেশকিছু পোস্ট সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শনিবার (২১ আগস্ট) থেকে প্রকাশ হলেও এসব গেম মূলত বন্ধ হয়নি। বৃহস্পতিবার (১৯ আগস্ট) হাইকোর্ট থেকে অনলাইনভিত্তিক ক্ষতিকর গেম বন্ধের লিখিত আদেশ প্রকাশ হওয়ার পরই বিভিন্ন রকম পোস্ট ভাসতে থাকে নেটদুনিয়ায়। গেম বন্ধ হওয়া নিয়ে প্রকাশিত পোস্টগুলো কেবলই গুজব।

বৃহস্পতিবার (১৯ আগস্ট) হাইকোর্ট থেকে অনলাইনভিত্তিক ক্ষতিকর গেম বন্ধের লিখিত আদেশ প্রকাশ হওয়ার পরই এসব গুজব বেড়েছে। তবে এই তথ্য সঠিক নয়। আজই পাবজি বা ফ্রি ফায়ার বন্ধ হচ্ছে এমন কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি।

গত ১৯ আগস্ট হাইকোর্ট থেকে প্রকাশ করা আদেশে তিন মাসের জন্য এসব অনলাইন গেম বন্ধ রাখার জন্য বলা হয়। সেই সঙ্গে এ আদেশ বাস্তবায়ন করতে বলা হয় বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি) সহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, আদালতের নির্দেশনা অনুযায়ী বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি) হয়তো শিগগিরই পদক্ষেপ নেবেন। কিন্তু বিটিআরসির সামর্থ্য আর প্রযুক্তির অগ্রগতি বিবেচনায় বলা যায়, পাবজি বা ফ্রি ফায়ারের মতো গেম বা অ্যাপগুলো বন্ধ করা সহজ নয়।

বাংলাদেশে ফেসবুক স্বীকৃত ডিজিটাল মার্কেটার পলাশ মাহমুদ বলেন, আদালত যে রায় দিয়েছে সেটি তথ্যপ্রযুক্তির সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ নয়। ডিজিটাল বাংলাদেশের ডিজিটাল প্লেগ্রাউন্ড বন্ধ করে দেওয়া যুক্তিযুক্ত হয় কিভাবে? এখানে সমস্যাটা হচ্ছে, কিশোর-তরুণরা গেমে আসক্ত হয়ে পড়ছে। কিন্ত সাধারণ স্মার্টফোনে অনেক গেম থাকে। ফ্রি ফায়ার বা পাবজি বন্ধ করলেও অন্যান্য গেম তো আপনি বন্ধ করবেন না। তখন এই দুটি বাদ দিয়ে অন্য গেম খেলবে।

তিনি আরও বলেন, যারা এই গেম ভালোবাসে তারা ভিপিএন ব্যবহার করবে। তখন সরকারের কিছু করার থাকবে না। এজন্য ফ্রি ফায়ার বা পাবজি বন্ধের মতো অকার্যর সিদ্ধান্ত না বরং বিকল্প ভাবা প্রয়োজন।

গত ১৬ আগস্ট হাইকোর্ট এক রিট আবেদনের প্রাথমিক শুনানিতে তরুণ সমাজকে রক্ষা করার জন্য পাবজি, ফ্রি-ফায়ারসহ ‘বিপজ্জনক’ সকল গেম বন্ধ করার জন্য নির্দেশ দেয়। একইসঙ্গে অনলাইন প্লাটফর্মে লাইকি, টিকটক, বিগো লাইভসহ ক্ষতিকর অ্যাপ এবং পাবজি, ফ্রি ফায়ারসহ ক্ষতিকর গেম বন্ধে বিবাদীদের নিস্ক্রিয়তা কেন বেআইনি ঘোষণা করা হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেন আদালত।

বিটিআরসির চেয়ারম্যানসহ সংশ্লিষ্টদের ৪ সপ্তাহের মধ্যে রুলের জবাব দিতে বলা হয়।

এর আগে বিটিআরসির পক্ষ থেকে এসব গেম বন্ধ করার উদ্যোগ নেয়ার কথা জানানো হয়েছিল। এ বিষয়ে (১৬ আগস্ট) ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার গণমাধ্যমকে বলেন, বিটিআরসি একক সিদ্ধান্তে কিছু করতে পারে না। যদি ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মে কোনো অপরাধ সংগঠিত হয় তাহলে জাতীয় নিরাপত্তা এজেন্সি বা সরকারের পক্ষ থেকে নির্দেশনা আসলে তবেই তা বন্ধ করতে পারে বিটিআরসি।

গত ১৬ আগস্ট বিটিআরসির ভাইস চেয়ারম্যান সুব্রত রায় মৈত্র অনলাইনভিত্তিক ক্ষতিকর গেম বন্ধের বিষয়ে জানিয়েছিলেন, আদালতের আদেশ হাতে পাওয়ার পর আমরা ব্যবস্থা নেব। আদেশে কী আছে তা দেখে সেই অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। অফিসিয়ালি অর্ডার হাতে পাওয়ার পর তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বিটিআরসি’র চেয়ারম্যান আরও বলেন, এখনও আমরা অফিসিয়াল অর্ডার হাতে পাইনি। তবে এসব গেম বন্ধ করার সক্ষমতা পুরোপুরি বিটিআরসি’র রয়েছে।

এসআর/

মন্তব্য করুন

RTV Drama
RTVPLUS