• ঢাকা মঙ্গলবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১০ আশ্বিন ১৪২৫

হাওরের মানুষের জীবন নিয়ে খেলা কেন?

নেত্রকোনা ও হবিগঞ্জ প্রতিনিধি
|  ০৪ এপ্রিল ২০১৮, ১৭:২৪ | আপডেট : ০৪ এপ্রিল ২০১৮, ১৭:৪৫
নেত্রকোনায় ফসল রক্ষা বাঁধের উন্নয়ন কাজে অনিয়ম দুর্নীতির অভিযোগ উঠেছে। যথাযথভাবে বাঁধ সংস্কার ও নির্মাণ না করে প্রকল্পের টাকা লুটপাট করার অভিযোগ ওঠছে সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে। নির্ধারিত সময়ে কাজ শেষ না হওয়ায় আগামীতেও ফসল হানির শঙ্কায় কৃষকরা।  

নেত্রকোনায় গেলো বারের বন্যায় তলিয়ে যায় প্রায় ৭০ হাজার হেক্টর জমির ফসল। সর্বস্বান্ত হন হাজারো কৃষক। বিধ্বস্ত হয় ফসল রক্ষার ছোট বড় ৪২টি বাঁধ। 

গত ডিসেম্বর থেকে শুরু হয় বিধ্বস্ত এসব বাঁধের সংস্কার কাজ। ১৭ কোটি টাকা ব্যয়ে পুনরায় বাঁধ নির্মাণ শুরু করে পানি উন্নয়ন বোর্ড। কিন্তু নির্ধারিত সময় ২৮ ফেব্রুয়ারির মধ্যে এ কাজ শেষ হয়নি। পাশাপাশি বাঁধ নির্মাণে অনিয়ম-দুর্নীতির অভিযোগ করেন কৃষকরা। 

কৃষকরা জানান, আমাদের জীবন নিয়ে খেলা হচ্ছে। পানি আসার সময় হয়ে যাচ্ছে এখন বাঁধ নির্মাণ হয় নাই। তারা বলে ৮০ শতাংশ কাজ হয়েছে আসলে ২০ শতাংশও কাজ হয় নাই।
--------------------------------------------------------
আরও পড়ুন: নির্বাচন ঘিরে খুলনাজুড়ে উৎসব
--------------------------------------------------------

বাঁধের স্থায়িত্বও নিয়ে সন্দিহান কৃষকরা। তাদের অভিযোগ, নিয়ম অনুযায়ী বাঁধ নির্মাণ না করে টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে প্রকল্পের লোকজন। প্রকল্পগুলো করাই হচ্ছে সংশ্লিষ্টদের নিজস্ব লোকজন দিয়ে।  

তবে, দুর্নীতির প্রমাণ পেলে ব্যবস্থা নেয়ার কথা জানান নেত্রকোনা পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মোহাম্মদ আকতারুজ্জামান।

এদিকে দ্রুত সময়ে সঠিকভাবে বাঁধের কাজ শেষ করার দাবি কৃষকদের। 

অপরদিকে হবিগঞ্জে নির্ধারিত সময়ে শেষ হয়নি হাওরের ফসল রক্ষা বাঁধ। ২৫ কিলোমিটার বাঁধ নির্মাণে চলছে হরিলুট আর ব্যাপক অনিয়ম। গতবারের ক্ষতি পুষিয়ে ঘুরে দাঁড়ানোর চেষ্টা থাকলেও বাঁধ নিয়ে দুশ্চিন্তায় কৃষকরা। 

হবিগঞ্জে গেলোবছর অকাল বন্যায় তলিয়ে যায় প্রায় ৮০ হাজার হেক্টর জমির ফসল। বিধ্বস্ত হয় বানিয়াচং, আজমিরীগঞ্জ ও লাখাই উপজেলার হাওর রক্ষা বাঁধ। এসব বাঁধ পুনরায় নির্মাণে উদ্যোগ নেয় পানি উন্নয়ন বোর্ড। ২৮ ফেব্রুয়ারির মধ্যে বাঁধ নির্মাণের কাজ শেষ হবার কথা। কিন্তু নির্ধারিত সময়ে অর্ধেক কাজও শেষ হয়নি। নির্মাণে রয়েছে, ত্রুটি ও অনিয়ম-দুর্নীতির অভিযোগ।   

বর্ষার আগে নির্মাণ শেষ না হলে আবারও বন্যায় ফসলহানির আশঙ্কা কৃষকদের। 

হবিগঞ্জ জেলার পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী তাওহিদুল ইসলাম বলেন, দেরিতে বরাদ্দ আসায় নির্ধারিত সময়ে কাজ শেষ হয়নি। অনিয়ম হলে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আরও পড়ুন:

এসএস  

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়