logo
  • ঢাকা রবিবার, ২১ জুলাই ২০১৯, ৬ শ্রাবণ ১৪২৬

ভারতকে হারিয়ে ফাইনালে নিউজিল্যান্ড

স্পোর্টস ডেস্ক, আরটিভি অনলাইন
|  ১০ জুলাই ২০১৯, ২০:০২ | আপডেট : ১১ জুলাই ২০১৯, ১১:৫৯
ভারত-নিউজিল্যান্ড
ছবি- সংগৃহীত
দুই দিনের ওয়ানডে ম্যাচ। শুনতে খানিক অবাক হলেও ভারত-নিউজিল্যান্ডের ম্যাচটা দুই দিনের। দ্বাদশ বিশ্বকাপে বৃষ্টি বেশ ভুগিয়েছে গোটা আসরজুড়ে। সেমি-ফাইনালের আগে চারটি ম্যাচে বৃষ্টি বড় ধরনের ক্ষতি করে দিয়েছিল বাংলাদেশ ও পাকিস্তানের মতো দলগুলোর।

সেমি-ফাইনালের লড়াইতেও সেই বৃষ্টির হানা। ভাগ্যিস, রিজার্ভ-ডে ছিল। নইলে ভারত-নিউজিল্যান্ডের এমন জমজমাট লড়াই অধরাই থেকে যেত।

ম্যানচেস্টারের ওল্ড ট্রাফোর্ডে মঙ্গলবার টস জিতে কিউই অধিনায়ক সিদ্ধান্ত নেয় ব্যাটিংয়ের। ব্যাটিংয়ে নেমে প্রথম ১০ ওভারে রান আসে মাত্র ২৭। ইনিংসের ৩ ওভার ৩ বলের সময় দলীয় ১ রানে সাজঘরে ফেরেন মার্টিন গাপটিল।

এরপর দলীয় ৬৯ রানের মাথায় আরেক উদ্বোধনী হ্যানরি নিকোলসের (২৮) উইকেট হারায় কিউইরা। দ্বিতীয় উইকেট জুটিতে নিকোলস আর কেন উইলিয়ামসন যোগ করেন ৬৮ রান।

তৃতীয় উইকেট জুটিতে রস টেলর আর উইলিয়ামসন প্রতিরোধ গড়লেও এগুতে পারেননি জাসপ্রিত বুমরাহ, রবীন্দ্র জাদেযাদের বোলিং তোপে।

ব্যক্তিগত ৬৭ রানের মাথায় যুজবেন্দ্র চাহালের বলে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন কিউই অধিনায়ক। গতকাল ৪৬ ওভার ১ বলের সময় ২১১ রানে খেলা বন্ধ হয়ে যায় বৃষ্টির কারণে।

আজ বুধবার ব্যাটিংয়ে নেমে বাকি ব্যাটসম্যানদের কেউই পার করতে পারেননি কুড়ি রানের কোটা। যদিও গতদিন অপরাজিত থাকা রস টেলর তুলে নেন অর্ধশতক।

রিজার্ভ-ডের সকালে ব্যাট করতে নেমে ৪৭ ওভারের শেষ বলে ৭৪ রান করেন ফেরেন টেলরও।

টেলরের বিদায়ের পর কিউইদের ইনিংস আর বেশিদূর গড়ায়নি। থেমে যেতে হয়েছে ৫০ ওভারে ৮ উইকেটে ২৩৯ রানেই।

ভারতের হয়ে ভুবনেশ্বর কুমার নেন ৩টি উইকেট, এছাড়া ১টি করে উইকেট নেন বুমরাহ, হার্দিক পান্ডিয়া, যাদেজা ও চাহাল।

ওল্ড ট্রাফোর্ডের উইকেট যে গতকাল থেকেই বিরুদ্ধাচরণ করছিল সেটা বোধ হয় মাথায় ছিল না ভারতীয়দের। মাত্র ৫ রানেই সাজঘরে রোহিত শর্মা, বিরাট কোহলি আর লোকেশ রাহুল। তিনজনই করেন ১ রান করে। খানিক বাদে দীনেশ কার্তিকও ফেরেন মাত্র ৬ রান করে।

কিউ পেসারদের সামনে ভারতের লম্বা ব্যাটিং লাইন-আপের যখন এমন অবস্থা তখন কিছুক্ষণের জন্য ভারতকে ম্যাচে ফেরান রিষাব প্যান্ট আর হার্দিক পান্ডিয়া।

৪৭ রানের জুটি গড়ে কিছুটা স্বস্তির পর প্যান্ট ফেরেন ৩২ রান করে স্যান্টনারের বলে ক্যাচ দিয়ে।

এরপর মহেন্দ্র সিং ধোনি আর পান্ডিয়ার ২১ রানের জুটির ইতি টেনে দেন পান্ডিয়াকে ৩২ রানে বিদায় করে স্যান্টনারই।

যখন দলীয় ৯২ রানে ৬ উইকেট নেই ভারতের তখন আপনি নিশ্চিত ধরে নিয়েছিলেন এই ম্যাচটা ভারতের নাগালের বাইরে।

ঠিক তখনই ১১৬ রানের লম্বা জুটি গড়ে আবারও ভারতকে ম্যাচে ফেরান ধোনি-যাদেজা।

যাদেজার অর্ধশতক, ৭৭ রান করে বিদায় নেন ট্রেন্ট বোল্টের বলে ক্যাচ দিয়ে। ভারতবাসীর চোখ তখন ধোনির দিকে। বিশ্বসেরা এই ফিনিশার কত ম্যাচ জিতিয়েছেন ভারতকে সেটা সবারই জানা কিন্তু আজ আর হলো না। দলীয় ২১৬ রানের মাথায় রান আউট হয়ে সাজঘরে ফেরেন হতাশায় মাথা নুইয়ে।

ধোনি পারলেন না, পারেনি বাকিরাও। ভারতকে ১৯ রানে হারিয়ে টানা দ্বিতীয়বারের মতো ফাইনালে জায়গা করে নিলো নিউজিল্যান্ড। কিউইদের হয়ে ৩ উইকেট নেন ম্যাট হেনরি ও ২টি করে উইকেট নেন ট্রেন্ট বোল্ট আর মিচেল স্যান্টনার। এছাড়া ১টি করে উইকেট নেন লকি ফার্গুসন ও জিমি নিশাম।

এমআর/সি

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়