• ঢাকা রোববার, ২৬ মে ২০২৪, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
logo

জার্সি পরিবর্তনের দিনে তীরে এসে তরী ডুবলো বেঙ্গালুরুর, টানা সপ্তম হার

স্পোর্টস ডেস্ক, আরটিভি নিউজ

  ২১ এপ্রিল ২০২৪, ২০:২৫
আইপিএল ২০২৪
ছবি- বিসিসিআই

ব্যর্থতার বৃত্ত থেকে বের হতে কলকাতার বিপক্ষে জার্সি বদলে ফেলার ঘোষণা দিয়েছিল রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরু। তবুও শেষ রক্ষা হয়নি কোহলিদের। শ্বাসরুদ্ধকর ম্যাচে তীরে এসে তরী ডুবেছে বেঙ্গালুরুর। শেষ ওভারের নাটকীয়তায় ১ রানে হারের তিতো স্বাদ পেয়েছে তারা। এতে টানা সপ্তম হারের দেখা পেলো দলটি।

রোববার (২১ এপ্রিল) ঘরের মাঠে ব্যাট করতে নেমে বেঙ্গালুরুকে ২২৩ রানের লক্ষ্য দেয় কলকাতা। জবাব দিতে নেমে নির্ধারিত ওভারে ১০ উইকেট হারিয়ে ২২১ রান তুলতে পারে বেঙ্গালুরু। এতে ১ রানের জয় পায় কলকাতা।

বড় লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে দুর্দান্ত শুরু করে বেঙ্গালুরুর দুই ওপেনার বিরাট কোহলি এবং ফাফ ডু প্লেসিস। তবে ইনিংস বড় করতে পারেননি দুজনের কেউই। ৭ বলে ১৮ রান করে কোহলি আউট হলে ৭ বলে ৭ রান করে তাকে সঙ্গ দেন ডু প্লেসিস।

এরপর বেঙ্গালুরু শিবিরে হাল ধরেন উইল জ্যাক এবং রজত পাতিদার। দুজনের ব্যাট থেকে আসে ১০২ রান। ৩২ বলে ৫৫ রান করে জ্যাক এবং ২৩ বলে ৫২ রান করে পাতিদার আউট হলে বিপাকে পড়ে বেঙ্গালুরু। ব্যাট হাতে ভরসা দিতে পারেননি গ্রিন (৬) এবং মাহিপাল লোমরোরও (৪)।

সুয়াশকে সঙ্গে নিয়ে রান তুলতে থাকেন দিনেশ কার্তিক। দুজনের ব্যাটে ভর করে জয়ের স্বপ্ন দেখতে থাকে কোহলিরা। কিন্তু ১৮ বলে ২৪ রান করে সুয়াশ আউট লড়াই করতে থাকেন কার্তিক।

শেষ ১২ বলে বেঙ্গালুরু লক্ষ্য দাঁড়ায় ৩১ রান। কিন্তু ১৯তম ওভারের শেষ বলে কার্তিক আউট হলে ম্যাচ থেকে ছিটকে যায় বেঙ্গালুরু। ১৮ বলে ২৫ রান করেন তিনি।

৬ বলে বেঙ্গালুরুর লক্ষ্য দাঁড়ায় ২১ রান। তবে ২৪ কোটি রুপির স্টার্কের চার বলে তিন ছক্কার হাঁকিয়ে চমক দেখান কারান শর্মা। তবে পঞ্চম বলে কারানকে দুর্দান্ত ক্যাচে আউট করেন স্টার্ক। পরের বলে জয়ের জন্য তিন দরকার থাকলেও ডাবল নিতে গিয়ে লকি ফার্গুসন রান আউট হলে ১ রানের জয় পায় কলকাতা। এতে টানা সপ্তম হারের স্বাদ পায় বেঙ্গালুরু।

কলকাতা নাইট রাইডার্সের সর্বোচ্চ দিন উইকেট শিকার করেন আন্দ্রে রাসেল। হার্সিত রানা এবং সুনিল নারিন নেন দুটি করে উইকেট। এছাড়াও ভারুণ চক্রবর্তী ও মিচেল স্টার্ক একটি করে উইকেট নেন।

এর আগে টস হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে দুর্দান্ত শুরু করে কলকাতার দুই ওপেনার ফিল সল্ট ও সুনিল নারিন। তবে দুই রানের আক্ষেপ নিয়ে সাজঘরে ফেরেন সল্ট। ১৪ বলে ৪৮ রানের বিধ্বংসী ইনিংস খেলে আউট হন তিনি। ১৫ বলে ১০ রান করে তাকে সঙ্গ দেন নারিনও।

এদিন ব্যাট হাতে আলো ছড়াতে পারেননি রাঘুভানশি। ৪ বলে ৩ রান করে এই ডান হাতি ব্যাটার আউট হলে ভেঙ্কাতিশ আইয়ারকে (১৬) সাজঘরে ফেরান ক্যামরুন গ্রিন। কিন্তু এক প্রান্ত আগলে রেখে রান তুলতে থাকেন অধিনায়ক শ্রেয়াস আইয়ার। ১৬ বলে ২৪ রান করে তাকে সঙ্গ দেন রিঙ্কু সিং।

তবে ৩৫ বলে ফিফটি তুলে নেন আইয়ার। পরের বলেই গ্রিনকে উড়িয়ে মারতে গিয়ে ক্যাচ আউট হন আইয়ার। শেষ দিকে জুটি গড়েন আন্দ্রে রাসেল এবং রামানদ্বীপ সিং।

রাসেলের ২০ বলে ২৭ রান এবং রামানদ্বীপের ৯ বলের অপরাজিত ২৪ রানে ভর করে ছয় উইকেট হারিয়ে ২২২ রানের বড় পুঁজি পায় কলকাতা।

মন্তব্য করুন

daraz
  • খেলা এর পাঠক প্রিয়
আরও পড়ুন
হায়দরাবাদকে বিধ্বস্ত করে কলকাতার তৃতীয় শিরোপা জয়
কলকাতার মান রাখলেন ২৫ কোটির স্টার্ক
দুর্দান্ত বোলিংয়ে হায়দরাবাদকে ১১৩ রানে আটকালো কলকাতা
দ্বিতীয় শিরোপা জয়ের লক্ষ্যে টস জিতে ব্যাটিংয়ে হায়দরাবাদ
X
Fresh